পথের কাঁটা সরিয়ে ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হবার দৌড়ে লাশেট | বিশ্ব | DW | 21.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

পথের কাঁটা সরিয়ে ম্যার্কেলের উত্তরসূরি হবার দৌড়ে লাশেট

জার্মানির সাধারণ নির্বাচনে ম্যার্কেলের শিবিরের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হচ্ছেন আরমিন লাশেট৷ প্রবল সমালোচনার মুখে তিনি দলীয় ঐক্য ও জনপ্রিয়তা ফেরানোর অঙ্গীকার করেছেন৷

জার্মানিতে আগামী সেপ্টেম্বর মাসের সাধারণ নির্বাচনের পর চ্যান্সেলর ম্যার্কেলের শূন্যস্থান কে পূরণ করতে পারেন, শেষ পর্যন্ত সেই প্রশ্নের সম্ভাব্য উত্তর স্পষ্ট হয়ে গেল৷ ম্যার্কেলের ইউনিয়ন শিবিরের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হচ্ছেন আরমিন লাশেট৷ সোমবার সবুজ দলও প্রথম বার আনালেনা বেয়ারবক-কে চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে৷ সরকারের ছোট শরিক এসপিডি দল সবার আগে গত বছরই বর্তমান ভাইস চ্যান্সেলর ওলাফ শলৎস-কে চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হিসেবে তুলে ধরেছিল৷ এই তিন রাজনৈতিক শক্তির মধ্যে একটি আগামী সরকারের নেতৃত্ব দেবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ সে ক্ষেত্রে এই তিন ব্যক্তির মধ্যে একজন জার্মানির আগামী চ্যান্সেলর হতে পারেন৷

সমালোচকদের মতে, শুধু জোর খাটিয়ে চ্যান্সেলর পদপ্রার্থীর মর্যাদা ছিনিয়ে নিলেন লাশেট৷ সিডিইউ দলের শীর্ষ নেতা ও নর্থরাইন ওয়েস্টফেলিয়া রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তিনি নিজের দল, ইউনিয়ন শিবির ও গোটা দেশে মোটেই জনপ্রিয় নন৷ তার প্রতিদ্বন্দ্বী বাভেরিয়ার মুখ্যমন্ত্রী ও সিএসইউ দলের শীর্ষ নেতা মার্কুস স্যোডারকেই দুই দলের সম্মিলিত চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হিসেবে দেখতে চেয়েছিলেন বেশিরভাগ মানুষ৷ কিন্তু লাশেট দলের পরিচালনামণ্ডলীর সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের সমর্থন আদায় করে নিজেকেই শিবিরের কাণ্ডারী হিসেবে তুলে ধরলেন৷ মঙ্গলবার স্যোডারও সেই সিদ্ধান্ত মেনে সেই লড়াই থেকে সরে দাঁড়ালেন৷

কাগজেকলমে আরমিন লাশেট আগামী নির্বাচনে সিডিইউ ও সিএসইউ দলের চ্যান্সেলর পদপ্রার্থী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করলেও আগামী কয়েক মাসে তিনি দলীয় কর্মী ও ভোটারদের সমর্থন আদায় করতে কতটা সমর্থ হন, সে বিষয়ে সংশয় প্রকাশ করছেন ঘরে-বাইরের একাধিক নেতা ও বিশেষজ্ঞ৷ লাশেটের প্রার্থীতার খবর প্রকাশিত হবার পর জনমত সমীক্ষায় ইউনিয়ন দলের প্রতি সমর্থন এক ধাপে আরও কমে গেছে৷ সমীক্ষা অনুযায়ী এখনই ভোটগ্রহণ হলে সবুজ দলই সবচেয়ে বেশি আসন পাবে৷

এমন বিরোধিতার মুখে ইউনিয়ন শিবিরে ঐক্যের উপর জোর দিয়েছেন আরমিন লাশেট৷ সমর্থনের জন্য তার জনপ্রিয় প্রতিদ্বন্দ্বী স্যোডারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে তিনি নির্বাচনি প্রচারে স্যোডারের কেন্দ্রীয় ভূমিকার প্রতিশ্রুতি দেন৷ সংঘাতের বদলে আপোশের রাজনীতিতে অভ্যস্ত লাশেট দলীয় ঐক্য ও ভোটারদের আস্থা ফিরিয়ে আনতে কতটা সফল হবেন, মঙ্গলবার থেকেই সেই প্রশ্ন উঠছে৷ এ দিনই এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে তাকে অনেক অপ্রিয় প্রশ্নের জবাব দিতে হয়েছে৷

বিদায়ী চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল লাশেটকে শুভেচ্ছা জানিয়ে আগামী কয়েক মাসে তার সঙ্গে সহযোগিতার অঙ্গীকার করেছেন৷ তিনি অবশ্য সম্ভাব্য উত্তরসূরি বাছাই পর্ব থেকে নিজেকে দূরে রেখেছিলেন৷ লাশেট চ্যান্সেলর হলে ম্যার্কেলের অনেক নীতির ধারাবাহিকতা নিশ্চিত করবেন বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ তবে আন্তর্জাতিক আঙিনায় ম্যার্কেলের শূন্যস্থান পূরণ করার মতো ক্ষমতা অত্যন্ত কঠিন হবে বলে ধরে নেওয়া হচ্ছে৷

এসবি/কেএম (ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়