প্রথমবার শনাক্ত চার হাজার ছাড়াল | বিশ্ব | DW | 17.06.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

প্রথমবার শনাক্ত চার হাজার ছাড়াল

দৈনিক মৃত্যু অর্ধশত ছাড়ানোর পরদিনই প্রথমবারের মত একদিনে কোভিড-১৯ আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্তের সংখ্যা চার হাজার ছাড়াল৷

গত ২৪ ঘণ্টায় আরো চার হাজার আট জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্তের মাধ্যমে দেশে এখন মোট আক্রান্ত ৯৮ হাজার ৪৮৯ জন৷ এদিন আরো ৪৩ জন মারা গেছেন; মোট মৃত্যু এক হাজার ৩০৫ জন৷

কোভিড-১৯ পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বুলেটিনে বুধবার এ তথ্য জানানো হয়৷

সারাদেশে থেকে এদিন ১৮ হাজার ৯২২টি নমুনা সংগ্রহ করা হয়৷ তারমধ্যে ৫৯টি পরীক্ষাগারে ১৭ হাজার ৫২৭টি নমুনা পরীক্ষা হয়৷ দেশে নমুনা পরীক্ষার আওতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোগী শনাক্তের সংখ্যাও বাড়ছে৷ নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২২ দশমিক ৮৭ শতাংশ৷ মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩৩ শতাংশ৷

এদিন আরো এক হাজার ৯২৫ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন৷ মোট সুস্থ ৩৮  হাজার ১৮৯৷ শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৩৮ দশমিক ৭৭ শতাংশ৷

অন্যান্য দিনের মত এদিনও মৃত্যুতে পুরুষের সংখ্যা বেশি, ২৮ জন৷ তবে তুলনামূলকভাবে এদিন মারা যাওয়া নারী সংখ্যাও বেশি, ১৫ জন৷

গত ৮ মার্চ প্রথম রোগী শনাক্তের পর ১০১তম দিনে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ও মৃত্যু যে গতিতে বাড়ছে তা সত্যিই উদ্বেগজনক৷ দেশে আর একদিন পরেই হয়তো সংক্রমণ এক লাখ ছাড়িয়ে যাবে৷

সংসদ সচিবালয়ে সংক্রমণ বাড়ছে:

সংসদ ও সচিবালয়ে মঙ্গলবার পর্যন্ত মোট ৯১ কর্মকর্তা-কর্মচারীর শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে বলে জানায় বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷

বাজেট অধিবেশন উপলক্ষ্যে সংসদে দায়িত্বরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নমুনা পরীক্ষা গত ২ জুন থেকে শুরু হয়েছিল। ৮ জুন ওই পরীক্ষা শেষ হওয়ার কথা ছিল। তবে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় পরীক্ষা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷

চিকিৎসকদের মৃত্যুর তালিকা লম্বা হচ্ছে:

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা ও দিনাজপুরে আরও দুই চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার সকাল ৮টায় কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের অবসরপ্রাপ্ত সহযোগী অধ্যাপক ডা. মো. আশরাফুজ্জামান।

একই দিন সোয়া ৮টার দিকে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা যান ওই হাসপাতালের সাবেক পরিচালক ডা. মো. শাহ আব্দুল আহাদ।

তারা দুজনই কোভিড-১৯ সংক্রমিত ছিলেন বলে বুধবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন-বিএমএ। সংস্থাটির তথ্যানুযায়ী দেশে এখন পর্যন্ত চিকিৎসক, নার্সসহ ৩ হাজার ২৩৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হয়েছেন।

এসএনএল/কেএম (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন