পোষা প্রাণীকে সঙ্গে নিয়ে কবরে | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 27.10.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

পোষা প্রাণীকে সঙ্গে নিয়ে কবরে

পশু প্রেমীরা চাইলে মৃত্যুর পর তাদের পোষা প্রাণীকেও একই কবরে পাবেন৷ এমন একটি আইন পাস করেছে জার্মানির একটি রাজ্যের আদালত৷ এজন্য শহরের গোরস্থানে একটি আলাদা জায়গা রাখার পরিকল্পনা করা হচ্ছে৷

জার্মানির হামবুর্গ শহর কর্তৃপক্ষ নতুন একটি আইনে এ সুযোগ রেখেছে৷ খুব শিগগিরই এর বাস্তবায়নের কথা রয়েছে৷

আইন অনুযায়ী, পোষা প্রাণীর আগে মৃত্যু হলে তার দেহভস্ম একটি কফিনে রেখে কবর দেয়া হবে, যেখানে মারা যাওয়ার পর প্রাণীটির মালিকও শায়িত হবেন৷ আর মালিকের মৃত্যু আগে হলে প্রাণীটি মারা যাওয়ার পরে তাকেও একই জায়গায় কবর দেয়ার ব্যবস্থা করা হবে৷ এক্ষেত্রে দায়িত্ব নিতে হবে ঐ ব্যক্তির পরিবারকে৷

গ্রিন পার্টির মুখপাত্র উলরিকে স্পার বলেন, ‘‘পোষা প্রাণীর সাথে অনেকেরই নিবিড় ও আবেগের সম্পর্ক৷ প্রাণীরা তাদের পরিবারেরই একজনের মতো৷ তাই এই অনুমতি যৌক্তিক৷''

স্পার মনে করেন যারা বিষয়টিকে সমর্থন করেন না তাদের সম্মানে হামবুর্গের গোরস্থানে আলাদা একটি জায়গা রাখা উচিৎ৷ এ বিষয়ে এরইমধ্যে উদ্যোগ নিয়েছে হামবুর্গের কবরস্থান কর্তৃপক্ষও৷ তাদের একজন মুখপাত্র জার্মানির সংবাদ সংস্থা কেএনএকে জানিয়েছেন, শহরের উত্তরের একটি কবরস্থানের একপাশে এক হেক্টরের মত জায়গা বরাদ্দ করার পরিকল্পনা করেছেন তারা৷ যেখানে পোষা প্রাণী আর তাদের মালিককে কবর দেয়া হবে৷ তবে এক্ষেত্রে শুধু কুকুর, বেড়ালের মতো ছোট প্রাণীদেরই কবর দেয়ার সুযোগ হবে৷ ঘোড়া বা অন্য কোন বৃহৎ পোষা প্রাণীকে সাথে পাবেন না মৃত ব্যক্তিরা৷

জার্মানিতে বর্তমানে পোষা প্রাণীর জন্য দেড়শ'টির মতো কবরস্থান আছে৷ প্রাণী আর মানুষকে একসাথে কবর দেয়ার বিষয়ে আপত্তিও আছে অনেকের৷ নতুন উদ্যোগটি বাস্তবায়নে এক বছর সময় লাগবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ৷

এফএস (ডিপিএ, কেএনএ, ইপিডি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন