নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে জার্মান রাজনীতিবিদের সাজা | বিশ্ব | DW | 13.06.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে জার্মান রাজনীতিবিদের সাজা

স্থানীয় নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় পাঁচজন জার্মান রাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে শাস্তি ঘোষণা করেছে আদালত৷ পাঁচ জনের চারজনই বাম দলের এবং তাঁদের একজন আবার পুটিন অনুরাগী৷ সাজাপ্রাপ্তরা অবশ্য আপিল করতে পারবেন৷

জার্মানির পশ্চিমাঞ্চলের ওসনাব্রুক শহরের আদালত এক রায়ে জানায়, লোয়ার স্যাক্সনি রাজ্যের কোয়াকেনব্রুক সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে ওই পাঁচরাজনীতিবিদের বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগপ্রমাণিত হয়েছে৷ তাই তাঁদের চার জনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মেয়াদের কারাদণ্ড এবং একজনের বিরুদ্ধে অর্থদণ্ড ঘোষণা করা হয়েছে৷ সাজাপ্রাপ্তরা আপিল মামলাতেও হেরে গেলে চারজনকে সাত থেকে আঠারো মাস পর্যন্ত কারাগারে কাটাতে হতে পারে৷ পঞ্চম জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ অন্যদের সহায়তা করার৷ তাই তাঁকে শুধু জরিমানা দিতে হবে৷

রায়ের বিবরণী থেকে জানা যায়, কোয়াকেনব্রুক সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে বাম দল বিস্ময়করভাবে ভালো করায় সন্দেহ জেগেছিল৷ পরে তদন্ত করে দেখা যায়, অনুপস্থিত ভোটারদের হয়ে আবেদনপত্র পেশ করে ব্যালট নেয়া হয়েছিল৷ আবেদনপত্র এবং ব্যালটের সই মেলেনি৷

অথচ অনুপস্থিত ভোটারদের ভোট নির্বাচনে বড় রকমের প্রভাব ফেলেছে৷ দেখা গেছে, অভিযুক্ত পাঁচজনের একজন মোট ৫৫৮ জন অনুপস্থিত ভোটারের ভোট পেলেও এর বাইরে ভোট পেয়েছেন মাত্র ছয়টি৷

সাজাপ্রাপ্ত পাঁচ জনের মধ্যে বাম দলের আঞ্চলিক প্রধান আন্দ্রেয়াস মাউরারও রয়েছেন৷ ৪৮ বছর বয়সি এই রাজনীতিবিদ রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের অনুরাগী হিসেবে পরিচিত৷ তাঁর জন্ম কাজাখস্থানে৷ আশির দশকে জার্মানিতে আসা মাউরার সম্প্রতি রাশিয়া অধিকৃত ক্রাইমিয়া সফর করেছেন৷ মস্কোয় গিয়ে টেলিভিশনে টক শো-তে অংশ নিয়ে পশ্চিমা দেশগুলোর প্রতি রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরোপ করা অবরোধ তুলে নেয়ার আহ্বানও জানান তিনি৷ সেই সফরে পুটিনের সঙ্গে দেখাও করেছেন আন্দ্রেয়াস মাউরার৷

ওসনাব্রুকের আদালত রায় ঘোষণা করার পর মাউরার জানিয়েছেন তিনি মনে করেন, এ রায় রাজনৈতিক প্রভাবযুক্ত৷ তিনি আরো জানান, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন এবং যা-ই ঘটুক রাজনীতিতে সক্রিয়ও থাকবেন৷

মিখাইল বুশুয়েভ, মারকিয়ান ওস্টাপচুক/এসিবি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন