প্রেসিডেন্টকে সরাতে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ চায় সুদানি বিক্ষোভকারীরা | বিশ্ব | DW | 08.04.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

প্রেসিডেন্টকে সরাতে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ চায় সুদানি বিক্ষোভকারীরা

প্রায় তিন দশক ক্ষমতায় থাকা প্রেসিডেন্ট ওমর আল-বশিরকে ক্ষমতা থেকে সরাতে সেনাবাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সুদানের বিক্ষোভকারীরা৷

রাজধানী খার্তুমে সেনা সদর দপ্তরের সামনে টানা তিন দিনের বিক্ষোভ ও অবস্থানে অংশ নিচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ৷ সুরক্ষিত ওই কম্পাউন্ডের ভেতরে প্রেসিডেন্টের বাসভবন এবং প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় রয়েছে৷

অতি মাত্রায় মূল্যস্ফীতির মধ্যে হঠাৎ করে রুটির দাম বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে গত ডিসেম্বরে রাজধানী খার্তুমসহ   সুদানের বিভিন্ন এলাকায় বিক্ষোভ শুরু হয়৷ বশির সরকারের অব্যবস্থাপনাকে খাদ্য সংকট ও প্রায় ৭০ ভাগ মূল্যস্ফীতির জন্য দায়ী করছেন বিক্ষোভকারীরা৷

গত শনিবার থেকে সেনাসদরের সামনে অবস্থান করছেন হাজার হাজার মানুষ৷ নিরাপত্তাবাহিনীর ব্যাপক কাঁদুনে গ্যাসে এই পর্যন্ত সেখানে একজন চিকিৎসকসহ পাঁচ জন নিহতের খবর পাওয়া গেছে৷

সব মিলিয়ে গত ডিসেম্বর থেকে প্রেসিডেন্ট বিরোধী বিক্ষোভে ৩২ জন নিহতের কথা জানিয়েছেন সরকারি কর্মকর্তারা৷ তবে হিউম্যান রাইটস ওয়াচের হিসাবে এই সংখ্যা ৫১ জন৷

চার মাস আগে বিক্ষোভের সময় প্রেসিডেন্টকে সরাতে বিক্ষোভকারীরা সেনা হস্তক্ষেপ চাইলেও বশিরের পক্ষেই অবস্থান নিয়েছিল সেনা কর্তৃপক্ষ৷ এভাবে ১৯৮৯ সাল থেকে তাঁর ক্ষমতায় থাকার পেছনে সেনা সমর্থনই মুখ্য হিসাবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে৷

সে সময় সেনাবাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, ‘‘দেশের নেতৃত্ব, জনগণের স্বার্থ ও জাতীয় নিরাপত্তার কাজ করার বিষয় নিশ্চিত করছে সেনাবাহিনী৷ এক্ষেত্রে জনগণের নিরাপত্তায় জীবন, সম্মান ও সব শক্তি নিয়োগ করা হবে৷''

সোমবার ভোরে নিরাপত্তাবাহিনীর বেশ কয়েকটি ট্রাকে বিক্ষোভকারীদের তুলে নিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা৷ ‘‘এরপর তারা ব্যাপক কাঁদুনে গ্যাস নিক্ষেপ করা শুরু করে,'' এএফপিকে বলেন একজন প্রত্যক্ষদর্শী৷

এদিকে বিক্ষোভের বিষয়ে সুদান সরকারের অবস্থান নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন৷ এক বিবৃতিতে এক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানিয়েছে সংস্থার পররাষ্ট্র বিভাগ৷

এতে বলা হয়, ‘‘বহু বছর ধরে অস্বাভাবিক বাধা-বিপত্তির বিপরীতে অসাধারণ সহনশীলতা দেখিয়েছে সুদানের জনগণ৷ সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপের মাধ্যমে তাদের এই বিশ্বাসকে উর্ধ্বে তুলে ধরতে হবে সরকারকে৷''

অন্যদিক, দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত সেনাসদরের সামনে অবস্থান চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বিক্ষোভকারীরা৷ ‘‘শনিবার আমরা যা শুরু করেছি, তা দাবি আদায় পর্যন্ত চলবে৷ যতক্ষণ না প্রেসিডেন্ট পদত্যাগ করবেন, ততক্ষণ আমরা এই স্থান ত্যাগ করব না,'' এএফপিকে বলেন ওসামা আহমেদ নামে এক বিক্ষোভকারী৷

এমবি/জেডএইচ (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন