নির্যাতিত নারীদের কল্যাণে ‘ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার′ | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 26.07.2012
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

সমাজ সংস্কৃতি

নির্যাতিত নারীদের কল্যাণে ‘ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার'

ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার বা ওসিসি৷ যেখানে একসঙ্গে পাওয়া যায় চিকিৎসা সেবা, আইনি সহায়তা ও মানসিক কাউন্সিলিং৷ নির্যাতিত নারীদের কল্যাণে ২০০১ সালে চালু হয়েছে ওসিসি'এর সেবা কার্যক্রম৷

মাদ্রাসা পড়ুয়া অষ্টম শ্রেণীর কিশোরী সে৷ রাতের বেলায় নিজের ঘরের দরজায় বসে মোবাইলে গান শুনছিল৷ এমন সময় দুষ্টুমির ছলে তার হাত থেকে মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে রাস্তার দিকে চলে যায় প্রতিবেশী এক তরুণ৷ মোবাইল ফেরত আনতে কিশোরীটিও যায় যুবকের পিছু পিছু৷ তারপর রাস্তায় পৌঁছালে গামছা দিয়ে মুখ বেঁধে তাকে তুলে নিয়ে যায় সেই প্রতিবেশী সহ আরো তিন যুবক৷ এরপর বালিকাটি হয় গণধর্ষণের শিকার৷

মাত্র কয়েক সপ্তাহ আগেই ঘটনাটি ঘটেছে মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায়৷ এই কিশোরীর মতোই ধর্ষণ বা গণধর্ষণের শিকার হয় বাংলাদেশের বহু নারী ও মেয়ে শিশু৷ ধর্ষণ বা অন্য যে কোনোভাবে নির্যাতিত নারীদের চিকিৎসা এবং অন্যান্য সেবা দিতেই বাংলাদেশে রয়েছে ‘ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার' বা ওসিসি৷

‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রাম'-এর আওতায় ২০০১ সাল থেকে কাজ করছে ওসিসি৷ ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রাম'-এর প্রকল্প পরিচালক ড. আবুল হোসেন' জানান, ‘‘শারীরিক নির্যাতন, যৌন নির্যাতন, অ্যাসিড আক্রমণ অথবা অন্য কোনোভাবে নির্যাতনের ফলে যে সমস্ত নারী এবং শিশু অসুস্থ হয়ে পড়ে তাদেরকে বিশেষ সেবা দেয়া হয় এখানে৷''

প্রয়োজনীয় ওসুধ ও খাবার এখানে বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়৷ এছাড়াও যদি কোনো বিশেষ ওসুধের প্রয়োজন হয় যা হাসপাতালে নেই, সেগুলোও ওসিসি'এর নিজস্ব বরাদ্দ থেকে রোগীদেরকে সরবরাহ করা হয় এখানে৷

Bangladesch Frauen

প্রয়োজনী নারীরা যাতে সাহায্য পান, সেটাই কাম্য

চিকিৎসা সেবার পাশাপাশি আইনি সহায়তাও দেয়া হয় ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার থেকে৷

আবুল হোসেন জানান, চিকিৎসাধীন কোনো ব্যাক্তি যদি মামলা করতে চায় তাহলে ওসিসি'এর পক্ষ থেকে পুলিশের সাথে যোগাযোগ করা হয় এবং ওসিসি'এর নিজস্ব আইনজীবী দিয়ে মামলার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র তৈরি করে দেয়া হয়৷

এছাড়া যৌন নির্যাতনের শিকার নারীদের মামলা পরিচালনার জন্য এখানে বিশেষ সহযোগিতা রয়েছে বলেও জানান তিনি৷

বিভিন্নভাবে নির্যাতিত হয়ে আসা নারী ও শিশুদের মানসিক অবস্থার উন্নতির জন্য স্বাস্থ্য সেবা ও আইনি সহায়তার পাশাপাশি ওসিসি'তে রয়েছে মানসিক কাউন্সিলিং'এর ব্যাবস্থাও৷

২০০১ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রথম চালু হয় ওসিসি এর কার্যক্রম৷ পরবর্তীতে অন্যান্য বিভাগীয় মেডিকেল কলেজ এবং ফরিদপুর মেডিকেল কলেজেও ওসিসি এর কার্যক্রম শুরু হয়৷ সব মিলিয়ে বর্তমানে দেশের মোট আটটি মেডিকেল কলেজে চালু রয়েছে এই সেবা৷

এই পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ১৪ হাজার নারীকে ওসিসি এর পক্ষ থেকে বিভিন্ন রকম সহায়তা করা হয়েছে৷ তবে এই সেন্টারে যারা চিকিৎসা সেবা ও আইনি সহায়তা নিতে আসেন তাদের অধিকাংশই তাদের অধিকাংশই অর্থনৈতিকভাবে দরিদ্র এবং খেটে খাওয়া মানুষ বলে জানান প্রকল্প পরিচালক ড. আবুল হোসেন৷

বাংলাদেশ ও ডেনমার্ক সরকারের যৌথ উদ্যোগে শুরু হয় ‘নারী নির্যাতন প্রতিরোধকল্পে মাল্টিসেক্টরাল প্রোগ্রাম' নামক এই প্রকল্পের কাজ৷ সেই প্রকল্পের আওতায়ই কাজ করে যাচ্ছে ‘ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টার' বা ওসিসি৷

প্রতিবেদন: আফরোজা সোমা

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন