নৌকা করে ভারত পালাচ্ছিলেন সাহেদ: র‌্যাব | বিশ্ব | DW | 15.07.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

নৌকা করে ভারত পালাচ্ছিলেন সাহেদ: র‌্যাব

বোরকা পরে নৌকায় করে সাতক্ষীরার দেবহাটা সীমান্ত দিয়ে ভারতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ৷

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ বুধবার সকালে ঢাকার পুরাতন বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন৷

চিকিৎসার নামে প্রতারণা আর জালিয়াতির মামলায় এক সপ্তাহ ধরে পলাতক ছিলেন সাহেদ৷ দেবহাটা সীমান্তবর্তী কোমরপুর গ্রামের লবঙ্গবতী নদীর তীর থেকে বুধবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছে র‌্যাব৷ সেখান থেকে তাকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় আনা হয়৷ বাংলাদেশে ডয়চে ভেলের কনটেন্ট পার্টনার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম জানিয়েছে, ঢাকায় আনার সময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর আরেকটি হেলিকপ্টার ছিল সাহেদকে বহন করা হেলিকপ্টারের পাহারায়৷

ঢাকায় নামার পর আশিক বিল্লাহ সংবাদিকদের বলেন, ‘‘বোরকা পরিহিত অবস্থায় নৌকায় করে পাশের দেশে পালিয়ে যাওয়ার সময় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়৷ চেহারা পরিবর্তন করার জন্য সে তার চুলও কালো করে ফেলেছিল৷’’

এদিকে সকালেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সাহেদকে আটকের ছবি ছড়িয়ে পড়ে৷ সেখানে তার কোমরে একটি পিস্তল দেখা যায়৷ আশিক বিল্লাহ জানান, তার কাছে গুলিসহ একটি ‘অবৈধ অস্ত্র’ পাওয়া গেছে৷ ‘‘এ বিষয়ে দেবহাটা থানায় অস্ত্র আইনে একটি মামলা হবে৷’’

উত্তরার এক বাড়িতে অভিযান

গ্রেপ্তারের পর ঢাকার উত্তরার এক বাড়িতে অভিযান শুরু করেছে র‌্যাব৷

বুধবার সকালে উত্তরা ১১ নম্বর সেক্টরের ২০ নম্বর সড়কের ৬২ নম্বর বাড়ির একটি ফ্ল্যাটে এই অভিযান শুরু হয় বলে জানিয়েছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম৷ লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ সংবাদ মাধ্যমটিকে বলেন, ‘‘এটা সাহেদের দ্বিতীয় অফিস৷’’

সাহেদকে গ্রেপ্তারের পর তার কাছে এই ফ্ল্যাটের হদিস মেলে বলে র‌্যাব কর্মকর্তারা জানিয়েছেন৷

কোভিড-১৯ পরীক্ষার প্রতিবেদন নিয়ে প্রতারণার অভিযোগ পাওয়ার পর গত ৬ ও ৭ জুলাই উত্তরার রিজেন্ট হাসপাতাল এবং রিজেন্ট গ্রুপের প্রধান দপ্তরে অভিযান চালায় র‌্যাব৷ ‘কোভিড ডেডিকেটেড’ হাসপাতাল হিসেবে চিকিৎসা দিয়ে আসা হাসপাতালটির লাইসেন্সও ছিল মেয়াদোত্তীর্ণ৷ রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় দায়ের করা ব়্যাবের মামলায় বলা হয়েছে, ভুয়া প্রতিবেদন দিয়ে প্রায় ছয় হাজার লোকের কাছ থেকে দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আদায় করেছে রিজেন্ট৷ ওই মামলায় সাহেদসহ ১৭ জন আসামি৷

এফএস/জেডএইচ (বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

বিজ্ঞাপন