পাকিস্তান-জুড়ে বিক্ষোভ ইমরানের দলের | বিশ্ব | DW | 11.04.2022

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান

পাকিস্তান-জুড়ে বিক্ষোভ ইমরানের দলের

ইমরান খান ক্ষমতা হারানোর পর পাকিস্তানে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। এদিকে শাহবাজ শরিফ প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

রোববার রাতে করাচিতে বিক্ষোভ।

রোববার রাতে করাচিতে বিক্ষোভ।

ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতে সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারেননি ইমরান খান। তারপরেই তার দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের(পিটিআই) কর্মীরা দেশজুড়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন। রোববার করাচি, পেশোয়ার, মুলতান, খানেওয়াল, খাইবার, ইসলামাবাদ, লাহোর, অ্যাবোটাবাদ-সহ বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ হয়েছে। সেই বিক্ষোভে দলের প্রচুর কর্মী ও সমর্থক সামিল হয়েছেন।

ইমরানের বক্তব্য

ইমরান খান দাবি করেছেন, দ্বিতীয় স্বাধীনতা সংগ্রাম শুরু হয়েছে। বিদেশি শক্তি চক্রান্ত করে তার সরকার ফেলে দিয়েছে। মানুষ নিজেদের সার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্র রক্ষা করতে পথে নামবে।

ইমরানের দলের মুখপাত্র বলেছেলেন, দেশের নীতি ও সংবিধানভঙ্গের প্রতিবাদে বিশাল বিক্ষোভ হবে। পাকিস্তানের সব শহরে তারা বিক্ষোভের পরিকল্পনা করেছেন। 

Pakistan Protest nach Misstrauensvotum gegen Imran Khan | Peshawar

ইমরানের সমর্থনে পেশোয়ারে বিক্ষোভ।

বিক্ষোভের পর ইমরান তার সমর্থকদের ধন্যবাদ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, এরকম অত্যাশ্চর্য সমর্থন দেখানোর জন্য তিনি সবাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছেন। স্থানীয় মীরজাফররা বিশ্বাসঘাতকতা করে ক্ষমতায় এসেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সরকার ক্ষমতায় আসছে। দেখা যাচ্ছে, দেশে ও বিদেশে বসবাসকারী পাকিস্তানিরা এই চক্রান্তের বিরোধিতা করছেন।

কেমন বিক্ষোভ হলো

ইসলামাবাদে জিরো পয়েন্টে ইমরানের সমর্থকরা সমবেত হন। শুরু হয়. বিক্ষোভ। এর ফলে বিশাল যানজট হয়। রাওয়ালপিন্ডিতে বহু মানুষ সমবেত হয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন। সেখানে নেতারা ভাষণ দেন। তাদের নিশানায় ছিলেন মূলত শাহবাজ শরিফ।

পেশোয়ারে প্রেস ক্লাবের সামনে প্রচুর বিক্ষোভকারী জমায়েত হন। সেখানে প্রচুর নারী এসেছিলেন। লাহোর, করাচি সহ বিভিন্ন শহরে এবং বিদেশেও ইমরানের দলের কর্মী ও সমর্থকরা বিক্ষোভ  দেখিয়েছেন।

শাহবাজের মনোনয়ন পেশ

প্রধানমন্ত্রী হওয়ার জন্য ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলির সেক্রেটারির কাছে মনোনয়নপত্র পেশ করলেন ইমরান-বিরোধী জোটের প্রার্থী  শাহবাজ শরিফ। সোমবারই নতুন প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচন হবে। ইমরানের দলের তরফে শাহ মাহমুদ কুরেশিও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

শাহবাজেরই প্রধানমন্ত্রী হওয়ার সম্বাবনা বেশি বলে দ্য ডন জানাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর শরিকদের সঙ্গে কথা বলে তিনি মন্ত্রীদের নাম ঘোষণা করবেন।

ইমরান খানের দল সিদ্ধান্ত নিয়েছে, প্রথম থেকেই তারা নতুন সরকারের সঙ্গে সংঘাতে যাবে। পথে নেমে যেমন আন্দোলন করা হবে, তেমনই ন্যাশনাল অ্যাসেম্বলিতেও কড়া প্রতিবাদের পথে যাবে তারা।

জিএইচ/এসজি (এপি, রয়টার্স, দ্য ডন)