‌পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৃণমূলের, আংশিক সংযুক্ত মোর্চার | বিশ্ব | DW | 05.03.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গ

‌পূর্ণাঙ্গ তালিকা তৃণমূলের, আংশিক সংযুক্ত মোর্চার

পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের পূর্ণাঙ্গ প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ আংশিক তালিকা প্রকাশ করেছে বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ সংযুক্ত মোর্চা৷

মমতা ব্যানার্জি

ফাইল ছবি

শুক্রবার পূর্ব ঘোষণা মতোই তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জি তার কালীঘাটের বাড়ির দপ্তর থেকে দলের পূর্ণাঙ্গ প্রার্থীতালিকা ঘোষণা করলেন৷ পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার ২৯৪ আসনের মধ্যে ২৯১টিতেই প্রার্থী দিচ্ছে তৃণমূল৷ দার্জিলিং, কালিম্পং এবং কার্শিয়াং, পাহাড়ের এই তিনটি আসন কেবল ‘‌বন্ধু’দের ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত জানালেন মমতা৷ বাকি ২৯১ জনের মধ্যে নারী প্রার্থীর সংখ্যা ৫১ জন, মুসলিম সম্প্রদায় থেকে ৩৫ জন, তফসিলি জাতি থেকে ৭৯ জন, যাদের মধ্যে ১১ জন এমন আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন, যেগুলি তফসিলি জাতির জন্য সংরক্ষিত আসন নয়৷ এ ছাড়া তফশিলি উপজাতি থেকে প্রার্থী হবেন ১৭ জন, অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণি থেকে ১৯ জন৷ পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির হিন্দু–অহিন্দু বিভাজন কৌশলের মোকাবিলা করতে এবার তৃণমূল নেত্রী সংখ্যালঘু, দলিত, তফসিলি জাতি, উপজাতি ও সামাজিক অর্থনৈতিকভাবে অনুন্নত শ্রেণির ভোট টানতে অনেক বেশি সচেষ্ট হয়েছেন৷ এই প্রার্থীতালিকা তার সেই পাল্টা রণনীতিরই প্রতিফলন ঘটালো৷

গত বিধানসভা ভোটের বেশ কয়েকজন বিজয়ী প্রার্থী এবার বাদ পড়লেন৷ তার মধ্যে দুজন মন্ত্রীও আছেন৷ অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র এবং শ্রমমন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু৷ বয়স এবং অসুস্থতার কারণে এরা দুজন যে এবার প্রার্থী না-ও হতে পারেন, সে আভাস আগেই ছিল৷ এবার কোভিড সংক্রমণ পরিস্থিতি মাথায় রেখে ৮০ বছরের উপরে বয়স, এমন কাউকেই টিকিট দিলো না তৃণমূল৷ আরেক প্রাক্তন আমলা মনীশ গুপ্তও সম্ভাবনা থাকা সত্বেও টিকিট পেলেন না৷ যদিও মমতা জানিয়েছেন, জিতে ফিরলে বিধান পরিষদ গঠন করে এদের সবাইকে তিনি জায়গা দেবেন৷ শরীর ভালো না থাকায় একদা মমতার ছায়াসঙ্গী সোনালী গুহ এবার ভোটে দাঁড়াচ্ছেন না বলে মমতা নিজেই জানালেন৷ যদিও রাজনৈতিক মহলের খবর, মমতা এবং দলের সঙ্গে সোনালীর দূরত্ব তৈরি হয়েছে অনেকদিনই৷ স্মিতা বক্সিও এবার প্রার্থী হলেন না, সেটা রাজনৈতিক কারণে, জানিয়েছেন মমতা৷ টিকিট পেলেন না জীবন মুখার্জি, সমীর চক্রবর্তী, অভিনেত্রী দেবশ্রী রায়৷

বাংলা সিনেমা-সিরিয়ালের একঝাঁক তারকা এবার যথারীতি তৃণমূলের টিকিটে ভোটে দাঁড়াচ্ছেন, যারা প্রায় প্রত্যেকেই সদ্য দলে যোগ দিয়েছেন৷ এদের মধ্যে আছেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী (‌ব্যারাকপুর)‌, অভিনেতা সায়নী ঘোষ (‌আসানসোল দক্ষিণ)‌, সায়ন্তিকা ব্যানার্জি (‌বাঁকুড়া)‌, সোহম চক্রবর্তী (‌চণ্ডীপুর)‌, কাঞ্চন মল্লিক (‌উত্তরপাড়া)‌, কীর্তন শিল্পী অদিতি মুন্সি (‌রাজারহাট)‌, সাঁওতালি অভিনেত্রী বীরবাহা হাঁসদা (‌ঝাড়গ্রাম)‌এবং ক্রিকেটার মনোজ তিওয়ারি (‌হাওড়া শিবপুর)‌৷

পূর্ব মেদিনীপুরের নেতা, প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ এবং রাজ্যের পদত্যাগী মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর মমতা ব্যানার্জি নন্দীগ্রামে গিয়ে বলেছিলেন, ‘‘ভাবছি এখান থেকে ভোটে দাঁড়ালে কেমন হয়!‌’’ আজ কালীঘাটের বাড়িতে বসেও জানালেন, নন্দীগ্রাম থেকেই লড়বেন তিনি৷ এবং শুধু নন্দীগ্রাম থেকেই৷ তার জায়গায় ভবানীপুরে প্রার্থী হবেন শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এবং শোভনদেবের কেন্দ্র রাসবিহারীতে প্রার্থী হবেন স্থানীয় পুরপিতা দেবাশিস কুমার৷ আর আগাম জল্পনা ছিল যে, কেন্দ্রটি নিয়ে, কলকাতার প্রাক্তন মেয়র এবং একদা মমতার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ, বর্তমানে বিজেপিতে যোগ দেওয়া শোভন চ্যাটার্জির পূর্ব বেহালা কেন্দ্রে মমতা প্রার্থী করছেন শোভনের ছেড়ে আসা স্ত্রী রত্না চ্যাটার্জিকে৷

আজ সিপিএম-এর আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের দপ্তর থেকে বামফ্রন্ট-কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের সংযুক্ত মোর্চার ৬০ জনের একটি আংশিক প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান বিমান বসু৷ জানান, এরপর মোর্চার শরিক দলগুলি সম্ভবত নিজেরাই তাদের প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবে৷ তবে বিস্ময়করভাবে, এদিন ঘোষণা থাকা সত্বেও বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে তাদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করলো না৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়