পাখির চোখে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের পুড়িয়ে দেয়া গ্রাম | মাল্টিমিডিয়া | DW | 19.10.2017
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

পাখির চোখে রাখাইনে রোহিঙ্গাদের পুড়িয়ে দেয়া গ্রাম

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে সামরিক বাহিনীর অভিযানের কারণে দলে দলে রোহিঙ্গারা বাংলাদেশে পালিয়ে যাচ্ছেন৷ মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ‘জাতিগত নিধনের' অভিযোগ এনেছে জাতিসংঘ৷

জাতিসংঘের একটি দল ইতিমধ্যে বাংলাদেশে পালিয়ে যাওয়া রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেছে৷ তাঁরা সামরিক বাহিনীর নিপীড়নের কথা বলেছেন৷ রোহিঙ্গারা জানিয়েছেন, সামরিক বাহিনী তাঁদের গ্রাম, ঘরবাড়ি, বাজার সব পুড়িয়ে দিয়েছে৷ তাঁদের অভিযোগ, ইচ্ছে করেই এই কাজ করা হয়েছে যেন তাঁরা (রোহিঙ্গা) আর ফিরতে না পারেন৷ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা নারীদের ধর্ষণ করেছে৷ এর মধ্যে কিছু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে মসজিদে৷

মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷

তবে রাখাইন রাজ্যে আসলে কী ঘটছে, তা জানা সম্ভব হচ্ছে না৷ কারণ, আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম কিংবা ত্রাণ সংস্থাগুলোকে সেখানে যেতে দেয়া হচ্ছে না৷ কিছুদিন আগে অবশ্য মিয়ানমারে নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিক ও কয়েকজন সাংবাদিককে সরকারের পক্ষ থেকে রাখাইন পরিস্থিতি দেখাতে সেখানে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল৷

ভিডিও দেখুন 00:55
এখন লাইভ
00:55 মিনিট

ড্রোন থেকে তোলা ছবিতে হাজারো রোহিঙ্গার দেশ ছাড়ার দৃশ্য

এই অবস্থায় জাতিসংঘ ড্রোন প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে পরিস্থিতি কিছুটা বোঝার চেষ্টা করছে৷ এমনই এক ভিডিও ক্লিপে দেখা গেছে, বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে এখনও হাজার হাজার রোহিঙ্গা জড়ো হয়েছেন৷ তাঁরা বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় আছেন৷ আরেক ভিডিওতে পুড়িয়ে দেয়া রোহিঙ্গাদের গ্রাম দেখা যাচ্ছে৷ ভিডিওতে গাছপালা ঘেরা স্থানে কয়েকটি ঘরবাড়ির কাঠামো দেখা যাচ্ছে৷ একটি বাড়িরও ছাদ নেই৷ আর আগুনে পুড়ে যাওয়ার বিষয়টিও স্পষ্ট৷

জেডএইচ/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়