পেশোয়ারে মাদ্রাসায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ | বিশ্ব | DW | 27.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান

পেশোয়ারে মাদ্রাসায় ভয়াবহ বিস্ফোরণ

পেশোয়ারে একটি মাদ্রাসায় বিস্ফোরণ ঘটেছে। নিহত বেশ কিছু ছাত্র। আহত অসংখ্য।

ভয়াবহ বিস্ফোরণ পেশোয়ারের একটি মাদ্রাসায়। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় অন্তত সাতজন ছাত্র নিহত হয়েছে। আহত বহু। তাঁদের স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিস্ফোরণের সময় মাদ্রাসায় ৬০ জন ছাত্র কোরানের ক্লাস করছিল।

সংবাদ সংস্থাকে পেশোয়ারের পুলিশ জানিয়েছে, এ দিন সকালে মাদ্রাসাটি ক্লাস শুরু হয়। কোরানের ক্লাস হওয়ার সময় এক ব্যক্তি ওই ক্লাস ঘরে ঢোকে। তার হাতে একটি ব্যাগ ছিল। বিস্ফোরণেরকিছুক্ষণের আগে ব্যাগটি রেখে সে ক্লাস থেকে বেরিয়ে যায়। কিছুক্ষণের মধ্যেই বিস্ফোরণ হয়। বিস্ফোরণের তীব্রতায় ক্লাসের ছাদ উড়ে গিয়েছে। মাদ্রাসাটি একাংশ ভেঙে গিয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধারকর্মীরা চারজন ছাত্রের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। পরে আরও তিনজনের মৃত্যু হয়। অন্তত ৩৪ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

এখনো পর্যন্ত কোনো জঙ্গি গোষ্ঠী এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেনি। এলাকায় তুমুল উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। বস্তুত, বহু দিন পরে পেশোয়ারে এত বড় বিস্ফোরণ ঘটল। মৃত্যু হলো স্কুলের ছাত্রদের।

এক সময় পেশোয়ারে নিয়মিত নাশকতামূলক ঘটনা ঘটতো। তালেবানের শক্ত ঘাঁটি ছিল পাকিস্তানের এই অঞ্চল। ইসলামাবাদ থেকে ১৭০ কিলোমিটার দূরের এই শহর নিয়ে দীর্ঘদিন চিন্তিত ছিল পাক প্রশাসন। ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পেশোয়ারের একটি স্কুলে বিস্ফোরণ ঘটায় তালেবান। প্রায় ১৫০ ছাত্র নিহত হয়। তারপরেই পাক সেনা দেশ জুড়ে অপারেশন চালায়। আফগান সীমান্তে বেশ কিছু জঙ্গি শিবির ধ্বংস করা হয়। তারপর থেকে নিত্যনৈমিত্তিক উত্তেজনা খানিকটা প্রশমিত হয়। তবে এ দিনের বিস্ফোরণ ফের নতুন বিপদের আশঙ্কা তৈরি করল।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স)

বিজ্ঞাপন