পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট নিষিদ্ধের নির্দেশ | বিজ্ঞান পরিবেশ | DW | 28.05.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট নিষিদ্ধের নির্দেশ

পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন টিউনিশিয়ার আদালত৷ সেদেশের ইন্টারনেট সংস্থা এটিআইকে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ চলতি বছরের জানুয়ারিতে টিউনিশিয়া’র সরকার ইন্টারনেটের উপর থেকে কড়াকড়ি তুলে নিয়েছিল৷

Donna con scarpe rosse © francovolpato #29410063

প্রতীকী ছবি

টিউনিশিয়ায় ইন্টারনেট সহজলভ্য হওয়ার পর পর্নোগ্রাফিক সাইটগুলো দ্রুত জনপ্রিয়তা পেতে শুরু করে৷ সেদেশের ওয়েবসাইট বিজনেস নিউজ এর তথ্য অনুযায়ী, টিউনিশিয়ায় সবচেয়ে জনপ্রিয় ১০০টি ওয়েবসাইটের মধ্যে সাতটি সাইটই পর্নোগ্রাফি বিষয়ক৷ এগুলোর মধ্যে পাঁচটি আবার সেরা পঞ্চাশটি আলোচিত ওয়েবসাইটের মধ্যে রয়েছে৷

গত সপ্তাহে তিনজন আইনজীবী পর্নোসাইটের জনপ্রিয়তার বিষয়টি আদালতের নজরে আনেন৷ তাদের দাবি, এসব ওয়েবসাইট তরুণ প্রজন্মের জন্য ক্ষতিকর এবং মুসলিম রীতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ নয়৷

টিউনিশিয়া'র আদালত পর্নোগ্রাফিক সাইট নিষিদ্ধ করার আদেশ বহাল রাখলে তা হবে টিউনিশিয়ায় সদ্য স্বাধীন ইন্টারনেট যোগাযোগে দ্বিতীয় প্রতিবন্ধকতা৷ গত জানুয়ারি মাসে বেন আলী'র পতনের পর টিউনিশিয়ায় ইন্টারনেট ব্যবস্থা মুক্ত হয়েছিল৷

কিন্তু মে মাসের শুরুতে সামরিক ট্রাইব্যুনালের নির্দেশে বেশ কয়েকটি ওয়েবসাইট এবং ফেসবুক প্রোফাইল নিষিদ্ধ করা হয় সেদেশে৷ এজন্য সুনির্দিষ্ট কোন কারণও উল্লেখ করা হয়নি৷ এই সপ্তাহে সেদেশের এক জুনিয়র মন্ত্রীও পদত্যাগ করেছেন৷ পদত্যাগী মন্ত্রী সেলিম আমামো একজন নামজাদা ব্লগার এবং ইন্টারনেট স্বাধীনতার সমর্থক৷ বেন আলী সরকারের পতনের পর ইয়ুথ মন্ত্রী নিযুক্ত হয়েছিলেন তিনি৷

আমামো নতুন করে ইন্টারনেটের উপর নিষেধাজ্ঞার সমালোচনা করেছেন৷ একইসঙ্গে জানিয়েছেন, সরকারের থেকে বেরিয়ে এসে নিজেকে আরো বেশি কর্মক্ষম মনে করছেন তিনি৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন