পুত্রহত্যায় সাহায্য করেছে মা আয়শা | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 29.06.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

পুত্রহত্যায় সাহায্য করেছে মা আয়শা

নিজের সন্তানকে প্রেমিককে দিয়ে হত্যা করিয়েছিল মা আয়শা৷ সরকারি গাড়ি নিয়ে নয়ছয় এবং দুর্নীতি, হল্যান্ড আর ব্রাজিলের বিজয়ের খবর৷ আজকের পত্রপত্রিকার শিরোনামে এসবই৷

default

মা ও শিশুর এই পবিত্রতম সম্পর্ককে কলঙ্কিত করেছে আয়শা

নিজের ছেলেকে হত্যায় সহায়তা করেছে মা আয়শা

ইত্তেফাক, কালের কন্ঠ এবং বিডিনিউজটোয়েন্টিফোর চাঞ্চল্যকর একটি সংবাদ প্রকাশ করেছে৷ ঢাকার আদাবর এলাকায় নার্সারির ছাত্র ছয় বছরের শিশু সামীউলকে হত্যার সময় তার মা আয়শা হুমায়রা প্রেমিক সামসুজ্জামান আরিফকে সাহায্য করেছিল বলে জানা যাচ্ছে এই সংবাদ থেকে৷ গোয়েন্দাদের জেরার মুখে এবং সাংবাদিকদের সামনেও হত্যাকারী আরিফ হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে বলে, হত্যার সময় সামীউলের মা আয়শা নিজের ছেলের পা চেপে ধরেছিল৷ আরিফ ওই শিশুটিকে গলা টিপে এবং পরে মুখে বালিশ চাপা দিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে৷ আরিফের বক্তব্য, আয়শা নাকি তাকে জানায়, সামীউল গোলমাল পাকাচ্ছে, বাবাকে সব কথা বলে দিতে চেয়ে ব্ল্যাকমেল করছে আমায়, ওকে মেরে ফেলাই ঠিক হবে৷ এরপর ১৯ জুন রাতে সামীউলকে আয়শার বাড়িতে দুজনে মিলে খুন করে তারা৷ তার লাশ বাকি রাত ফ্রিজের মধ্যে ভরে রাখে মা আয়শা৷ ব়্যাব পরে এই হত্যাকান্ডে জড়িয়ে থাকার অভিযোগে সামীউলের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে গ্রেপ্তার করেছে আরিফ এবং তার প্রেমিকা, নিজের পুত্রঘাতী মা আয়শা হুমায়রাকে৷

সরকারি গাড়ি নিয়ে নয়ছয়

দৈনিক কালের কন্ঠ দুর্নীতির চমত্কার একটি উদাহরণ তুলে ধরেছে তাদের সংবাদপত্রে৷ সরকারি প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরেও ওইসব প্রকল্পের জন্য কেনা হাজার হাজার গাড়ি ফেরত আসেনি সরকারি পরিবহন পুলে৷ প্রকল্প শেষ হওয়ার ৬০ দিনের

WM 2010 Südafrika Achtelfinale - Brasilien gegen Chile

ব্রাজিলের আরও একটি গোলের উচ্ছাস

মধ্যে এসব গাড়ি সরকারের ঘরে জমা দেওয়ার নিয়ম৷ কিন্তু দীর্ঘ সাত বছরেও ফেরত আসেনি এ রকম ৮৩৩০টি যানবাহন৷ হিসাব ৩০টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগের৷ কিছু মন্ত্রকের এই হিসাব মিললেও অন্তত ২০টি মন্ত্রণালয় ও বিভাগ থেকে কোনো হিসাবই মেলেনি৷ সেখানেও আরো অনেক গাড়ি উধাও রয়েছে বলে অনুমান করা হচ্ছে৷ অভিযোগ, নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে এসব গাড়ি ব্যবহার করে চলেছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা ও তাঁদের আত্মীয়স্বজনরা৷ বলা বাহুল্য, সরকারি জ্বালানির টাকাতেই রাস্তায় চলছে এইসব গাড়ি৷ সে টাকাও লুটপাট হচ্ছে বলে জানাচ্ছে কালের কন্ঠ৷

বিশ্বকাপের বাজার গরম

ডাচদের জয়, ফুটবলের ছবি দিয়েই প্রথম পাতা সাজিয়েছে ইত্তেফাক৷ সংবাদপত্র যখন প্রকাশিত হয়েছে সে পর্যন্ত ব্রাজিলের বিজয়ের খবর ছিল না, না হলে অবশ্যই ব্রাজিল পাতা জুড়ে নিত সব সংবাদপত্রেরই৷ কারণ, উপমহাদেশের দেশগুলিতে ব্রাজিল আর্জেন্টিনাই অধিকাংশ মানুষের প্রথম পছন্দের দল ফুটবলে৷ ব্রাজিলের বিজয়ের প্রশংসা রয়েছে বিডিনিউজটোয়েন্টিফোরে৷ কালের কন্ঠ তাদের প্রতিবেদনে অবশ্য ব্রাজিল কোচ দুঙ্গার নতুন স্ট্র্যাটেজির প্রশংসা করে লিখেছে, প্রতিপক্ষ আক্রমণে গেলে সেখান থেকে বল ছিনিয়ে নিয়ে গেল করার কায়দা নিয়েছেন দুঙ্গা৷ গ্রুপ পর্যায়ে তেমন সুযোগ না পেলেও নক আউট পর্যায়ের প্রথম খেলাতেই তাই দুঙ্গার এই নতুন ফরমুলা দারুণ সাফল্য পেয়ে গেছে৷ আগামীতেও পাবে৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা : সাগর সরওয়ার

সংশ্লিষ্ট বিষয়