পাটের নৌকায় কুয়াকাটা থেকে লা সিওতা | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 02.09.2010
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

পাটের নৌকায় কুয়াকাটা থেকে লা সিওতা

নৌকায় করে দূর যাত্রার গল্প নতুন নয়৷ সেই ক্রিস্টোফার কলম্বাস থেকে শুরু করে হালের কোরঁত্যাঁ দ্য শাতেলপেরঁ সবাই নৌকায় করেই পাড়ি দিয়েছেন হাজার হাজার মাইল৷ খটকা লাগছে নাতো! কলম্বাসকে তো চেনেন কিন্তু এই শাতেলপেরঁ আবার কে?

default

পাটের নৌকায় কোরঁত্যাঁ দ্য শাতেলপেরঁ

ফরাসি তরুণের পাটের নৌকা

কোরঁত্যাঁ দ্য শাতেলপেরঁ একজন ফরাসি প্রকৌশলী৷ সম্প্রতি সমুদ্র পথে বাংলাদেশ থেকে ফ্রান্স পর্যন্ত নৌকায় ভ্রমণ করেছেন তিনি৷ তাও আবার যে সে নৌকা নয়, পাট আর কাচ দিয়ে তৈরি নৌকা৷ সাকুল্যে নৌকার দৈর্ঘ্য নয় মিটার৷ কোরঁত্যাঁ এজন্য সময় নিয়েছেন ১৮৩ দিন৷ কিন্তু কেন তাঁর এই নৌকা ভ্রমণ৷ কোরঁত্যাঁ'র কথায়, ‘‘বাংলাদেশের জন্য এমন একটা কাজ করতে পেরে আমি অনেক খুশি৷ আমি আবার বাংলাদেশে যাবো৷ এর উপরে আরো কাজ করতে৷ আমি সবার সহযোগিতা কামনা করছি৷''

Corentin de Chatelperron Segeln Bangladesh Frankreich Flash-Galerie

১৬ ফেব্রুয়ারি, ছোট্ট নৌকায় কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত ত্যাগ করছেন শাতেলপেরঁ

কোকোর যাত্রা শুরু ১৬ ফেব্রুয়ারি

কোরঁত্যাঁ দ্য শাতেলপেরঁ ডাক নাম কোকো৷ তাঁর দীর্ঘ নৌযাত্রার শুরুটা হয় গত ১৬ ফেব্রুয়ারি, কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত থেকে৷ পুরো সফরে তাঁর সঙ্গী শুধু নৌকাটাই৷ তবে মাঝখানে অল্প একটু বিপদসঙ্কুল পথ তিনি পাড়ি দিয়েছেন একটি জাহাজের সহায়তা নিয়ে৷ সেটি অবশ্য শুধুই জলদস্যুর আতঙ্কে৷ এছাড়া অবশ্য সমুদ্রের পাখি আর ডলফিনদের কিছুটা সঙ্গ পেয়েছেন তিনি৷

১৭ আগস্ট ফ্রান্সের লা সিওতায় পৌঁছে কোকোর নৌকা৷ গায়ে লাল-সবুজ গেঞ্জি চাপিয়ে নিজ দেশে পা রাখেন তিনি৷ কোন রকম পূর্ব অভিজ্ঞতা ছাড়াই ছিল তাঁর এই রোমাঞ্চকর যাত্রা৷

Corentin de Chatelperron Segeln Bangladesh Frankreich Flash-Galerie

পুরো সফরে কোরঁত্যাঁর সঙ্গী শুধু নৌকাটাই

শতভাগ জৈব উপকরণ দিয়ে জাহাজ

কোকোর যাত্রা শুরুটা এবং শেষটা দেখেছেন বাংলাদেশের মুনতাসির মামুন ইমরান৷ কোকোর সফর সম্পর্কে ডয়চে ভেলেকে তথ্য এবং আলোকচিত্র দিয়ে সহায়তা করেছেন তিনি৷ মুনতাসির মামুন এর কথায়, ‘‘কোকোর বয়স হচ্ছে ২৬ বছরের মতো৷ নৌকার নির্মাণশৈলী দেখে সে উদ্বুদ্ধ হয়৷ এরপর পাটের সঙ্গে এই নৌকাকে জুড়ে দেয়ার চিন্তা শুরু করে সে৷''

কোকোর ইচ্ছা বাংলাদেশের পাট নিয়ে গবেষণার৷ কেননা এই পাট দিয়ে জাহাজ তৈরি সম্ভব৷ প্রাথমিকভাবে যে নৌকাটি কোকো তৈরি করেছেন সেটিতে ৪০ শতাংশ পাটের আঁশ আর ৬০ শতাংশ কাচ রয়েছে৷ সেটিকে সাগরে ভাসিয়ে সফলতাও দেখিয়েছেন তিনি৷ তাই এবার শতভাগ জৈব উপকরণ দিয়েই জাহাজ বানাতে চান কোকো৷

কাচ নয় পাট

Corentin de Chatelperron Segeln Bangladesh Frankreich Flash-Galerie

১৭ আগস্ট ফ্রান্সের লা সিওতায় পৌঁছে কোকোর নৌকা

প্রশ্ন আসতে পারে পাটের আঁশকে নৌকা তৈরিতে বেছে নিলেন কেন কোকো? তাঁর কথায়, শন বা এ জাতীয় প্রাকৃতিক আঁশ নিয়ে ফ্রান্সে বহু গবেষণা হয়েছে৷ বাংলাদেশে গবেষণা করা হয়েছে পাটের আঁশ নিয়ে৷ তবে, নৌযান তৈরির ক্ষেত্রে পাট নিয়ে সরাসরি কোন সমীক্ষা হয়নি৷

কোকোর মতে, বাংলাদেশের মতো একটি দেশে আঁশ জাতীয় কাচ থেকে জাহাজ বানানো লাভজনক নয়৷ তাই, এর বিকল্প হতে পারে পাটের আঁশ৷ মোটের ওপর পাট দিয়ে তৈরি নৌকা সহজে ডোবারও ভয় নেই বলে জানান কোকো৷

উল্লেখ্য, বাংলাদেশের সোনালী আঁশ পাট৷ সাম্প্রতিক সময়ে পাটের জেনোম আবিষ্কার ছিল বাংলাদেশের অন্যতম বড় সাফল্য৷ সেই সাফল্যের সঙ্গে জাহাজ তৈরিকে জুড়ে দিলে বাণিজ্যিকভাবে অনেকটাই লাভবান হওয়া সম্ভব৷ সম্ভব এই খাতে বিনিয়োগ বাড়ানো - বলছেন বিশেষজ্ঞরা৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

ইন্টারনেট লিংক