পুরুষের অনুমতি ছাড়াই ব্যবসা করতে পারবেন সৌদি নারীরা | বিশ্ব | DW | 19.02.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সৌদি আরব

পুরুষের অনুমতি ছাড়াই ব্যবসা করতে পারবেন সৌদি নারীরা

নতুন ক্রাউন প্রিন্স আসার পর সৌদি আরবের নারীরা একের পর এক সুবিধা পেতে শুরু করেছেন৷ এবার পুরুষের অনুমতি ছাড়াই ব্যবসা শুরুর অনুমতি পেলেন তাঁরা৷

দেশটির ব্যবসা ও বিনিয়োগ মন্ত্রণালয় বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘‘অভিভাবকের কাছ থেকে পাওয়া অনুমতিপত্র থাকার প্রমাণ ছাড়াই এখন নারীরা ব্যবসা শুরু করতে পারবেন এবং সরকারের ই-সেবাগুলো ভোগ করতে পারবেন৷’’

সৌদি আরবে চালু থাকা অভিভাবক ব্যবস্থার আওতায় সরকারি সেবা পেতে কিংবা ভ্রমণে যেতে, স্কুলে ভর্তি হতে গেলে নারীকে তাঁর ‘অভিভাবকের’ কাছ থেকে পাওয়া অনুমতিপত্র দাখিল করতে হয়৷ এক্ষেত্রে অভিভাবক হন সাধারণত স্বামী, বাবা কিংবা ভাই৷

তেল নির্ভর অর্থনীতি থেকে বেরিয়ে আসার পরিকল্পনা করছে সৌদি আরব৷ তাই সম্প্রতি বেসরকারি খাত সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে দেশটি৷ নারীদের ব্যবসা শুরুর অনুমতি দেয়া সেই পরিকল্পনারই অংশ বলে মনে করা হচ্ছে৷

‘ভিশন ২০৩০’ নামে একটি সংস্কার কর্মসূচি শুরু করেছে সৌদি আরব৷ এর আওতায় কর্মজীবী নারীর সংখ্যা ২২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে মোট জনশক্তির এক-তৃতীয়াংশ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে৷

নতুন ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ‘ভিশন ২০৩০’ প্রণয়নের মূল ব্যক্তি বলে মনে করা হচ্ছে৷ গত অক্টোবরে তিনি একটি ‘মধ্যপন্থি ও খোলা’ সৌদি আরব গড়ে তোলার অঙ্গীকার করেন

চলতি মাসে দেশটির পাবলিক প্রোসিকিউটর কার্যালয় প্রথমবারের মতো নারী তদন্তকারী নিয়োগ করবে বলে জানিয়েছে৷

এছাড়া বিমানবন্দর ও সীমান্তে প্রথমবারের মতো ১৪০ জন নারী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল সরকার৷ এক লক্ষেরও বেশি নারী এতে আবেদন করেন বলে জানা গেছে৷

এর আগে গত সেপ্টেম্বরে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান গাড়ি চালানো বিষয়ে নারীদের উপর থাকা নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন৷ আগামী জুন মাস থেকে তা কার্যকর হবে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি)

গত সেপ্টেম্বরের ছবিঘরটি দেখুন..

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন