প্রথম আলো সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা | বিশ্ব | DW | 06.11.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

প্রথম আলো সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা

বাংলাদেশের দৈনিক প্রথম আলোর সম্পাদকের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে নিহত নাইমুল আবরার রাহাতের বাবা৷ বুধবার ঢাকার আদালতে অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগে এই মামলা করেছেন তিনি৷

প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান (ফাইল ছবি)

প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান (ফাইল ছবি)

গত শুক্রবার রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজে প্রথম আলোর কিশোর সাময়িকী কিশোর আলোর এক আয়োজনে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন নবম শ্রেণির ছাত্র আবরার রাহাত৷ তাকে মহাখালীর ইউনিভার্সাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর মৃত্যু ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা৷ সেদিন থানায় অপমৃত্যুর মামলার পর ময়নাতদন্ত ছাড়াই রাহাতের বাবা মো. মুজিবুর রহমান ছেলের লাশ নিয়ে যান৷ নোয়াখালীতে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে তাকে দাফন করা হয়৷

গত শুক্রবার থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছিলেন মুজিবুর৷ চার দিন পর বুধবার ঢাকার আদালতে গিয়ে অবহেলায় মৃত্যুর অভিযোগ এনে আলাদা মামলা করেছেন বলে জানিয়েছে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷ প্রতিবেদনে বলা হয়, ‘‘৩০৪ (ক) ধারা বা অবহেলার কারণে মৃত্যু সংঘটনের অভিযোগ এনে মামলা করলেন রাহাতের বাবা; যে ধারায় অপরাধের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড৷ মামলায় প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমানের নাম উল্লেখ করে, সেই সঙ্গে নাম উল্লেখ না করে কিশোর আলোর প্রকাশক ও ওই অনুষ্ঠানের সঙ্গে জড়িত অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনেন তিনি৷’’

অভিযোগে বলা হয়, বিদ্যুতের সঠিক ব্যবস্থাপনা না করে অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে৷ নেয়া হয়নি নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থাও৷ ঘটনার পর রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ ক্যাম্পাসের উল্টো পাশের সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে রাহাতকে না নিয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মহাখালীর ইউনিভার্সেল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়৷

বিডিনিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ‘‘ঢাকার চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর হাকিম মো. আমিনুল হক বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে রাহাতের লাশ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন৷ সেই সঙ্গে রাহাতের মৃত্যুর পর যে অপমৃত্যু মামলাটি হয়েছে, তার সঙ্গে নতুন নালিশি মামলাটি এক সঙ্গে তদন্ত করে আগামী ১ ডিসেম্বরের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে মোহাম্মদপুর থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷’’

এদিকে এই ঘটনার তদন্তে রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ কর্তৃপক্ষ একটি কমিটি করেছে৷ কিশোর আলো সম্পাদক আনিসুল হকসহ বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ৷

এফএস/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন