পিএসজি-তেই মেসি, খেলবেন ৩০ নম্বর জার্সিতে | বিশ্ব | DW | 11.08.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

ফ্রান্স

পিএসজি-তেই মেসি, খেলবেন ৩০ নম্বর জার্সিতে

বার্সেলোনা ছেড়ে এবার প্যারিস। পিএসজি-র সঙ্গেই মেসির দুই বছরের চুক্তি হলো। খেলবেন ৩০ নম্বর জার্সিতে।

পিএসলজি-তে যোগ দিলেন মেসি।

পিএসলজি-তে যোগ দিলেন মেসি।

এতদিন ক্লাব ফুটবলে লিওনেল মেসি মানেই ছিল ১০ নম্বর জার্সি। এফসি বার্সেলোনায় দশ নম্বর জার্সি পরেই মাঠে নামতেন মেসি। অনুগামীরা তাকে বলতেন এলএম-১০। কিন্তু নতুন ক্লাবে তার জার্সির নম্বর হবে ৩০। অবশ্য মেসি যখন বার্সেলোনায় প্রথম যোগ দিয়েছিলেন, তখন তার জার্সির নম্বর ছিল ৩০।

বিপুল অর্থের বিনিময়ে পিএসজি-তে সই করেছেন মেসি। সংবাদসংস্থা এপি-কে সূত্র জানিয়েছে, বছরে ৩৫ মিলিয়ান ইউরো বা ৬১০ কোটি টাকার বিনিময়ে নতুন ক্লাবে এলেন মেসি। নেইমারকেও ৩৫ মিলিয়ান ইউরো দেয় পিএসজি। শুধু নেইমার নয়, এমবাপেও পিএসজি-তে আছেন। এই তিনজন একসময় বার্সাকে অপ্রতিরোধ্য করেছিলেন, আবার তারাই এখন পিএসজি-র হয়ে মাঠে নামবেন। ফলে অন্যতম সেরা আক্রমণভাগ নিয়ে মাঠে নামবে পিএসজি। কাতার ইনভেস্টমেন্ট গ্রুপ পিএসজি-তে এত অর্থ ঢালছে যে, মেসি, নেইমারদের নেয়ার পরেও তাদের কোনো টানাটানি থাকবে না।

Paris-Saint Germain Fans begrüssen Lionel Messi

পিএসজি সমর্থকদের উল্লাস।

প্যারিসের সময় মঙ্গলবার দুপুরে মেসি ক্লাবে পৌঁছান। তারপর চলে ফটোসেশন। বিমানবন্দর ও ক্লাব ভরিয়ে দিয়েছিলেন সমর্থকরা। মেসি বলেছেন, ''আমি পিএসজি-তে ফুটবল জীবনের নতুন অধ্যায় শুরু করার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। আমি জানি, ক্লাবের প্লেয়াররা কতটা প্রতিভাবান। আমিও ক্লাবকে কিছু দিতে চাই। বিশেষ কিছু। যাতে সমর্থকরা খুশি হবেন। তাই আমি মাঠে নামার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি।''

বন্ধুদের বার্তা

মেসি পিএসজি-তে যোগ দেয়ার পরই নেইমার বলেছেন, ''আবার আমরা একসঙ্গে।'' সামাজিক মাধ্যমে তিনি বার্সায় খেলার সময়ের একটা ভিডিও পোস্ট করেন। যেখানে মেসিকে জড়িয়ে ধরছেন নেইমার।

বার্সেলোনা ও পিএসলজি-তে খেলেছেন রোনাল্ডিনহো। তিনি টুইট করে বলেছেন, ''দুই ক্লাবেই খেলেছি। এখন আমার বন্ধু মেসিও নতুন জার্সি পরে মাঠে নামবে। তোমায় অনেক অভিনন্দন লিও।''

আর ক্লাবের তরফ থেকে টুইটারে বলা হয়েছে, তাদের নতুন হীরে হলেন মেসি।

জিএইচ/এসজি(এপি, এএফপি, রয়টার্স)