1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Bangladesch - Landesweiter Streik
ফাইল ফটোছবি: Getty Images

প্রাইম ব্যাংকে অন্য পুলিশ কর্মকর্তাদের অ্যাকাউন্টের ভবিষ্যৎ

৭ জুলাই ২০২২

মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় পড়া র‌্যাবের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক জাহাঙ্গীর আলমের ব্যাংক হিসাব প্রাইম ব্যাংক থেকে গুটিয়ে নিতে বলার ব্যাপারে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আপাতত নতুন কোনো ব্যাখ্যা দিচ্ছে না।

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%AE-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%82%E0%A6%95%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A6%BF%E0%A6%A6%E0%A7%8D%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A4-%E0%A6%95%E0%A6%BF-%E0%A6%85%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%AF-%E0%A6%AA%E0%A7%81%E0%A6%B2%E0%A6%BF%E0%A6%B6-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%AE%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%A6%E0%A7%87%E0%A6%B0-%E0%A6%AC%E0%A7%8D%E0%A6%AF%E0%A6%BE%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%87%E0%A6%93-%E0%A6%AA%E0%A7%8D%E0%A6%B0%E0%A6%AF%E0%A7%8B%E0%A6%9C%E0%A7%8D%E0%A6%AF/a-62398143

তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন তারা যদি সঠিকভাবে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকে তাহলে তা নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়া অন্য কর্মকর্তাদের ব্যাপারেও প্রযোজ্য হতে পারে।

যমুনা ব্যাংকের সাবেক ব্যাবস্থাপনা পরিচালক ও ব্যাংকার মো. নুরুল আমিন জানান,"প্রথমত, বাংলাদেশের কোনো ব্যাংক অ্যাকাউন্টের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে পারে এখানকার যেকোনো আদালত অথবা বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে এর বাইরে বাংলাদেশ বা বিশ্বের কোনো দেশে মার্কিন নাগরিকদের কোনো একাউন্ট থাকলে তা জানাতে হবে। এটা নিয়ে মার্কিন আইন আছে। আর আন্তর্জাতিক কোনো নিষেধাজ্ঞা, যেমন রাশিয়ার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আন্তর্জাতিক আইন আছে। আমাদের এই নিষেধাজ্ঞা মানতে হয় কারণ আমাদের মার্কিন ডলার লেনদেন আছে।  শুধু তাই নয় আমাদের এক্সপোর্ট, ইমপোর্ট সব ডলারে কনভার্ট হয়।”

তাহলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র কোনো ব্যক্তির উপর উপর নিষেধাজ্ঞা দিলে স্থানীয় ব্যাংকগুলো কি তা মানতে হবে?  এই প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন,"এটা দুইভাবে হতে পারে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আমাদের সরকারকে বলবে যে তাদের ব্যাংক একাউন্টের ব্যাপারে ব্যবস্থা নাও। সরকার বাংলাদেশ ব্যাংকের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেবে। অথবা সরাসরি সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোকে বলবে তোমরা ব্যবস্থা নাও, তা না হলে তোমাদের সাথে আমরা লেনদেন করব না।” সমস্যাটা হলো বাংলাদেশের কোনো ব্যাংকই ডলার লেনদেন ছাড়া চলতে পারে না বলে জানান তিনি। তাই বাংলাদেশকে মার্কিন সিদ্ধান্ত মানতে হয়।

মো. সিরাজুল ইসলাম

ব্যাংকিং আইনে বিশেষজ্ঞ আইনজীবী মুজাহিদুল ইসলাম জানান, সাধারণ বিবেচনায় কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের ব্যাপারে এক দেশের তদন্ত বা নিষেধাজ্ঞার প্রভাব অন্যদেশে পড়ার কথা নয়। কারণ বাংলাদেশের সরকার ও আদালতই ব্যংক হিসাব জব্দের নির্দেশ দিতে পারে। তবে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ব্যাংকগুলোর সঙ্গে নানা চুক্তিতে আবদ্ধ থাকে। এই চুক্তি মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ সিস্টেমের সঙ্গেও থাকে। এর মধ্যে মানিলন্ডারিং একটি বড় বিষয়। প্রাইম ব্যাংক কী কারণে জাহাঙ্গীর আলমকে তার ব্যাংক একাউন্ট গুটিয়ে নিতে বলেছে সেটা তারাই ভালো বলতে পারবে। ব্যাংকের লিগ্যাল এক্সপার্ট আছে। নিশ্চয়ই এক্সপার্টদের সাথে কথা বলেই তারা এটা করেছে। তবে প্রাইম ব্যাংকের সিদ্ধান্ত যদি সঠিক হয়ে থাকে তাহলে  মার্কিন নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা অন্য বাংলাদেশি কর্মকর্তাদের ব্যাপারেও তা প্রযোজ্য হতে পারে।”

প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হারুন অর রশিদ ডয়চে ভেলেকে বৃহস্পতিবার বলেন,"বিষয়টি এখনো আইনি প্রক্রিয়া এবং রিভিউয়ের মধ্যে আছে। তাই সেটা শেষ না হওয়া পর্যন্ত আমি নতুন করে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।”

মো. নুরুল আমিন

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাহাঙ্গীর আলম এখন প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টে কর্মরত। তিনি প্রাইম ব্যাংকের কাছে জানতে চেয়েও তারা একাউন্ট সম্পর্কে কোনো তথ্য না পেয়ে তথ্য অধিকার আইনে গত ৭ মার্চ ব্যাংককে চিঠি দেন। তাতেও কোনো সাড়া না পেয়ে তিনি ১৬ মে তথ্য কমিশনে আবেদন করেন। আর ওই দিনই প্রাইম ব্যাংক তাকে চিঠি দিয়ে জানায় যে, প্রাইম ব্যাংক লিমিটেড যুক্তরাষ্ট্রসহ আন্তর্জাতিক বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের নিয়ম-কানুন মেনে চলতে প্রতিশ্রুতিব্ধ যেহেতু মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের নির্বাহী আদেশ রয়েছে, সে কারণে প্রাইম ব্যাংক জাহাঙ্গীর আলমের সঙ্গে আর লেনদেনের সম্পর্ক রাখতে চায় না। এতে করে ব্যাংক নিজেই আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর যে নেটওয়ার্ক সেখান থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়বে। ব্যাংক নিজে এবং তার গ্রাহকেরা আন্তর্জাতিক লেনদেনের ক্ষেত্রে ঝুঁকিতে পড়বে।

চিঠিতে আরো বলা হয়, ব্যাংক বৃহত্তর স্বার্থে ও গ্রাহকদের নিরাপদ লেনদেন নিশ্চিত করার স্বার্থে জাহাঙ্গীর আলমের লেনদেন স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যত দিন না নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হচ্ছে, তত দিন এই সিদ্ধান্ত বলবৎ থাকবে।

এনিয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে জানতে চাইলে ব্যাংকের মুখপাত্র নির্বাহী পরিচালক মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন," বাংলাদেশে ৬১টি ব্যাংক রয়েছে। ব্যাংকগুলোর নিজস্ব কিছু নীতিমালা আছে। সেই নীতিমালা আমরা নিয়ন্ত্রণ করি না। কোনো গ্রাহক যেমন কোন ব্যাংকে তার একাউন্ট রাখবেন কোন ব্যাংকে রাখবেন না সেই সিদ্ধান্ত স্বাধীনভাবে নিতে পারেন। তেমনি ব্যাংকও কাকে গ্রাহক করবে কাকে করবে না সেটা তাদের ব্যাপার। তারা তাদের সুবিধা অসুবিধা বিবেচনা করেই এই সিদ্ধান্ত নেয়।”

বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওয়তায় পড়া র‌্যাব-পুলিশের কর্মকর্তাদের ব্যাংক হিসাব বন্ধ রাখার কোনো নির্দেশনা আছে কী না জানতে চাইলে তিনি বলেন,"বাংলাদেশ ব্যাংক সরাসরি এধরনের কোনো নির্দেশনা দেয়নি। আমরা দেইনি। তবে বাংলাদেশ ব্যাংকের ফাইনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট, দুদক বা সিআইডি দিতে পারে। তারা দিয়েছে কী না আমাদের জানা নাই।”

আর অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকার্স বাংলাদেশের চেয়ারম্যান ও ব্র্যাক ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সেলিম আর এফ হোসাইন বলেন,"আমার জানা মতে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কারণে ডলার একাউন্টের ওপর প্রভাব পড়ে। টাকার একাউন্ট বা লোকাল একাউন্টে কোনো প্রভাব পড়ে বলে আমরা জানা নাই। নিষেধাজ্ঞা হয় ডলারের উপরে, টাকার উপরে নয়। তবে সর্বশেষ আইনে কোনো পরিবর্তন হয়েছি কী না আমার জানা নাই।”

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জাহাঙ্গীর আলমের আইনজীবী শেখ আলি আহমদ বলেন,"আমরা ব্যাংকের কাছ থেকে তথ্য না পেয়ে কমিশনে মামলা করেছি। আমাদের একাউন্ট জব্দ করা হোক আর যাই করা হোক আমাদের তা তো জানাতে হবে। আমরা ব্যাংকের ম্যানেজারের কাছ থেকে তথ্য পাইনি। আপিল করেও পাইনি। এখন হঠাৎ করে বলা হচ্ছে মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কারণে একাউন্ট স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ১৮ জুলাই মামলার চূড়ান্ত শুনানি হবে।”

গুরুতর মানবাধিকার লংঘনের অভিযোগে গত ১০ ডিসেম্বর র‌্যাব-পুলিশের সাত কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভাগ ও পররাষ্ট্র দপ্তর।

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

মহিবুল্লাহ হত্যাকাণ্ডের পর ক্যাম্পে নানা সন্ত্রাসী গ্রুপ মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বলে স্থানীয় সূত্র জানায়৷ সেখানে এখন কমপক্ষে আটটি সন্ত্রাসী গ্রুপ সক্রিয় আছে৷

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিয়ানমারে ফেরার কথা বললেই বিপদ!

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান