নেপাল, শ্রীলঙ্কায় দলের সরকার চান অমিত শাহ: বিপ্লব দেব | বিশ্ব | DW | 15.02.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বিশ্ব

নেপাল, শ্রীলঙ্কায় দলের সরকার চান অমিত শাহ: বিপ্লব দেব

বোমা ফাটিয়েছেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। তাঁর দাবি, অমিত শাহ নেপাল শ্রীলঙ্কাতেও বিজেপি সরকার চান।

বেফাঁস ও বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্য খ্যাতি আছে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেবের। কিন্তু তিনি এ বার প্রকাশ্যে যে মন্তব্য করেছেন, তাতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ অস্বস্তিতে পড়তে বাধ্য। বিপ্লব বলেছেন, শুধু ভারতেই নয়, অমিত শাহ শ্রীলঙ্কা ও নেপালেও সরকার বানাবার পরিকল্পনা করেছেন। এই পরিকল্পনার কথা অমিত শাহই তাঁকে জানিয়েছেন বলে দাবি মুখ্যমন্ত্রীর। তিনি বলেছেন, অমিত শাহ ত্রিপুরা সফরে এসে রাজ্য নেতাদের সঙ্গে চা চক্রে আলোচনায় বসেছিলেন। সে সময়ই তিনি এই পরিকল্পনার কথা জানান। 

বিপ্লব জানিয়েছেন, তাঁরা রাজ্যের অতিথি নিবাসে বসে আলোচনা করছিলেন। সেসময় অজয় জামোয়াল বলেন, ভারতের প্রায় সব রাজ্যেই বিজেপি সরকার গঠন করেছে। জামোয়াল হলেন বিজেপি-র উত্তর পূর্বের দায়িত্বপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক। মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ''অমিত শাহ তখন বলেছিলেন, শ্রীলঙ্কা ও নেপাল বাকি আছে। ওই দুই দেশে দলকে ছড়িয়ে দিতে হবে। আমাদের সরকার গঠন করতে হবে।''  

এই বিষয়ে আর বিস্তারিতভাবে জানাননি বিপ্লব দেব। এই প্রশ্নেরও কোনো জবাব দেননি যে, বিজেপি-র পক্ষে কী করে নেপাল বা শ্রীলঙ্কায় দলকে ছড়িয়ে দেয়া সম্ভব? কারণ, এটা তো ভারতের কোনো অঙ্গরাজ্যে দলকে ছড়িয়ে দেয়া নয়, দুইটি বিদেশি রাষ্ট্রে দলকে প্রসারিত করা। বিশেষজ্ঞদের মতে, এটা অসম্ভব?

সিপিএম নেতা জিতেন্দ্র চৌধুরী বলেছেন, মুখ্যমন্ত্রী গণতন্ত্র, সংবিধান, বিদেশি রাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্কের বিষয়ে কিছুই বোঝেন না। তবে তিনি যা বলেছেন, তার থেকে বোঝা যাচ্ছে, নেপাল ও শ্রীলঙ্কার অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে চাইছেন অমিত শাহ। এখন মুখ্যমন্ত্রীর মতো গুরুত্বপূর্ণ একজন জানাচ্ছেন, অমিত শাহ কী পরিকল্পনা করেছেন। তাই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে এর জবাব দিতে হবে। 

ত্রিপুরায় কংগ্রেসের সহ সভাপতি তাপস দেবের প্রতিক্রিয়া, ''বিপ্লব দেব দেশবিরোধী কথা বলেছেন। নেপাল ও শ্রীলঙ্কা সার্বভৌম দেশ। আমরা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে পারি না। তাই মুখ্যমন্ত্রী জাতীয়তাবিরোধী কথা বলেছেন।''  

জাতীয় স্তরে ও পশ্চিমবঙ্গের একাধিক বিজেপি নেতার সঙ্গে ডিডাব্লিউ যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তাঁরা এনিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি। 

বিপ্লব দেব অবশ্য অমিত শাহের প্রশংসায় পঞ্চমুখ। তিনি বলেছেন, আগে বামপন্থীরা বলতেন, তাঁরা বিশ্বের সব চেয়ে বড় দল। কিন্তু অমিত শাহ সব রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন। বিজেপি-কে তিনি সব চেয়ে বড় দলে পরিণত করেছেন। তাঁর দাবি, পশ্চিমবঙ্গ, কেরালা, তামিলনাড়ুতে এবার বিজেপি পদ্ম ফোটাতে পারবে এবং সরকার গঠন করবে। 

বিপ্লব দেবের বিতর্কিত মন্তব্য

গত বছরই ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, পাঞ্জাবি ও জাঠেরা শক্তিশালী, কিন্তু বাঙালিদের থেকে তাঁরা কম বুদ্ধিমান। ২০১৯ সালে তিনি বলেন, মুঘল সম্রাটরা ত্রিপুরার সাংস্কৃতিক প্রতীকগুলি বোমা মেরে ধ্বংস করতে চেয়েছিলেন। এটাও জানিয়েছিলেন, হিন্দিকে যাঁরা রাষ্ট্রভাষা হিসাবে চান না, তাঁরা দেশকে ভালোবাসেন না। তাঁর উক্তি ছিল, হাঁস জল পরিশোধনে সাহায্য করে এবং অক্সিজেন বাড়ায়। 

২০১৮ সালে তিনি বলেছিলেন, মুঘল, ব্রিটিশ ও কমিউনিস্টরা ভারতের ঐতিহ্য নষ্ট করার চেষ্টা করেও পারেনি। তবে তাঁর সব চেয়ে বিতর্কিত উক্তি ছিল, ইন্টারনেট ও উপগ্রহ মহাভারতের যুগেও ছিল। 

জিএইচ/এসজি(পিটিআই)