পিকনিক-ফেরত নারীকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ | বিশ্ব | DW | 03.01.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ভারত

পিকনিক-ফেরত নারীকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

দুই দলের মধ্যে ঝামেলার জেরে পিকনিক থেকে এক গৃহবধূকে তুলে নিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ উত্তর ২৪ পরগনায়। ধৃত ছয়।

উত্তর ২৪ পরগনায় মিনাখাঁর আমতলা বাজার এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। সেখানে এক গৃহবধূকে একটি মাছের ভেড়িতে নিয়ে গিয়ে কয়েকজন যুবক এই সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ।

মিনাখাঁর এসডিপিও নির্মল দাস আনন্দবাজারকে বলেছেন, কুমারজোল গ্রামের সালাম সর্দার, হাবিবুল্লাহ মোল্লা, সরিফুল গাজি, সুরজিৎ মণ্ডল এবং মাড়িবেড়িয়ার  রফিকুল ইসলাম মল্লিক ও কাদিরহাটির বাকিবিল্লা তরফদারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, মারধর, ভাঙচুরের অভিযোগ আছে। তাদের ১২ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক। ওই নারীর চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। 

ঘটনাটি ঘটেছে নতুন বছরের রাতে। পুলিশ জানিয়েছে, ভাঙরের ঘটকপুকুর এবং মিনাখাঁর কুমারজোল থেকে দুইটি দল পিকনিক করতে টাকি গিয়েছিল। সেখানে দুই দলের মধ্যে ঝামেলা হয়। হাতাহাতি হয়। স্থানীয় মানুষদের হস্তক্ষেপে তা সাময়িকভাবে মিটে যায়।

পিকনিক থেকে ফেরার সময়, দুই দলের বাসচালকের মধ্যে ঝামেলা শুরু হয়। কুমারজোলের পিকনিক দলের বাসের কাচ ভেঙে দেয়া হয়। কুমারজোলের ছেলেরা মিনাখাঁয় কলকাতা-বাসন্তী হাইওয়েতে দাঁড়িয়েছিল। ভাঙরের পিকনিক দলের বাস সেখানে এলে তারা বাসটি দাঁড় করায়। তাদের হাতে লোহার রড, বাঁশ ইত্যাদি ছিল। তারা সেটা নিয়ে যাত্রীদের উপর চড়াও হয়। ওই নারী ও একজন পুরুষ ছাড়া বাকি সকলে পালায়। যুবকরা ওই দুইজনকে গাড়িতে তুলে নেয়। তারা যুবককে মারধর করে রাস্তায় নামিয়ে দেয়। ওই নারীকে ভেড়িতে নিয়ে দুইজন ধর্ষণ করে। বাকিরা তাদের উৎসাহ দেয় বলে অভিযোগ।

ওই নারী পরে পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগ জানান। তারপর পুলিশি তৎপরতা শুরু হয়। ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

জিএইচ/এসজি(আনন্দবাজার, জি নিউজ)