পুরুষের কুরুচিপূর্ণ দিকগুলো নিয়ে উদ্বিগ্ন পাঠক | পাঠক ভাবনা | DW | 13.10.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাঠকভাবনা

পুরুষের কুরুচিপূর্ণ দিকগুলো নিয়ে উদ্বিগ্ন পাঠক

‘ধর্ষণের জন্য পোশাক দায়ী' অনন্ত জলিলের এই মন্তব্যে প্রতিবাদ জানিয়েছেন অনেক পাঠক৷ নারীদের বিষয়ে কিছু পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন প্রয়োজন বলে মনে করেন কেউ কেউ৷

‘‘আমি মনে করি ধর্ষণের জন্য শুধুমাত্র পোশাক যেমন দায়ী নয়, তেমনি আপত্তিকর পোশাকের দায় কোনোভাবে এড়িয়ে যেতে পারেনা৷ এর জন্য প্রথমত সমাজব্যবস্থা দায়ী৷ এর সমাধান তখনই সম্ভব হবে, যখন বেকারত্ব, মাদক দ্রব্যের ব্যবহার ও অশ্লীলতা ইত্যাদির রোধ করা সম্ভব হবে,'' অনন্ত জলিলের বহুল আলোচিত ভিডিও সম্পর্কে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় এই মন্তব্যটি করেছেন শতাব্দী চ্যাটার্জী৷ তার বক্তব্যের সঙ্গেও ভিন্নমত পোষণ করেছেন অনেকে৷

ধর্ষণের কারণ শুধু নারীদের পোশাক তা মানতে রাজি নন অনেক পাঠক৷ ‘‘তাই যদি হয় তাহলে নুসরাত কেন ধর্ষিত হলো, সে তো বোরকা পড়েই মাদ্রাসার যেতো?'' মুনিয়া মুন্নির৷

তবে পাঠক শামীম শাহেদ মনে করেন, কারো সাথে মতের অমিল হলে তাকে হেয় করার মানষিকতার পরিবর্তন দরকার৷ তিনি অনন্ত জলিলের কথাকে সমর্থন করেছেন ঠিকই, কিন্তু আবার এ কথাও লিখেছেন, ‘‘এটাও ঠিক যে ইসলাম ধর্মে প্রথমে পুরুষের দৃষ্টি নত করতে এবং পরে মেয়েদের পর্দা করতে বলা হয়েছে৷'' পাঠক নূর ইসলাম শামীম শাহেদের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে লিখেছেন, ‘‘পুরুষের দৃষ্টিভঙ্গির লালসা বন্ধ করতে হবে৷''

রেজাউল করিম মনে করেন, ধর্ষণ রোধ করতে ‘‘নারী ও পুরুষ উভয়েরই নৈতিক শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়া উচিত, আর তার জন্য বাবা-মায়ের ভূমিকা জরুরি৷ মেয়ে মানুষকে যেমন সম্মান দেওয়া উচিত, তেমনি পুরুষ মানুষের সাথে বিনয়ী ও সম্মান দেখানো উচিত৷''

‘‘বাক স্বাধীনতা সবার আছে৷ অনন্ত জলিল তার নিজস্ব মতামত প্রদান করেছেন৷ তার ওপর ব্যক্তিগত আক্রমণ করা হচ্ছে কেন?,'' প্রশ্ন পাঠক ফাহাদ আল সাদের৷ একই প্রশ্ন কামরুল হাসানেরও৷

তবে মনসুর মুন্সি মনে করেন, ধর্ষণের ক্ষেত্রে শতকরা ৭০ থেকে ৮০ ভাগ ছেলেদের দোষ৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘গ্রামের রাস্তায় মেয়েদের বখাটে ছেলেদের উৎপাত করতে দেখা যায় ৷ এমনকি মেয়েদের বোরকা ধরে টানাটানি করতেও দেখা যায়৷''

মাকসুদুর রহমান মনে করেন, ‘‘পাশ্চাত্যের ড্রেসের সঙ্গে বাঙালি ছেলেরা এখনো অভ্যস্ত হয়ে উঠতে পারেনি ৷ তাই ছোট কিংবা হালকা পোশাকে মেয়েদের দেখলেই বাঙালি যুব সমাজের চোখ চলে যায়৷''

কারো সৌন্দর্য দেখে বিমোহিতো হওয়া আর যৌন উক্তেজনা এক জিনিস নয়৷ খোলামেলা পোশাক মানুষের যৌন উত্তেজনা আনে-এটা স্বভাবিক৷ তাই বলে ধর্ষণ কেন?''  প্রশ্ন নিউটন মজুমদারের৷

তবে মো. আলমাস খান লিখেছেন, ‘‘কিছু পুরুষ নামের জানোয়ার আছে, যাদের কাছে নারী হয়ে যায় দেহ, হোক সে বয়স্ক হোক সে শিশু৷''

মাহবুবুর রহমান ধর্ষণের কারণ হিসেবে বর্তমান সমাজব্যবস্থাকে দায়ী করেলিখেছেন, ‘‘বর্তমান সমাজব্যবস্থায় পুরুষের কুরুচিপূর্ণ দিকটা এখন ভয়াবহ আকার ধারণ করছে৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: আশীষ চক্রবর্ত্তী