পিস্তল হাতে রাস্তায়, তারপর গণপিটুনি | বিশ্ব | DW | 17.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

পিস্তল হাতে রাস্তায়, তারপর গণপিটুনি

হাতে পিস্তল নিয়ে রীতিমতো ফিল্মি কায়দায় গিয়েছিলেন মিছিল রুখতে৷ মিছিল রুখতে পারেননি, বরং গণপিটুনির মুখে পালিয়ে বেঁচেছেন ‘শামীম ওসমানের লোক’ হিসেবে পরিচিত নিয়াজুল৷ নারায়ণগঞ্জের এই ভিডিওই এখন ভাইরাল৷

default

প্রতীকী ছবি

মঙ্গলবার হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে নারায়ণগঞ্জ৷ বিকেল সোয়া চারটার দিকে নগর ভবনের সামনে আওয়ামী লিগের নেতাকর্মীদের নিয়ে অবস্থান করেন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী৷ সেখান থেকে মিছিল নিয়ে তিনি চাষাঢ়ার দিকে যান৷ পাঁচটা নাগাদ মিছিল পৌঁছায় সায়াম প্লাজার কাছে৷ সেখানে কয়েকজন হকারকে ফুটপাথ থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়৷ শুরু হয় বাকবিতণ্ডা৷ মেয়রের মিছিল আটকানোর চেষ্টা করে পুলিশ৷ সেই সময় এক হকারকে মারধর করা হলে উত্তেজনা আরও বৃদ্ধি পায় বলে অভিযোগ৷ আর ঠিক তখনই পিস্তল হাতে নিয়ে ঘটনাস্থলে আবির্ভূত হন নিয়াজুল৷

স্থানীয়রা জানায়, নিয়াজুল যুব লীগের নেতা৷ পিস্তল হাতে তিনি মিছিলটিকে ভয় দেখানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে অভিযোগ৷ কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি৷ উত্তেজিত জনতা প্রথমে ঘিরে ফেলে নিয়াজুলকে৷ তারপর শুরু হয় মারধর৷ বেশখানিকক্ষণ তাকে রাস্তায় ফেলে পেটানোর পর ছেড়ে দেওয়া হয়৷

স্থানীয়দের কেউ কেউ বলছেন, নিয়াজুল সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের অনুসারী৷ এক বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলকে দেয়া সাক্ষাৎকারে শামীম ওসমান নিয়াজুলকে ‘পরিচিত’ উল্লেখ করে জানান,  নিয়াজুলের বড় ভাই সুইটকে বিএনপি আমলে ক্রসফায়ারে হত্যা করা হয়৷ তাছাড়া চাষাঢ়া এলাকায় নিয়াজুলের বিশাল মার্কেট আছে বলেও জানান তিনি৷

এসজি/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়