পুজদেমনকে স্পেনে পাঠাতে জার্মান আদালতের রায় | বিশ্ব | DW | 12.07.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

স্পেন

পুজদেমনকে স্পেনে পাঠাতে জার্মান আদালতের রায়

আদালত বলেছে কাটালুনিয়ার সাবেক এই নেতাকে দুর্নীতির দায়ে স্পেনে পাঠানো যাবে, বিদ্রোহের অভিযোগে নয়৷

কার্লেস পুজদেমনের বিরুদ্ধে কাটালুনিয়ার ব্যর্থ স্বাধীনতা সংগ্রামের পর স্পেনের আদালতে বিদ্রোহ ও দুর্নীতির অভিযোগে মামলা চলছে৷

জার্মানির শ্লেসভিগ-হোলস্টাইন রাজ্যের উচ্চ আদালতের এক মুখপাত্র বলেছেন, এই রায়ের ফলে পুজদেমনকে শুধুমাত্র দুর্নীতির অভিযোগের বিচারের জন্যই স্পেনে পাঠানো যাবে৷ তবে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিলের সুযোগও রয়েছে বলে জানিয়েছেন এই মুখপাত্র৷

‘‘স্পেনের মিথ্যা দাবিকে আমরা আদালতে পরাস্ত করেছি৷ জার্মান বিচারব্যবস্থা ১ অক্টোবরের গণভোটকে বিদ্রোহ বলে মানতে চায়নি,'' রায়ের পর এক টুইটে এ মন্তব্য করেছেন পুজদেমন৷

জেলে থাকা কাটালান নেতাদের বিষয়ে পুজদেমন বলেন, ‘‘আমাদের সহযোদ্ধাদের কারাগারে কাটানো প্রতিটি মুহূর্তই অবিচার ও লজ্জার উদাহরণ৷ আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করবো, এবং আমরা জিতবো৷''

‘অবৈধভাবে' স্বাধীনতা ঘোষণা করার অভিযোগে কাটালান সরকার থেকে বরখাস্ত হওয়ার পর বেলজিয়ামে স্বেচ্ছা নির্বাসনে যান পুজদেমন৷ মার্চে জার্মানির মধ্য দিয়ে ভ্রমণের সময় ইউরোপীয় অ্যারেস্ট ওয়ারেন্টের অধীনে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়৷

‘‘আদালত সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সরকারি অর্থ অপব্যবপহারের অভিযোগে বন্দি প্রত্যর্পণ সম্ভব,'' জানিয়েছেন আদালতের মুখপাত্র৷

শিগগিরই রাজ্যের অ্যাটর্নি জেনারেল প্রত্যর্পণ আদেশে সই করবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

এর আগে অন্য এক আদালত ‘বিদ্রোহের' অভিযোগে জার্মান আইন অনুযায়ী প্রত্যর্পণের সুযোগ নেই বলে আদেশ দেয় এবং পুজদেমনকে এপ্রিল পর্যন্ত আগাম জামিন দেয়৷

জার্মান আইন অনুযায়ী শুধু সে অপরাধেই একজন বন্দিকে অন্য দেশে প্রত্যর্পণ করা যায়, সে অপরাধ জার্মানিতে শাস্তিযোগ্য

এডিকে/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন