পুলিশের ওপর হামলার দায়ে কিশোরীর কারাদণ্ড | বিশ্ব | DW | 26.01.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

পুলিশের ওপর হামলার দায়ে কিশোরীর কারাদণ্ড

তথাকথিত জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর হয়ে পুলিশের ওপর হামলা চালানোয় এক কিশোরীর ৬ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে জার্মান আদালত৷ মামলার রায়ে বলা হয়, মেয়েটি আইএস-এর হয়ে পুলিশ হত্যা করে ‘শহিদ' হতে চেয়েছিল৷

২০১৬ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি হানোফারের প্রধান রেল স্টেশনে এক পুলিশ কর্মকর্তার ঘাড়ে শবজি কাটার ছুরি দিয়ে কোপ দেয় সাফিয়া এস. নামের এক কিশোরী৷ তখন সাবিহার বয়স ছিল ১৫ বছর৷ পেছন থেকে আকস্মিকভাবে চালানো হামলায় ৩৪ বছর বয়সি ঐ পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যুর আশঙ্কাও দেখা দিয়েছিল৷ তবে এখন তিনি সুস্থ৷

পুলিশের ওপর হামলার দায়ে গ্রেপ্তার হওয়ার পর সাবিহা চিঠি লিখে কৃতকর্মের জন্য আহত পুলিশ কর্মকর্তার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন৷ তারপরও বুধবার সেলে-র স্থানীয় আদালত তাকে ছয় বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে৷

আদালত জানিয়েছে, সাফিয়া যে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর হয়ে ঐ হামলা চালিয়েছিল, তার টেলিফোন কথোপকথন থেকেই সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া গেছে৷ হামলার আগের সেই কথোপথনে সাফিয়া পুলিশ হত্যা করে শহিদ হতে চেয়েছিল বলেও জানানো হয়৷

সাফিয়ার আইনজীবীরা মনে করেন, বয়স এবং অপরাধ অনুপাতে আদালতের দেয়া শাস্তি অনেক কঠিন হয়েছে৷ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন বলেও জানিয়েছেন তাঁরা৷ সাফিয়ার পক্ষের আইনজীবীরা বলছেন, তাঁদের মক্কেলের সঙ্গে আইএস-এর কোনো সম্পর্ক ছিল না৷ তাঁদের যুক্তি, আইএস-এর হয়ে যারা হামলা করে তারা কখনো ক্ষমা চায় না, কিন্তু সাফিয়া ক্ষমা চেয়েছে৷

অন্যদিকে পুলিশ বলছে, সাফিয়া আগে থেকেই আইএস-এর সঙ্গে যোগাযোগ রেখে আসছিল৷ ২০১৫ সালে আইএস-এ যোগ দেয়ার জন্য সিরিয়া রওনা হয়েছিল সে৷ কিন্তু ইস্তানবুলে পৌঁছানোর পরই তার মা গিয়ে তাকে ধরে নিয়ে আসেন৷

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স, ইপিডি, ডিপিএ, কেনএ)

বিষয়টি নিয়ে আপনার কিছু বলার থাকলে লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন