প্লাস্টিকের বোতলের তৈরি বাড়ি মুশকিল আসান হয়ে উঠছে | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 26.08.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞান পরিবেশ

প্লাস্টিকের বোতলের তৈরি বাড়ি মুশকিল আসান হয়ে উঠছে

দক্ষিণ অ্যামেরিকা থেকে আফ্রিকা পর্যন্ত প্লাস্টিকের বোতল দিয়ে সস্তা অথচ মজবুত বাড়ি তৈরি করে তাক লাগিয়ে দিচ্ছেন জার্মানির এক ছুতোর মিস্ত্রি৷ এর ফলে অনেক সামাজিক সমস্যারও সমাধানসূত্র পাওয়া যাচ্ছে৷

নাইজেরিয়ায় এভাবেই গড়ে উঠছে বোতল-বাড়ি

নাইজেরিয়ায় এভাবেই গড়ে উঠছে বোতল-বাড়ি

পরিবেশ বনাম প্লাস্টিক

আধুনিক এই যুগে চারিদিক ছেয়ে রয়েছে প্লাস্টিকের মোড়ক, প্লাস্টিকের বোতল, প্লাস্টিকের রকমারি জিনিসপত্র৷ পরিবেশের জন্য প্লাস্টিক কতটা ক্ষতিকর, তা আর নতুন করে বলার অপেক্ষা রাখে না৷ কারণ বর্জ্য হিসেবে প্লাস্টিকের বিনাশ প্রায় অসম্ভব বলা চলে৷ কিন্তু আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়ায় প্লাস্টিকের বোতলের অভিনব ব্যবহার শুরু হয়ে গেছে৷ বোতল দিয়ে আস্ত বাড়ি তৈরির উদ্যোগ চলছে সেখানে, যার পেছনে রয়েছেন জার্মানির ছুতোর মিস্ত্রি আন্দ্রেয়াস ফ্র্যোজে৷

Plastikflasche Müll

আবর্জনা হিসেবে সাগর দূষিত করে প্লাস্টিকের বোতল

বোতল-বাড়ির রহস্য

আন্দ্রেয়াস গোটা বিষয়টি বেশ সহজভাবে ভেবে রেখেছেন৷ প্রথমে প্লাস্টিকের খালি বোতলে বালি ও আবর্জনা ভরে ফেলতে হয়৷ সেগুলি দিয়ে দেওয়াল তৈরি করা হয়৷ বোতলগুলিকে পরস্পরের সঙ্গে জুড়তে অবশ্যই মাটি বা সিমেন্ট ব্যবহার করা হয়৷ গোটা কাঠামো স্থিতিশীল রাখতে নায়লনের দড়ি ব্যবহার করা হয়৷

সহজ এই পদ্ধতি কাজে লাগিয়ে এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চাইছেন আন্দ্রেয়াস৷ একদিকে পরিবেশ দূষণ কমাতে চান তিনি, অন্যদিকে গরিব মানুষের জন্য জীবিকা অর্জনের নতুন এক পথও খুলে দিতে চান৷ বছর দশকের আগে এই উদ্দেশ্যে তিনি দক্ষিণ অ্যামেরিকার দেশ হন্ডুরাসে একটি কোম্পানি শুরু করেছিলেন, যার নাম ইকো-টেক৷ এর মধ্যে গোটা বিশ্বে ৫০টি বাড়ি তৈরি করেছে এই সংস্থা৷ প্লাস্টিকের বোতলের তৈরি হলেও বেশ মজবুত ও নিরাপদ সেই সব বাড়ি৷ এমনকি রিশটার স্কেলে ৭.৩ মাত্রার ভূমিকম্পের পরেও দাঁড়িয়ে থাকতে পেরেছে এই বাড়ি৷

কিন্তু আন্দ্রেয়াস যখন কাউকে প্রথম বারের মতো এই প্রকল্পের কথা বলেন, তখন খুব একটা উৎসাহ দেখতে পান না৷ নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে তিনি বললেন, ‘‘প্রথমদিকে উৎসাহের বদলে সংশয়ই বেশি দেখা যায়৷ কিন্তু যেহেতু এমন বাড়ির ধারণা গতানুগতিক নয়, সেকারণেই বিষয়টি আকর্ষণীয়৷ কৌতূহল মেটাতে অনেক মানুষ নির্মাণ কাজ দেখতে আসেন৷ তখন আমরা তাদের দেখাতে পারি, কীভাবে আমরা কাজ করছি৷ তারা আরও বুঝতে পারেন, যে সাধারণ ইটের চেয়ে প্লাস্টিকের বোতল অনেক বেশি টেকসই৷ উপাদান হিসেবে বোতল আরও শক্ত এবং আরও বেশি ধাক্কা সামলাতে পারে৷''

Nigeria Haus aus PET-Flaschen in Afrika Plastikflaschen statt Ziegel

সাধারণ বাড়ির চেয়েও মজবুত হতে পারে বোতল-বাড়ি

দক্ষিণ অ্যামেরিকা থেকে আফ্রিকা

বছরখানেক আগে আন্দ্রেয়াস আফ্রিকায় এই প্রকল্প শুরু করার সিদ্ধান্ত নেন৷ তিনি প্রথমে উগান্ডায় জলের এক ট্যাঙ্ক তৈরি করেন৷ এখন তিনি নাইজেরিয়ায় ‘ডেয়ার' নামের সংগঠনের সঙ্গে মিলে একটি প্রকল্প শুরু করেছেন৷ কাদুনা'য় আফ্রিকা মহাদেশের প্রথম প্লাস্টিকের বোতলের বাড়ি তৈরির কাজ শুরু হয়েছে৷ হোটেল, রোস্তোরাঁ, দূতাবাস ও সাধারণ বাড়িঘর থেকে প্লাস্টিকের পরিত্যক্ত বোতল সংগ্রহ করা হচ্ছে৷

প্লাস্টিকের বোতলের তৈরি এই বাড়ি যতটা সম্ভব পরিবেশ বান্ধব করে গড়ে তুলছেন আন্দ্রেয়াস৷ এই বাড়িতে সৌর বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হচ্ছে৷ বাড়ির নিজস্ব পয়ঃপ্রণালী থাকবে এবং পানীয় জল শোধনেরও আলাদা ব্যবস্থা থাকবে৷ নির্মাণের কাজে প্লাস্টিক বোতল ব্যবহারের আরও একটি সুবিধা রয়েছে৷ নির্মাণের প্রচলিত উপাদানের তুলনায় প্লাস্টিকের বোতলের দাম অনেক কম৷

বোতল-বাড়ি ও কর্মসংস্থান

এই প্রকল্পের আওতায় তরুণ প্রজন্মের প্রশিক্ষণের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে৷ নাইজেরিয়ায় তরুণ প্রজন্মের মধ্যে চরম বেকারত্ব বড় এক সমস্যা৷ ‘ডেয়ার' সংগঠনের প্রধান ইয়াহায়া আহমেদ মনে করেন, সমাজের জন্য এই সমস্যা একটা টাইম-বোমার মতো৷ বিস্ফোরণ ঘটলে তার পরিণাম হবে মারাত্মক৷ কারণ তরুণ-তরুণীদের মনে ক্ষোভ বেড়েই চলেছে৷ তারা মনে করে, সরকার তাদের নিয়ে মাথা ঘামায় না৷ স্কুলের গণ্ডি পেরোলেও চাকরির কোনো নিশ্চয়তা নেই৷ এই সংকটের প্রেক্ষাপটে ইকো-টেক ও ডেয়ার হাত মিলিয়েছে৷ এরই মধ্যে কিছু সাফল্যের মুখ দেখছে এই যৌথ প্রকল্প৷

Kaduna/Nigeria: Plastikflaschen statt Ziegel

কাদুনা’য় বোতল বাড়ি

ইয়াহায়া আহমেদ বললেন, ‘‘নির্বাচনের পর যেসব হিংসাত্মক ঘটনা ঘটেছে, তাতে এই সব তরুণরা মোটেই জড়িত ছিল না৷ তার আগে কিন্তু এরাই গুন্ডাগিরি করে বেড়াতো৷ এটা সত্যি ইতিবাচক এক প্রবণতা৷ বোতল দিয়ে এই বাড়ি তৈরি করার সময় আমরা রাস্তা থেকে ১৫ জন তরুণ ভিখিরিকে তুলে এনে তাদের কাজ দিয়েছি৷ তাদের শিখিয়েছি, কীভাবে বোতলে বালি ইত্যাদি ভরতে হয়৷ আচমকা আরও প্রায় ৫০০ জন এসে আমাদের কাছে কাজ করতে চাইলো৷ বলাই বাহুল্য, আমাদের পক্ষে এত লোককে কাজ দেওয়া সম্ভব নয়৷ তবে আমরা যদি আরও বোতলের বাড়ি তৈরি করতে পারি, তখন আমরা রাস্তা থেকে আরও তরুণদের নিয়ে এসে কাজে লাগাতে পারি৷ তখন হিংসার প্রবণতাও কিছুটা কমে যাবে৷''

বেকারত্বের বিরুদ্ধে সংগ্রাম

দীর্ঘমেয়াদী এক পরিকল্পনার আওতায় নাইজেরিয়ায় এক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র খোলা হবে, যেখানে প্লাস্টিক বোতলের বাড়ি তৈরির উদ্দেশ্যে এলাকার মানুষকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে৷ এখনো পর্যন্ত এই প্রকল্পের কল্যাণে ৯০ জনের কর্মসংস্থান ঘটেছে৷ এরা জানুয়ারি মাসে একটি স্কুল তৈরির কাজে হাত দেবে এবং স্কুলের ছাত্রদেরও বোতল থেকে ইট তৈরির পদ্ধতি শেখাবে৷ যেসব তরুণ কাজের আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিল, তারা আজ অত্যন্ত সন্তুষ্ট৷

Flutkatastrophe in Pakistan Flash-Galerie

দক্ষিণ এশিয়ায়ও প্লাস্টিকের বোতলের নানা ব্যবহার দেখা যায়

কিন্তু সমস্যা দেখা যাচ্ছে বোতল-বাড়ি প্রকল্পে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে৷ ইকো-টেক বহুকাল ধরে সাফল্য দেখিয়ে এলেও অর্থ সংগ্রহ করা আজও বেশ কঠিন৷ ছোট সংস্থা বা পৌরসভাই মূলত এই সব প্রকল্পে টাকা ঢালে৷ ইয়াহায়া আহমেদের আশা, উন্নয়ন সাহায্যের হাতিয়ার হিসেবেও এই প্রকল্প একদিন জার্মানির মতো দাতা দেশের স্বীকৃতি পাবে৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়