পাকিস্তানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কড়া নজরদারি | বিশ্ব | DW | 13.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাকিস্তান

পাকিস্তানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কড়া নজরদারি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নজদারি বাড়াতে যাচ্ছে পাকিস্তান সরকার৷ সরকারের দাবি, ‘হেট স্পিচ ও চরমপন্থা' ঠেকাতে এ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে৷ ‘হেট স্পিচ ও চরমপন্থা' ছড়িয়ে দেয়ার অভিযোগে কয়েকজনকে আটকও করা হয়েছে৷ 

পাকিস্তানের তথ্য মন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ন্ত্রণে আনতে বিশেষ ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে সরকার৷ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মানহানিকর পোস্ট দেয়ার অভিযোগে কর্তৃপক্ষ একজন সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করার একদিন পরই তথ্যমন্ত্রী এ কথা জানান৷

বার্তা সংস্থা এএফপির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানের সরকারি কর্মকর্তাদের অনেকের বিরুদ্ধেই গণমাধ্যমের উপর চাপ প্রয়োগের অভিযোগ রয়েছে৷ গত কয়েক বছরে দেশটির কয়েকশ' সংবাদমাধ্যমের ওয়েবসাইট ও বেশ কিছু নাগরিকের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম অ্যাকাউন্ট বন্ধ করা হয়েছে বলে প্রতিবেদনে বলা হয়৷

পাকিস্তানের অনলাইন অ্যাক্টিভিস্ট ও ব্লগারদেরকে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত লেখার জন্য প্রতিনিয়তই হুমকি দেয়া হচ্ছে বলেও জানানো হয়৷ শুধু তাই নয়, দেশটির মূলধারার গণমাধ্যমকেও প্রতিনিয়ত সরকারের চাপের মুখে থাকতে হয়৷ সরকারের চাপের মুখে গত মঙ্গলবার নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত একটি নিবন্ধ পাকিস্তানের একটি সংবাদমাধ্যম প্রকাশ করতে পারেনি৷ নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত ওই নিবন্ধটিতে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সমালোচনা করা হয়েছিল৷ 

তবে পাকিস্তান সরকার বলছে, দেশে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি হয়ে পড়েছে৷ তথ্যমন্ত্রী ফাওয়াদ চৌধুরী বক্তৃতায় বলেন, ‘বেনামী ডিজিটাল মিডিয়ার' প্রভাব বেড়েই চলেছে৷ এটি এখন দেশের মূলধারার গণমাধ্যমের উপর প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে৷ ‘‘এ কারনে এ সকল ‘বেনামী ডিজিটাল মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করা জরুরি'' বলে মন্তব্য করেন তিনি৷

আরআর/এসিবি (এএফপি)

 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন