প্রতিবাদ করায় গৃহহীন | বিশ্ব | DW | 06.01.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

প্রতিবাদ করায় গৃহহীন

প্রতিবাদ জানাতে গিয়ে গৃহহীন হতে হল সূর্যাকে৷ পেশায় আইনজীবী ও কেরলের মেয়ে সূর্যার প্রতিবাদ ছিল সিএএ ও এনআরসি নিয়ে৷ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বিরুদ্ধে৷

সিএএ নিয়ে লোককে বোঝাতে বাড়ি বাড়ি প্রচারাভিযানের সূচনা করতে লাজপত নগরে এসেছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ৷ রবিবার প্রথম বাড়িতে প্রচার সেরে দ্বিতীয় বাড়ির দিকে সবেমাত্র পা বাড়িয়েছেন, তখনই শুরু হয় সূর্যার প্রতিবাদ৷ চারতলায় ভাড়া করা ফ্ল্যাটের বারান্দা থেকে বিশাল একটা পোস্টার ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন তিনি৷ তাতে লেখা 'শেম'৷ সিএএ ও এনআরসির পাশে ছিল কাটা চিহ্ন৷ আর লেখা ছিল 'আজাদি'৷ অমিত শাহকে দেখে প্রবলভাবে স্লোগান দিতে শুরু করেন সূর্যা৷ 'সংবিধান বাঁচাও', 'শেম', 'নো সিএএ-এনারসি'৷

 

ঘটনাস্থলে উপস্থিত মালয়লা মনোরমা টিভির সাংবাদিক সানাকন। তিনি ডয়চে ভেলেকে জানিয়েছেন, সূর্যার স্লোগান শুরু হতেই নিচ থেকে বিজেপি কর্মীরাও স্লোগান দিতে থাকেন৷ তাঁরা বলেন, ভারত গণতান্ত্রিক দেশ বলেই এভাবে প্রতিবাদ দেখানো সম্ভব হচ্ছে৷ বিজেপি কর্মীরা বলেন 'বন্দে মাতরম'৷ সূর্যাও বলেন, 'বন্দে মাতরম'৷ অমিত শাহ অবশ্য তাঁর কর্মসূচি চালিয়ে যান৷ সানাকন জানিয়েছেন সূর্যার বাড়ি কোল্লামে৷ দিল্লিতে তিনি আদালতে প্র্যাকটিস করেন৷ তবে ঘটনার পরেই বাড়িওয়ালার তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, সূর্যাকে বাড়ি খালি করতে হবে৷

সূর্যার আইনজীবী বন্ধুরা জানিয়েছেন, রাতেই তিনি পুলিশের কাছে নালিশ জানিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছেন৷ কারণ, ওই ঘটনার পর বাড়িওয়ালা ও প্রতিবেশীরা কিছুতেই তাঁকে থাকতে দিতে রাজি হননি৷

বিজেপি বলছে, প্রতিবাদ করতে হলে যন্তর মন্তরে গিয়ে করতে পারতেন সূর্যা। অন্য যেখানে প্রতিবাদ হচ্ছে, সেখানে যোগ দিতে পারতেন৷ দলের মুখপাত্র সুদেশ বর্মা ডয়চে ভেলেকে বলেন, ''একটা রাজনৈতিক দল যখন প্রচার করছে, তখন তিনি কেন ওই ধরনের আচরণ করলেন? এটা কি তিনি উস্কানি দিতে গিয়ে করেছেন? তিনি একা ছিলেন না কি, পিছনে অন্যরাও আছেন, তা তদন্ত করার পরেই বোঝা যাবে৷'' 

ঘটনা হল, সিএএ এবং এনআরসি নিয়ে লোকের মনে ভুল ধারণা ভাঙতে বিজেপি এখন দিল্লিতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ দিল্লিতে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে ক্ষমতাচ্যূত করতে তাঁদের অস্ত্র দুইটি, নরেন্দ্র মোদীর ভাবমূর্তি ও সিএএ-এনআরসিকে হাতিয়ার করে হিন্দু ভোটের মেরুকরণ করা৷ সেই প্রচারে নেমে এই প্রতিবাদের মুখে পড়তে হল অমিত শাহকে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন