প্রবৃদ্ধির উল্লম্ফনে চাঙা জার্মান অর্থনীতি | বিশ্ব | DW | 13.08.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

প্রবৃদ্ধির উল্লম্ফনে চাঙা জার্মান অর্থনীতি

চলতি অর্থবছরের দ্বিতীয়ার্ধে রেকর্ড পরিমাণ প্রবৃদ্ধি হয়েছে জার্মানিতে৷ ইউরোপের সবচেয়ে বড় অর্থনীতির এই উল্লম্ফন মন্দার পর আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷

default

জার্মানির অর্থমন্ত্রী রাইনার ব্রুডেরলে

বেশিদিন আগের কথা নয়, গ্রিসসহ কয়েকটি দেশে অর্থনৈতিক অস্থিরতা সঙ্কটে ফেলে দেয় ইউরোপীয় ইউনিয়নকে৷ বিশ্ববাজারে ইউরোর মানও পড়তে শুরু করে৷ আর এর মধ্যেই ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সুখবর শুনিয়েছে জার্মানি৷ দেশের কেন্দ্রীয় পরিসংখ্যান দপ্তর আজ জানিয়েছে, বছরের দ্বিতীয়ার্ধে জিডিপি প্রবৃদ্ধি এক লাফে বেড়ে হয়েছে ২ দশমিক ২৷ দুই জার্মানি জোড়া লাগার পর অর্থবছরের কোনো ভাগে এই পরিমাণ প্রবৃদ্ধি আর অর্জিত হয়নি৷ এমনটা যে হবে, তা আগে কেউ অনুমানও করতে পারেনি৷ রয়টার্স পূর্বাভাস দিয়েছিল, প্রবৃদ্ধি হতে পারে সর্বোচ্চ ১ দশমিক ৩ শতাংশ৷

Frankfurter Wertpapierbörse

জার্মানির ফ্রান্কফুর্ট স্টক এক্সচেঞ্জ

জার্মানির অর্থমন্ত্রী রাইনার ব্রুডেরলে আশা করছেন, বছর শেষেও প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির ধারা অব্যাহত থাকবে৷ তিনি রয়টার্সকে বলেন, ‘‘এটাকে নাটকীয় বলা যায় না৷ তবে খবরটি আনন্দের তো বটেই৷ বছর শেষে প্রবৃদ্ধি ২ এর ওপরে থাকবে, এটা এখন বলাই যায়৷'' জার্মান সরকার অবশ্য এই বছর জিডিপি প্রবৃদ্ধি আরো কম ধরছিল৷ তা ছিল ১ দশমিক ৪৷ তবে এখন তা যে বাড়বে, তা বলছেন অর্থনৈতিক বিশ্লেষকরাও৷ ডেকাব্যাংকের কর্মকর্তা অ্যান্ড্রেয়াস শুয়েরলে বলেন, ‘‘এখন তো মনে হচ্ছে বছর শেষে প্রবৃদ্ধি ৩ ছাড়াবে৷ জার্মানি গোটা বিশ্বের জন্যই আশীর্বাদ বয়ে আনেছে৷''

জার্মানি শুধু নিজেদের অর্থনীতির ভিতই মজবুত করেনি, টেনে তুলছে ইউরো জোনকেও৷ আঞ্চলিক প্রবৃদ্ধিও শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ বাড়তে পারে বলে আভাস মিলছে৷ আর জার্মানির সুখবরে চাঙা হয়েছে ইউরোপের স্টক এক্সচেঞ্জগুলো৷ অর্থনীতিবিদরা মন্দা কাটার পূর্বাভাস দিলেও এখন পর্যন্ত তার গতি ধীর দেখা যাচ্ছে৷ বিশ্বের দুই অর্থনৈতিক পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীনেও একই অবস্থা৷ তবে জার্মানিতেই তার ব্যতিক্রম দেখা যাচ্ছে৷ জার্মানির এই প্রবৃদ্ধির কারণ কী - তা খুঁজতে গিয়ে যা পাওয়া গেল, তা হচ্ছে বিনিয়োগ৷ সরকারি ও বেসরকারি উভয় খাতেই এই সময়ে বিনিয়োগ বেড়েছে৷ ফলে সরকারি এবং বেসরকারি উভয় ব্যয়ই বেড়েছে৷ আর বেড়েছে রপ্তানি৷ এসবই গতিশীল করেছে অর্থনীতির চাকাকে৷

তবে অর্থনীতির এই চাঙা ভাবের মধ্যে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিলেন কয়েকজন অর্থনীতিবিদ৷ তাঁদেরই একজন কার্স্টেন ব্রাসেস্কি বললেন, ‘‘এখনই খুশি হওয়ার কিছু নেই৷ বছরের পরবর্তী সময়ে এই ধারা অব্যাহত নাও থাকতে পারে৷'' আর জিডিপি প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধির খুঁটিনাটি জানতে অপেক্ষা করতে হবে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত৷ কারণ পরিসংখ্যান দপ্তর জানিয়েছে, সেদিনই এ নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করবে তারা৷

প্রতিবেদন: মনিরুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন