প্রত্যন্ত গ্রামের কৃষকদের তথ্য দেয়ার সহজ উপায় | অন্বেষণ | DW | 06.04.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

প্রত্যন্ত গ্রামের কৃষকদের তথ্য দেয়ার সহজ উপায়

বুরকিনা ফাসোতে এমন প্রত্যন্ত এলাকা আছে যেখানে সাধারণ রেডিও অনুষ্ঠান শোনা যায় না৷ জার্মানির সংস্থা জিআইজেডের অর্থায়নে চারটি এলাকায় একটি পাইলট প্রকল্প চলছে, যার মাধ্যমে কৃষকরা কৃষি সংক্রান্ত এফএম অনুষ্ঠান শুনতে পারেন৷

চার এলাকা একটি বামা গ্রাম৷ সেখানকার কৃষকরা তাদের ফোনে রেডিও অনুষ্ঠান শুনতে পারেন, যেখানে চারটি ভাষায় কৃষি সংক্রান্ত তথ্য পরিবেশন করা হয়৷ ‘ট্রান্সমিশন এয়া এ ট্যার' নামের ঐ অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের কৃষিকাজ সংশ্লিষ্ট বাস্তব পরামর্শ দেয়া হয়৷

কৃষক আদিদজাতা কুলিবালি বলছেন, ‘‘রেডিও অনুষ্ঠানের কারণে সার কীভাবে ভালোভাবে প্রয়োগ করা যায় তা জানতে পেরেছি৷’’ আরেক কৃষক জাকারিয়া ঐদ্রাগো বলেন, ‘‘আমরা ‘পকেট এফএম' সম্পর্কে শুনেছি এবং কীভাবে কাজ করে জেনেছি৷ খুব ভালো উদ্যোগ৷ সবচেয়ে ভালো বিষয় হচ্ছে, মাত্র কয়েক ক্লিকের মাধ্যমে পুরনো অনুষ্ঠান শোনা যায়৷ এটা দারুণ একটা ফিচার৷’’

এর পেছনের প্রযুক্তিটা সাধারণ৷ পোর্টেবল রেডিও ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে কৃষকরা বিনামূল্যে অনুষ্ঠান শুনতে পারেন৷ এর জন্য ডাটা কিংবা সিম কার্ড প্রয়োজন হয় না৷ যেটা জরুরি, সেটা হচ্ছে ছয় কিলোমিটারের মধ্যে থাকা৷

প্রকল্পের অন্যতম পার্টনার রেডিও স্টেশন বামা পিলের অনুষ্ঠান ধানখেতের মধ্যে শোনা যায়৷ কিছু অনুষ্ঠান পরে অন-ডিমান্ডেও শোনা যায়৷ ফলে যারা সরাসরি শুনতে পারেন না কিংবা যাদের রেডিও নেই তারাও অনুষ্ঠান শুনতে পারেন৷ কৃষকেরা ছাড়াও কৃষি বিশেষজ্ঞরা অনুষ্ঠানে অংশ নেন৷

রেডিও বামা পিলের মডারেটর কাইক কোনে বলেন, ‘‘গাছ লাগানোর আগে মাটি কীভাবে তৈরি করতে হবে সে বিষয়ে আমরা কথা বলি৷ এছাড়া খেত ও পানিপথের মধ্যে কতখানি দূরত্ব রাখতে হবে সে নিয়েও কথা হয়৷ কীটনাশকের ব্যবহার, মাটিতে এর প্রভাব এবং গাছের উপর তার নেতিবাচক প্রভাব নিয়েও আলোচনা করি আমরা৷’’

আফ্রিকার গ্রামে কৃষকদের বন্ধু এফএম

কৃষকরা কী বিষয়ে জানতে আগ্রহী, তা বুঝতে অনুষ্ঠানের প্রোডিউসাররা নিয়মিত কৃষক প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনায় বসেন৷ যেমন এই কৃষকেরা বীজ বা বেশি ফলন দেয় এমন সার সম্পর্কে জানতে আগ্রহী৷ মাটি কীভাবে রক্ষা করা যায় তাও তারা জানতে চান৷

প্রকল্পের প্রধান উসেনি বানসি বলেন, ‘‘যারা নতুন ও গুরুত্বপূর্ণ উদ্ভাবন সম্পর্কে জানতে পেরেছেন তারা আমাদের সেগুলো জানান৷ তারা বিভিন্ন খাতের বিশেষজ্ঞদের সঙ্গেও যোগাযোগ রাখেন৷ প্রায়ই তারা আমাদের এমন মানুষদের নিয়ে অনুষ্ঠান করতে বলেন, যারা নির্দিষ্ট বিষয়ে বিশেষজ্ঞ৷ অর্থাৎ আমাদের অনুষ্ঠানের উপকরণের উপর বামার কৃষকদের ভালো প্রভাব আছে৷’’

প্রকল্পের যন্ত্রপাতি জার্মানির এক পার্টনারের কাছ থেকে এসেছে৷ জার্মানির উন্নয়ন সংস্থা জিআইজেড এতে অর্থায়ন করেছে৷ দরিদ্র মানুষ বাস করে এবং যেখানে রেডিও শোনা যায় না, এমন জায়গায় এই প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়৷ মিডিয়া ইন কোঅপারেশন অ্যাণ্ড ট্রানজিশন কর্মকর্তা জেরেমি উইলিয়াম বাতিওনো বলেন, ‘‘আমরা বন্দোকুই, বামা, ডিবুগু ও ক্যাসকেড অঞ্চলে পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছি৷ এটা এত সফল হয়েছে যে, আগামী কয়েক সপ্তাহ ও মাসের মধ্যে আমরা পুরো বুর্কিনা ফাসোতে এটা চালু করতে চাই৷’’

ভবিষ্যতে ভিডিও ক্লিপও বানানো হবে - যেটা ইন্টারনেট ছাড়াই দেখা যাবে৷ সবজির রোগ ও কীভাবে এ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়, সে বিষয়ে একটি অনুষ্ঠানের শ্যুটিং এখন চলছে৷ তবে যতই মাল্টি-মিডিয়ার ব্যবহার হোক না কেন, পকেট এফএম সবসময় কৃষকদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট, এমন বিষয় নিয়ে কথা বলে যাবে৷

কুলিবালি, গেবহার্ট/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন