1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
পাকিস্তানের সমাজে নারী-পুরুষের মেলামেশা বিষয়ে রয়েছে নানা ধরনের বিতর্ক৷ অনলাইন ডেটিং অ্যাপ ‘টিন্ডার' কীভাবে বদলাচ্ছে এই চিত্র?
ছবি: picture-alliance/dpa/F. Kraufmann

পাকিস্তানে যেভাবে অনলাইন ডেটিং করছেন নারীরা

১৬ আগস্ট ২০২০

পাকিস্তানের সমাজে নারী-পুরুষের মেলামেশা বিষয়ে রয়েছে নানা ধরনের বিতর্ক৷ অনলাইন ডেটিং অ্যাপ ‘টিন্ডার' কীভাবে বদলাচ্ছে এই চিত্র?

https://www.dw.com/bn/%E0%A6%AA%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BF%E0%A6%B8%E0%A7%8D%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%87-%E0%A6%AF%E0%A7%87%E0%A6%AD%E0%A6%BE%E0%A6%AC%E0%A7%87-%E0%A6%85%E0%A6%A8%E0%A6%B2%E0%A6%BE%E0%A6%87%E0%A6%A8-%E0%A6%A1%E0%A7%87%E0%A6%9F%E0%A6%BF%E0%A6%82-%E0%A6%95%E0%A6%B0%E0%A6%9B%E0%A7%87%E0%A6%A8-%E0%A6%A8%E0%A6%BE%E0%A6%B0%E0%A7%80%E0%A6%B0%E0%A6%BE/a-54585447

পুরুষনিয়ন্ত্রিত পাকিস্তানি সমাজ এখনও নারীপুরুষের মধ্যে ক্যাসুয়াল ডেটিংকে সহজভাবে নেয় না৷ কিন্তু ৩২ বছর বয়েসি ফায়কার মতো আরো অনেক কমবয়েসিরা আজকাল ‘টিন্ডার’ অ্যাপ ব্যবহার করে ডেটিং জগতে পা রাখছেন৷ যদিও পাকিস্তানি সমাজ এখনও এবিষয়ে যথেষ্ট রক্ষণশীল, তাও এই অ্যাপ নতুনভাবে সামাজিক প্রতিবন্ধকতাকে চ্যালেঞ্জ করছে৷

ফায়কা গত দু'বছর ধরে টিন্ডারের নিয়মিত ব্যবহারকারী৷ তাঁর মতে, এই অ্যাপ পাকিস্তানে নারীদের নিজের পছন্দের সঙ্গী বাছাই করার সুযোগ দিচ্ছে৷ তারপরেও, পুরুষরা এখনও নারীদের এতটা স্বাধীনতার সাথে অভ্যস্ত নন৷ এবিষয়ে তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আমি টিন্ডারের মাধ্যমে এমন অনেক পুরুষের সাথে পরিচিত হয়েছি, যারা নিজেদের খোলামনের নারীবাদী বলেন৷ কিন্তু তবুও অনেকে আমায় প্রশ্ন করেন যে আমার মতো তথাকথিত ভদ্র, শিক্ষিত মেয়ে কেন টিন্ডার ব্যবহার করছে৷’’

দক্ষিণ এশিয়ায় বাড়ছে অনলাইন ডেটিং

এখন পর্যন্ত ভারতেই সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হচ্ছে টিন্ডার৷ কিন্তু আস্তে আস্তে এই বাজারে বাড়ছে পাকিস্তানের আগ্রহও৷ ইন্দোনেশিয়ান জার্নাল অফ কমিউনিকেশন স্টাডিজের একটি গবেষণা থেকে জানা গেছে, পাকিস্তানের ইসলামাবাদ, লাহোর ও করাচির ১৮ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি টিন্ডার ব্যবহারকারীরা৷

কিন্তু টিন্ডারের বাজারে ভাগ বসাচ্ছে আরেকটি ডেটিং অ্যাপ ‘মুজম্যাচ’, যার মূল আকর্ষণ হলো ক্যাসুয়াল ডেটিং করতে আগ্রহী ইসলাম ধর্মাবলম্বীদের একে অন্যের সাথে পরিচিত করানো৷ রয়েছে পশ্চিমা দেশগুলিতে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা নারীবাদী অ্যাপ ‘বাম্বল’৷

অ্যাপের বৈচিত্র্যের প্রশ্নে লাহোরের শিক্ষার্থী নিমরা বলেন, ‘‘বাম্বল ব্যবহারকারীদের মধ্যে পুরুষ সংখ্যায় খুব কম৷ তাই সেটা ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি৷ টিন্ডার তুলনায় অনেক বেশি পরিচিত, তাই সেখানে হঠাৎ করে পরিচিত কেউ আমায় খুঁজে বের করেনিতে পারেন, তাই কিছুটা অস্বস্তিতে থাকি৷’’

শিখদের শ্মশানঘাট পাহারায় পাকিস্তানের মুসলিম পরিবার

সমাজ কীভাবে দেখছে?

পাকিস্তানে ক্রমশ নতুন প্রজন্মের পছন্দ অনলাইন ডেটিঙের দিকে ঝুঁকছে, কারণ এতে সামাজিক হস্তক্ষেপ অনেকটাই কম৷

লাহোরের নারী অধিকারকর্মী নাবিহা মেহের শেখ বলেন, ‘‘একটি অনলাইন ডেটিং অ্যাপ নারীর হাতে ক্ষমতা তুলে দেয়৷ সে নিজেই সিদ্ধান্ত নিতে পারে অপরপ্রান্তের মানুষের কাছে তার কী চাওয়া-পাওয়া৷ আমাদের সমাজে এটা জনসমক্ষে করার স্বাধীনতা না থাকায় নারীদের পক্ষে নিজেদের মতো করে সম্পর্ক গড়া কঠিন হয়ে পড়ে৷''

তবুও কিছু নারীরা এখনও খোলামনে টিন্ডার ব্যবহার করা নিয়ে সংশয়ে ভোগেন৷ ২৫ বছরের আলিশবা লাহোরের বাসিন্দা৷ তাঁর মত, ‘‘আমাদের আসল নাম বা ছবি দিলে অনেক সময় পুরুষরা আমাদের পিছু নেয়, আমাদের ধাওয়া করে৷ আমরা পাত্তা না দিলে সোশাল মিডিয়ায় আমাদের খুঁজে বের করে নানা কুপ্রস্তাব দেয়৷’’

২৮ বছরের ফারিহা জানান, ‘‘আমি সব সময় কোনো পাবলিক জায়গায় দেখা করতে পছন্দ করি৷ তাতে নিরাপদ বোধ করি৷ কারণ মাঝেমাঝে আমি দেখি যে কিছু পুরুষ শুধু আমাকে তাদের বাসায় ডাকেন৷ তারা মনে করেন যেহেতু আমি অনলাইন ডেটিং করছি, সুতরাং আমি সব প্রস্তাবেই রাজি হব৷''

পাকিস্তানে সমাজের কিছু অংশ এই ধরনের অ্যাপের জনপ্রিয়তাকে নারীর ক্ষমতায়নের চিহ্ন হিসাবে দেখেন৷ কিন্তু কেউ কেউ মনে করেন, এইসব অ্যাপ লুকিয়ে ব্যবহার করা আসলে লুকিয়ে অন্যায় কাজে লিপ্ত হবার সমান৷

সেহির মির্জা/এসএস

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

Bangladesch Wahlen Wahlkampf 2018 Nationalisten BNP

ভোটের আগে জোট নিয়ে টানাটানি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ
প্রথম পাতায় যান