‘পর্নোগ্রাফি থেকে তরুণদের দূরে রাখা কঠিন′ | পাঠক ভাবনা | DW | 20.02.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘পর্নোগ্রাফি থেকে তরুণদের দূরে রাখা কঠিন'

পর্নোগ্রাফির বিরুদ্ধে ঘোষণা দিয়ে ‘যুদ্ধে' নেমেছেন বাংলাদেশের এক মন্ত্রী৷ বিষয়টি সম্পর্কে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় উঠে এসেছে পাঠকদের মিশ্র প্রতিক্রিয়া৷

মো. রাকিব এই পদক্ষেপের জন্য মন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ সাইফুল ইসলাম থান্দারও বিষয়টি পছন্দ করেছেন এবং স্বাগত জানিয়েছেন৷ খুশি হয়েছেন পাঠক মানিক মাহমুদও৷

তবে মো. আনিস কিন্তু এ ব্যাপারে মোটেই আশাবাদী নন৷ তিনি একটি উদাহরণ দিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘বুড়িগঙ্গা নদীর অবৈধ উচ্ছেদ অভিযান এক সপ্তাহও টেকেনি, মাত্র একটি ফোনেই সব শেষ হয়ে গেছে৷''

যদিও পাঠক সৈয়দ সাইমনের মত এ বিয়য়ে একটু ভিন্ন৷ তিনিমন্ত্রীর এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন৷ তবে তরুণদের দূরে রাখা কঠিন হবে বলে মনে করেন তিনি৷ তাঁর ধারণা, তরুণরা এখন আইপি পরিবর্তন করে বা ভিপিএন দিয়ে অন্যভাবে পর্নসাইটগুলো দেখতে পারে৷

আর আদনান বায়োজিদ মন্তব্য করেছেন, ‘‘পৃথিবীতে শুধুমাত্র বাংলাদেশেই পর্নসাইট বন্ধ করার জন্য মন্ত্রী রয়েছেন৷ তাঁকে নিয়ে আমরা গর্বিত৷''

এদিকে শায়ন শাহ মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে লিখেছেন, ‘‘পর্নসাইট বন্ধ না করে আগে ইউসি ব্রাউজার ও বাংলা চটি সাইটগুলো বন্ধ করুন মন্ত্রী সাহেব৷ আপনার নিষিদ্ধ করা পর্নসাইট অনায়াসে ইউসি ব্রাউজার দিয়ে চালানো যাচ্ছে৷'' শায়ন শাহের মতে, ‘‘ পর্নসাইটের কারণে শিশুরাকুসংসর্গে পড়ে গোল্লায় যাচ্ছে৷ শারীরিক, মানসিক ক্ষতি হচ্ছে ব্যাপকভাবে৷ পড়াশুনার ক্ষতি তো হচ্ছে, সেই সঙ্গে নৈতিকতা, সৃজনশীলতা নষ্ট হচ্ছে৷ চরিত্রহীন হচ্ছে আমাদের যুব সমাজ৷ বাড়ছে পরকীয়া, ভেঙে যাচ্ছে সংসার৷''

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন