‘প্রত্যর্পণ রুখতে জার্মান সরকারকে সক্রিয় হতে হবে′ | বিশ্ব | DW | 29.03.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

কাটালুনিয়া

‘প্রত্যর্পণ রুখতে জার্মান সরকারকে সক্রিয় হতে হবে'

স্পেনের কাটালুনিয়া রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে স্পেনে প্রত্যর্পণের চরম বিরোধিতা করছেন তাঁর জার্মান আইনজীবী৷ জার্মান সরকারের রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের দাবি করেছেন তিনি৷

জার্মানিতে আটক কাটালুনিয়ার বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা কার্লেস পুজদেমন স্পেনে ফিরতে নারাজ৷ নিজের সম্ভাব্য প্রত্যর্পণ প্রতিরোধ করতে তিনি সরাসরি জার্মান সরকারের দ্বারস্থ হয়েছেন৷ তাঁর জার্মান আইনজীবী ভল্ফগাং শোমবুর্গ মনে করেন, আদালতের রায় যা-ই হোক না কেন, জার্মান সরকার রাজনৈতিকভাবে এই প্রত্যর্পণের অনুমতি দেবে না, এই মর্মে অবিলম্বে এক বিবৃতি প্রকাশ করা উচিত৷

‘স্যুডডয়চে সাইটুং' সংবাদপত্রকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, স্পেনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা অত্যন্ত অস্পষ্ট৷ এমনকি সেটি আদৌ ইউরোপীয় পরোয়ানা কিনা, তা নিয়েও সন্দেহ রয়েছে৷ হিংসা ও দুর্নীতির অভিযোগের পক্ষে কোনো তথ্যপ্রমাণও পেশ করা হয়নি৷ এই অবস্থায় স্থানীয় আদালত প্রত্যর্পণের পক্ষে রায় দিলে উচ্চতর আদালতে সেই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করা হবে৷প্রত্যর্পণ সংক্রান্ত রায়ের ক্ষেত্রে বিলম্বেরও সমালোচনা করেন শোমবুর্গ৷

আইনজীবী হিসেবে ভল্ফগাং শোমবুর্গের মন্তব্যের বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে৷ কারণ, তিনি এর আগে জার্মানির সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতি হিসেবে কাজ করেছেন৷ জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ তাঁকে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালতের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ করে৷ তিনিই প্রথম জার্মান নাগরিক, যিনি এই সম্মান পেয়েছিলেন৷ প্রাক্তন ইয়ুগোস্লাভিয়া ও রুয়ান্ডার যুদ্ধাপরাধ মামলায় তিনি বিচারপতি ছিলেন৷

এদিকে বুধবার কাটালুনিয়ার রাজ্য বিধানসভা এক অধিবেশনে আগামী সরকারের মুখ্যমন্ত্রী প্রার্থী হিসেবে পুজদেমনের অধিকারের প্রতি সমর্থন জানিয়েছে৷ উল্লেখ্য, গত নির্বাচনে বিচ্ছিন্নতাবাদী দলগুলির জোটের জয় সত্ত্বেও এখনো সরকার গঠন করা সম্ভব হয়নি৷ তবে স্পেনের সুপ্রিম কোর্ট স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে, পুজদেমন বা অন্য যে কোনো প্রার্থীকেই আদালতের অনুমতি নিয়ে সশরীরে রাজ্য বিধানসভায় উপস্থিত থাকতে হবে

এদিকে রবিবার জার্মানিতে আটক হবার সময় পুজদেমনের গাড়িতে কাটালুনিয়ার যে দুই পুলিশ অফিসার সঙ্গে ছিলেন, স্পেনে ফেরার পরেই তাঁদের গ্রেফতার করা হয়েছে৷ গাড়িতে এক ইতিহাসের অধ্যাপকও ছিলেন৷ স্পেনের পুলিশ তাঁকেও আটক করে জেরা করছে৷

 

এসবি/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়