পরিবহণ ক্ষেত্রে বিপ্লব আনতে পারে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি | অন্বেষণ | DW | 06.08.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অন্বেষণ

পরিবহণ ক্ষেত্রে বিপ্লব আনতে পারে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি

অটোনমাস বা স্বয়ংক্রিয় গাড়ি নিয়ে অনেক পরীক্ষানিরীক্ষা চলছে৷ এর সুবিধা-অসুবিধা নিয়েও অনেক তর্কবিতর্ক চলছে৷ এমন গাড়ির নিরাপত্তা ও সীমাবদ্ধতা বিচার করে সব মিলিয়ে ইতিবাচক এক চিত্রই উঠে আসছে৷

স্বয়ংক্রিয় গাড়ি কীভাবে দুর্ঘটনা এড়াতে পারে? অসংখ্য ক্যামেরা ও সেন্সরের মাধ্যমে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি রাস্তায় চারিদিকে নজর রেখে চলে৷ এভাবে চোখকান খোলা রেখে এমন গাড়ি মানুষের তুলনায় আরও ভালোভাবে বিপদ শনাক্ত করে আরও দ্রুত প্রতিক্রিয়া দেখাতে পারে বলে দাবি করা হচ্ছে৷

এক স্টিরিও ক্যামেরা রাস্তার উপর বিভাজন রেখা, পথচারী ও অন্যান্য যানবাহনের উপর নজর রাখে৷ রাডার সেন্সর গাড়ির আশেপাশে ২০০ মিটার এলাকা পর্যবেক্ষণ করে৷ লেজার রশ্মি গাড়ির সামনের ১৮০ ডিগ্রি কোণে কোনো বস্তুর অস্তিত্ব নথিবদ্ধ করে৷ আলট্রাসাউন্ড সেন্সর পথে বাধাবিপত্তি ও অন্যান্য যানবাহনের সঙ্গে দূরত্ব মেপে চলে৷ নিক্ষেপিত শব্দতরঙ্গ আঘাত করে ফিরে এসে নিখুঁত পরিমাপ করে দেয়৷

সেইসঙ্গে জিপিএস সিস্টেমের সর্বশেষ মানচিত্র তো রয়েছেই৷ এত সাজসরঞ্জাম থাকতে তো আর কোনো বিঘ্ন সম্ভবই নয়, তাই না? সমস্যা হলো, মানুষের মতোই কুয়াশা থাকলে ক্যামেরা একইরকম কম দেখতে পায়৷ প্রবল বৃষ্টি বা তুষারপাত হলে লেজার ও রাডারেও বিঘ্ন ঘটে৷

ভিডিও দেখুন 02:52

কিভাবে চলে স্বয়ংক্রিয় গাড়ি?

এখনো পর্যন্ত সম্পূর্ণ স্বয়ংক্রিয় রোবট গাড়িগুলি ক্যালিফোর্নিয়ার রৌদ্রোজ্জ্বল পথে চালানো হয়েছে৷ কিন্তু এমন গাড়ি সেখানেও দুর্ঘটনায় জড়িয়ে পড়েছে৷ আচমকা অন্ধকার কোণ থেকে এক পথচারী বেরিয়ে এসে স্বয়ংক্রিয় গাড়ির ধাক্কায় মারা গেছেন৷ তবে সাধারণ গাড়ির ক্ষেত্রেও এমন পরিস্থিতি এড়ানো সম্ভব হতো না৷

কম্পিউটারচালিত গাড়িকেও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা কাজে লাগিয়ে মানুষের মতোই বিপজ্জনক পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা নিতে হয়৷ তার জন্য সময় লাগে৷ তবে একটি বিষয় স্পষ্ট হয়ে গেছে৷ স্বয়ংক্রিয় গাড়ি পরিবহণ ব্যবস্থাকে আরও নিরাপদ করে তুলবে৷ প্রায় ৯০ শতাংশ পথ দুর্ঘটনার কারণ মানুষের ত্রুটি৷ কম্পিউটারচালিত গাড়ির ক্ষেত্রে এমনটা হতে পারে না৷ কারণ কম্পিউটার গাড়ি চালাতে চালাতে ঘুমিয়ে পড়ে না, কখনো মাতাল হয় না, ক্রোধে ফেটে পড়ে না৷

স্বয়ংক্রিয় গাড়িতে গাড়ি চালানোর আনন্দ আর থাকবে না বলে অনেকে নালিশ করছেন৷ কিন্তু তার বদলে যাত্রীরা ভবিষ্যতে মনোরঞ্জনের অন্যান্য সুযোগ পেতে চলেছেন৷

আন্দ্রেয়াস নয়হাউস/এসবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন