পোল্ট্রি খামারগুলো থেকে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ | বিশ্ব | DW | 03.01.2013
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

পোল্ট্রি খামারগুলো থেকে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ

বাংলাদেশের পোল্ট্রি মালিক সমিতির সভাপতি মশিউর রহমান নিজেই তাঁর গাজীপুরের পোল্ট্রি খামারে মুরগির বর্জ্য দিয়ে প্রতি দিন ৫০০ কিলোওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছেন৷ এতে তাঁর মাসে চার লাখ টাকা সাশ্রয় হচ্ছে৷

মশিউর রহমান মূলত তাঁর পোল্ট্রি খামারকে রক্ষা করতে গিয়েই হাঁস-মুরগির বর্জ্য দিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের চিন্তা করেন৷ কারণ, পোল্ট্রি খামারের জন্য ২৪ ঘণ্টা নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ প্রয়োজন৷ তাঁর সেই চিন্তা সফলতার মুখ দেখেছে৷ তিনি গাজীপুরে তাঁর নিজের পোল্ট্রি খামারে হাঁস-মুরগির বর্জ্যকে প্রথমে বায়োগ্যাস এবং তারপর তা থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন করছেন৷ তাঁর খামারে এখন আর বাইরের বিদ্যুতের প্রয়োজন হয় না৷

মশিউর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, এই বিদ্যুৎ উৎপাদনে পরিবেশের কোনো ক্ষতি হয় না৷ বরং এটি পুরোপুরি পরিবেশ বান্ধব৷

তাঁর মতে বাংলাদেশে এখন যতগুলো পোল্ট্রি খামার রয়েছে, তা থেকে ২০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন সম্ভব৷ আর তা করা হলে, পোল্ট্রি খমারগুলোকে বাইরে থেকে আর বিদ্যুৎ নিতে হবেনা৷ সরকার চাইলে এই বিদ্যুৎ বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করে জাতীয় গ্রিডে দিতে পারে৷

মশিউর রহমান জানান, সরকারের উচিত পোল্ট্রি খামারগুলোকে এই বিদ্যুৎ উৎপাদনে উৎসাহিত করা৷ এছাড়া, বায়োগ্যাস জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহার করা সম্ভব৷ আর বিদ্যুৎ উৎপাদনের পরও বর্জ্য হিসেবে পাওয়া যায় জৈব সার৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়