1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
Bangladesch Außenminister Abdul Momen
ছবি: Abdullah Al Momin/bdnews24.com

পররাষ্ট্রমন্ত্রী কাল ঠিকঠাক, আজ ‘অসুস্থ’ এবং বাদ!

সমীর কুমার দে ঢাকা
৫ সেপ্টেম্বর ২০২২

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতে যাওয়ার ঠিক আগ মুহুর্তে তার সফরসঙ্গীদের তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন৷ বাদ পড়ার কারণ হিসেবে অসুস্থতার কথা বলা হলেও এ নিয়ে চলছে নানান আলোচনা৷

https://p.dw.com/p/4GROM

চারদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে সোমবার সকালে ভারতের রাজধানী নয়া দিল্লিতে গেছেন শেখ হাসিনা৷ পররাষ্ট্র দফতরের কর্মকর্তারা বলছেন, অসুস্থতার কারণে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই সফরে যাননি৷ কিন্তু তারপরও অনেকে মনে করছেন, সাম্প্রতিক সময়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বিতর্কিত মন্তব্যে দুই দেশের সরকার বিব্রতকর অবস্থায় পড়ার বিষয়টি নেপথ্যে কাজ করে থাকতে পারে৷

আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিশ্লেষক ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রুহুল আমিন ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, " (প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফর থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বাদ পড়ার)সঠিক কারণ তো আমাদের পক্ষে জানা কঠিন৷ তবে আমরা ধারণা করতে পারি, স্ট্র্যাটেজিক কারণে হয়ত তিনি বাদ পড়েছেন৷ এটার প্রয়োজন ছিল, দুরদর্শী চিন্তা থেকেই হয়ত প্রধানমন্ত্রী এটা করেছেন৷ তারপরও বলবো, কেন প্রধানমন্ত্রী তাকে রেখে গেছেন- সেটা প্রধানমন্ত্রীই জানেন৷ কিন্তু আমরা ধারণা করি, উনার সাম্প্রতিক সময়ের বক্তব্যে দুই দেশের সরকারই বিব্রতর অবস্থায় পড়েছে৷ উনি যা বলেছেন তা পররাষ্ট্র নীতির মধ্যে একেবারেই পড়ে না৷ ফলে উনাকে রেখে যাওয়ার সিদ্ধান্তটি সঠিক বলেই আমি মনে করি৷” 

স্ট্র্যাটেজিক কারণে হয়ত তিনি বাদ পড়েছেন: ড. রুহুল আমিন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী রবিবার বিকেলেও সাংবাদিকদের বলেছেন, তিনি এই সফরে থাকছেন৷ সোমবার সকালে হঠাৎ করেই দেখা গেল প্রধানমন্ত্রীর সফরে নেই পররাষ্ট্রমন্ত্রী৷ প্রধানমন্ত্রীর সফরসঙ্গীর তালিকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর স্ত্রীও ছিলেন৷ তিনিও যাননি৷ সকাল থেকে এ নিয়ে আলোচনা শুরু হয়৷ মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, রবিবার রাতেই পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার খবরটি পৌঁছানো হয়৷ তবে সকাল থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বা তার দফতরের কেউ এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি৷ ডয়চে ভেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে থেকেযোগাযোগের চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয়েছে৷

হঠাৎ করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাদ পড়ায় প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা? জানতে চাইলে সাবেক পররাষ্ট্র সচিব তৌহিদ হোসেন ডয়চে ভেলেকে বলেন, "একটুও প্রভাব পড়বে না৷ কারণ, এখানে বৈঠক করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী৷ ফলে ছবি তোলা ছাড়া পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কোনো কাজ নেই৷ আর ফাইলপত্রের কাজ করার জন্য কর্মকর্তার অভাব নেই৷ এছাড়া পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী তো আছেনই৷ কেন উনাকে সফর থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে, সেটা তো বাইরে থেকে বলা মুশকিল৷ তবে আমরা ধারণা করতে পারি, সাম্প্রতিক সময়ে দেওয়া উনার মন্তব্যগুলো দুই দেশের জন্যই অস্বস্তিকর ছিল৷ সরকারের তরফ থেকে যেটা বলা হচ্ছে, অসুস্থতার কারণে তিনি এই সফরে যেতে পারেননি৷ আপাতত আমরা এটাই বিশ্বাস করি৷”  

এই ধরনের ঘটনা কি আগে কখনও ঘটেছে? সাবেক রাষ্ট্রদূত ওয়ালিউর রহমান ডয়চে ভেলেকে বলেন, "একেবারে যে ঘটেনি, তা নয়৷ দেশ স্বাধীনের পরপর আমি জেনেভায় ছিলাম৷ একবার বঙ্গবন্ধু জেনেভা সফর করেছিলেন৷ তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার সঙ্গে ছিলেন না৷ কিছুদিন পর আবার যখন সফরে যান তখন পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন৷ তবে হ্যাঁ, গত ৩০-৪০ বছরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী কোনো দেশ সফরে গেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী সব সময় তার সঙ্গেই ছিলেন৷ এবারই ব্যতিক্রম হলো৷ অন্য দেশগুলোতে কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর সফরে পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা খুব বেশি থাকেন না৷ আমরা যখন পররাষ্ট্র দফতরে দায়িত্ব পালন করেছি, তখন মন্ত্রীদের আমরা ১৯৬২ সালের জেনেভা কনভেনশনগুলো, কূটনৈতিক বিষয়ে আগেই বুঝিয়ে দিতাম৷ তাতে তাদের অনেক উপকারও হতো৷ এখন হয়ত মন্ত্রীদের এগুলো বুঝিয়ে দেওয়ার লোকের অভাব দেখা দিয়েছে৷ ফলে তারা যা বলছেন, সেটা কূটনীতিক হচ্ছে না৷”

একটুও প্রভাব পড়বে না: তৌহিদ হোসেন

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও পররাষ্ট্র বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান, সাবেক রাষ্ট্রদূত এম জমির ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘আসলে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে কেন ভারত সফরে প্রধানমন্ত্রী নেননি সেটা একমাত্র প্রধানমন্ত্রীই বলতে পারবেন৷ আমাদের পক্ষে সেটা জানাও সম্ভব না৷ ফলে যেটা আমরা জানি না, তা নিয়ে মন্তব্য না করাই ভালো৷”

সাবেক রাষ্ট্রদূত হুমায়ুন কবীর ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘এবার যে ঘটনাটি ঘটেছে এমনটি আর আগে দেখা যায়নি৷ সবগুলো সফরেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছিলেন৷ আর ভারতের মতো প্রতিবেশী দেশে প্রধানমন্ত্রীর সফরে তো পররাষ্ট্রমন্ত্রী থাকেনই৷ এবার শেষ মুহুর্তে তার নাম বাদ যাওয়ার বিষয়টি নিয়ে খুবই আলোচনা হচ্ছে৷ এখন কেন তাকে বাদ রাখা হলো, সেটা ধারণা করা ছাড়া সুনির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব না৷ আমরা অপেক্ষা করি, দেখি কী জানা যায়?’’

প্রসঙ্গত, প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট সোমবার সকাল ১০টা ১৭ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে৷ প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের দ্বিতীয় দিনে মঙ্গলবার হায়দরাবাদ হাউসে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক আলোচনা এবং একান্ত বৈঠক করার কথা রয়েছে৷ ৮ সেপ্টেম্বর, অর্থাৎ বৃহস্পতিবার দেশে ফেরার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার৷

স্কিপ নেক্সট সেকশন এই বিষয়ে আরো তথ্য

এই বিষয়ে আরো তথ্য

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

সিরীয় প্রেমিককে বিয়ে করার পরিকল্পনা করায় মেয়েকে শ্বাসরোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করেছেন তিবার বাবা৷

ইরাকে পারিবারিক সহিংসতা: এবার বাবার হাতে মেয়ে খুন

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান