পুরুষদের আধিপত্য ভাঙতে মরক্কোর নারী র‍্যাপার | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 02.08.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

মরক্কো

পুরুষদের আধিপত্য ভাঙতে মরক্কোর নারী র‍্যাপার

মরক্কোর তেতোয়ানে এক বিশ্ববিদ্যালয়ে চলচ্চিত্র নিয়ে পড়াশোনা করেছেন ২৪ বছর বয়সী হুদা আবুস৷ দীর্ঘদিন ধরে হিপ-হপের ফ্যান আব্দুস বন্ধুদের উৎসাহে হাতে তুলে নিয়েছেন মাইক্রোফোন, নিজেই শুরু করেছেন নানা পারফরম্যান্স৷

জানুয়ারিতে ‘হোর্স সিরি’ নামের একটি গানে মরক্কোর তিন বিখ্যাত র‍্যাপ স্টার এলগ্রান্দে তোতো, ডন বিগ এবং ড্রাগানভ এর সঙ্গে পারফরম করেন৷ এই গানের ভিডিও ইউটিউবে দেখা হয়েছে দেড় কোটি বারেরও বেশি৷ উত্তর আফ্রিকার দেশটিতে র‍্যাপের জনপ্রিয়তা দ্রুত বাড়ছে, এটিই এর প্রমাণ৷

অনুপ্রাণিত হয়ে আবুস একা পারফরম করার চ্যালেঞ্জ নেন৷ ফেব্রুয়ারিতে ‘কিক অফ' নামের গানে প্রথম একক পারফরম করেন তিনি৷

তবে এক্ষেত্রে দেশটিতে নারীদের সমঅধিকার না থাকা একটি বড় চ্যালেঞ্জ বলে মনে করেন আবুস৷ বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘‘আমি নিজেই নিজেকে গড়ে তোলা একজন শিল্পী৷ নিজের গানের কথা নিজেই লিখি, নিজের মনের কথা বলি৷’’

মঞ্চে ‘খতেক’ বা ‘বোন’ নামে পরিচিত এই নারী র‍্যাপার বলেন, ‘‘র‍্যাপ আমার শখ এবং পিতৃতান্ত্রিক সমাজে আমার নিজের রক্ষাকবচ৷’’

(Reuters/S. Talaat)

আবুস নিজেকে নারীবাদি এবং সমকামী অধিকারের সমর্থক বলে পরিচয় দেন

মরোক্কান আরবি ভাষায় তার গানের কথায় ফরাসি ও ইংরেজির মিশ্রণ থাকে৷ সম্প্রতি র‍্যাপ দেশটির রাজনীতিতেও বড় প্রভাব ফেলছে৷ গ্নাওয়ি নামের এক র‍্যাপারকে কিছুদিন আগেই এক ভিডিওতে পুলিশকে ‘অপমান’ করায় এক বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়৷

আবুসই অবশ্য র‍্যাপ সঙ্গীতে এগিয়ে আসা একমাত্র মরোক্কান নারী নন৷ আরেক নারী হিপ-হপ স্টার মানালের জনপ্রিয় গান ‘স্লে’ ইউটিউবে দেখা হয়েছে প্রায় সাড়ে চার কোটি বার৷

আবুস নিজেকে নারীবাদি এবং সমকামী অধিকারের সমর্থক বলে পরিচয় দেন৷ তিনি জানান, ২০১১ সালে আরব বসন্তের সময় গণতন্ত্রের দাবিতে যে আন্দোলন শুরু হয় সেখান থেকেই তিনি অনুপ্রাণিত হয়েছেন৷

অবশ্য গানের মাধ্যমে তিনি কোনো রাজনৈতিক এজেন্ডা তুলে ধরতে চান না, বরং মানুষের মনের কথারই প্রকাশ ঘটাতে চান৷ তার গান ‘কিক অফ’ এ একটি বাক্য এমন- ‘আমি তোমার চেয়ে ভালো লিখি, অথচ তুমি আমাকে কেবল নারীই মনে করো৷’

এডিকে/এফএস (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন