নির্বাচনের পরেই পথের কাঁটা সরাতে তৎপর ট্রাম্প | বিশ্ব | DW | 08.11.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

যুক্তরাষ্ট্র

নির্বাচনের পরেই পথের কাঁটা সরাতে তৎপর ট্রাম্প

মধ্যবর্তী নির্বাচনের পর কোণঠাসা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প অবিলম্বে বিচারমন্ত্রীকে পদত্যাগ করিয়ে নিজের বিরুদ্ধে তদন্ত বানচাল করার চেষ্টা করলেন৷ সংসদের নিম্ন কক্ষে ডেমোক্র্যাটদের জয়ের পর ঝুঁকি কমাতে চান তিনি৷

প্রকাশ্যে এখনো নির্বাচনে সাফল্য নিয়ে গর্ব করছেন ট্রাম্প৷ তবে সেই সাফল্য ব্যক্তির হিসেবে তাঁর নিজের, রিপাবলিকান দলের নয়৷ এক সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প সাফ জানিয়ে দিলেন, তিনি যেসব প্রার্থীর হয়ে প্রচার চালিয়েছেন, তাঁদেরই জয় হয়েছে৷ অন্যদিকে তাঁর ইঙ্গিত ছিল, যাঁরা তাঁর প্রতি যথেষ্ট আনুগত্য দেখাননি, তাঁদের হার হয়েছে৷ ক্ষমতাসীন প্রেসিডেন্টের দল মধ্যবর্তী নির্বাচনে বহুকাল এমন সাফল্য পাননি বলেও দাবি করেন ট্রাম্প৷

সংসদের নিম্ন কক্ষ হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভে বিরোধী ডেমোক্র্যাট দলের জয়ের পর ট্রাম্প তাঁদের অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ এমনকি স্পিকার পদের জন্য সে দলের নেত্রী ন্যান্সি পেলোসি-র প্রতি সমর্থন জানিয়েছেন তিনি৷ ট্রাম্প ঠাট্টা করে বলেন, যদি ডোমোক্র্যাট দলের কিছু সংসদ সদস্য পেলোসি-র পক্ষে ভোট না দেন, রিপাবলিকান দল তাঁকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসবে৷ তবে গঠনমূলক সহযোগিতার প্রত্যাশার পাশাপাশি ট্রাম্প বিরোধী দলের উদ্দেশ্যে প্রচ্ছন্ন হুমকিও দিয়েছেন৷ ট্রাম্প বলেন, তারা যদি তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত বা অন্য কোনো উদ্যোগ নেয়, সে ক্ষেত্রে তিনিও সংঘাতের পথে যেতে প্রস্তুত৷ সে ক্ষেত্রে ওয়াশিংটনে যুদ্ধের মতো পরিবেশ সৃষ্টি হতে পারে বলে সতর্ক করে দেন তিনি৷

পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে ট্রাম্প সত্যি তাঁর বিরুদ্ধে তদন্ত নিয়ে যে উদ্বিগ্ন, বুধবারই তার প্রমাণ পাওয়া গেল৷ তাঁরই উদ্যোগে বিচারমন্ত্রী জেফ সেশনস এ দিন পদত্যাগ করলেন৷ উল্লেখ্য, বেশ কিছুকাল ধরে ট্রাম্প তাঁর বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে সমালোচনা করে চাপ বজায় রেখেছিলেন৷ এফবিআই-এর প্রাক্তন প্রধান রবার্ট মালার ২০১৬ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্প টিমের সঙ্গে রাশিয়ার অবৈধ যোগাযোগ নিয়ে যে তদন্ত চালাচ্ছেন, সে বিষয়ে চরম অস্বস্তিতে ভুগছেন ট্রাম্প৷ সেশনস স্বার্থের সংঘাত এড়াতে বিষয়টি থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে রেখেছিলেন৷ অর্থাৎ, ট্রাম্পকে সাহায্য করার কোনো উদ্যোগ তিনি দেখাননি৷

এবার সেশনস সরিয়ে তাঁরই চিফ অফ স্টাফ ম্যাথিউ উইটেকারকে কার্যনির্বাহী বিচারমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ করলেন ট্রাম্প৷ উইটেকার মালারের সমালোচক হিসেবে পরিচিত৷ তবে সরাসরি রবার্ট মালারকে বরখাস্ত করার ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও তিনি সে কাজ করতে চান না বলে দাবি করছেন ট্রাম্প৷

বিচারমন্ত্রীর আচমকা বিদায়ের সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছে বিরোধী ডেমোক্র্যাটিক দল৷ ন্যান্সি পেলোসি এক টুইট বার্তায় এই পদক্ষেপকে রাশিয়া সংক্রান্ত তদন্ত বানচাল করার প্রচেষ্টা হিসেবে বর্ণনা দেন৷ কার্যনির্বাহী বিচারমন্ত্রীর উদ্দেশ্যেও তিনি স্বার্থের সংঘাত এড়াতে সেই তদন্ত থেকে নিজেকে দূরে রাখার ডাক দেন৷

বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে ট্রাম্প যেভাবে একাধিকবার মেজাজ হারিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে বচসা ও সংঘাতের পথে গেছেন, সেই বিষয়টিরও সমালোচনা হচ্ছে৷ বিশেষ করে সিএনএন-এর সাংবাদিক জিম অ্যাকোস্টার সঙ্গে তাঁর বাকযুদ্ধ অত্যন্ত দৃষ্টিকটু ঘটনা ছিল৷ এই ঘটনার পর হোয়াইট হাউসে তাঁর প্রবেশাধিকার আপাতত প্রত্যাহার করা হয়েছে৷

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, এএফপি)

ভিডিও দেখুন 01:01
এখন লাইভ
01:01 মিনিট

মার্কিন কংগ্রেসে প্রথম দুই মুসলিম নারী

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন