পাপনের অটো সাকিবের মটো | বিশ্ব | DW | 22.10.2019

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সংবাদভাষ্য

পাপনের অটো সাকিবের মটো

দেশের ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ক্রিকেটারদের দাবিদাওয়া ও তার টাইমিং নিয়ে ষড়যন্ত্র দেখছেন৷ কারা ষড়যন্ত্র করছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে তিনি বেশ কয়েকবার বলেছেন, এটা সকলেই অটো জেনে যাবেন৷

এই অটো জেনে যাওয়ার উপায় ও প্রক্রিয়া আমরা জানতে চাই৷ এখনই চাই৷

অন্যদিকে দুই ফর্মের ক্রিকেটে দেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান তার সহখেলোয়াড়দের নিয়ে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন৷ এরকম একটি ঘোষণা দেওয়ার পরদিনই দেশের সবচেয়ে বড় টেলিফোন নেটওয়ার্ক গ্রামীণফোনের সঙ্গে চুক্তি করার ঘোষণা এলো৷ সাকিবের কাছে কি কোনো তথ্য আছে যে বিসিবির সঙ্গে আর যার ঝামেলা হোক তার সঙ্গে কোনো ঝামেলা হবে না? কেমনে জানেন? আসলে সাকিবের মটো বা মূলমন্ত্র কী?

পাপন সাহেব জানিয়ে দিলেন, খেলোয়াড়েরা না খেললে তার কিছু করার নেই৷ সভাপতির উপযুক্ত কথাই বটে! এখনকার খেলোয়াড়েরা না খেললে অন্যরা খেলবে৷ উনি একজন কর্পোরেট বসই বটে৷ চাকরি ভালো না লাগলে ছেড়ে দিন, নতুন কাউকে চাকরি দেওয়া হবে! বিসিবির সভাপতি বলছেন, এইসব দাবি নিয়ে কেন আন্দোলন করতে হবে? তার কাছে আগে এলে তো সব দাবিই মেনে নেওয়া হতো৷ তার মানে, দাবি যৌক্তিক, অযৌক্তিক হলো সংবাদ সম্মেলন করে সে দাবি পেশ করা৷

Khaled Muhiuddin

খালেদ মুহিউদ্দীন, প্রধান, ডয়চে ভেলে বাংলা বিভাগ

তাহলে বিসিবি কেন আগে থেকেই এগুলো করলেন না?বিসিবি সভাপতি বারবার তার বিশ্বাসের কথা বলছেন, এক-দুইজন বাদে বাকি খেলোয়াড়েরা এই গেম প্ল্যান সম্পর্কে জানতেন না৷ বিসিবি সভাপতি নিশ্চিত করে কীভাবে একথা জানতে পারলেন তা তো আমাদের জানালেন না৷ তবে কি বিসিবি এক বা দুইজন খেলোয়াড়কে টার্গেট করছে? কেন?

সাকিবের কথায় ফিরে আসি৷ ওয়ান ডে ক্রিকেটে অধিনায়ক মাশরাফী ফেসবুক স্ট্যটাসে জানিয়েছেন, খেলোয়াড়দের এই আন্দোলন সম্পর্কে কিছু জানতেন না৷ সাকিব কি অনেক স্পন্সরশিপ কমিটেমন্ট অনেক বিজ্ঞাপন অনেক দেশের অনেক পিএল খেলার ফাঁকে একটু সময় পাবেন, মাশরাফীর ব্যাপারটা আমাদের জানাতে? সাকিব কোটি টাকার বা শত কোটি টাকার স্পন্সরশিপ নেন, আমার তাতে কোনো আপত্তি নেই৷ বরং একটু খুশিই হওয়ার আছে৷ কিন্তু ক্রিকেট থেকে দূরে থাকার ঘোষণা দেওয়ার পরদিনই এত ঢাক-ঢোল পিটিয়ে গ্রামীণফোণের জার্সি পরার মটোটা কী?

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়