নিরাপত্তার নিশ্চয়তা চান কিম জং উন | বিশ্ব | DW | 25.04.2019
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

রাশিয়া-উত্তর কোরিয়া

নিরাপত্তার নিশ্চয়তা চান কিম জং উন

কোনো দেশের চাপে নয়, আন্তর্জাতিক আইনের মাধ্যমেই কেবল পুরোপুরি পরমাণু নিরস্ত্রীকরণ সম্ভব, বলে মনে করেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিন৷ তাঁর দাবি, একই মত উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনেরও৷

প্রথম রাশিয়া সফরে গিয়ে বৃহস্পতিবার ভ্লাদিভস্তক শহরে পুটিনের সঙ্গে বৈঠক করেন উন৷ এরপর পুটিন বলেন, উত্তর কোরিয়া ‘‘নিরাপত্তা ও সার্বভৌমত্বের নিশ্চয়তা চায়৷''

‘‘আমাদের আন্তর্জাতিক আইনের শক্তি প্রয়োগ করে একটা অবস্থায় পৌঁছাতে হবে, যেখানে সবচেয়ে শক্তিশালী দেশের আইন নয়, বরং আন্তর্জাতিক আইন বৈশ্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে,'' বলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট৷

পুটিন বলেন, তিনি উনের সঙ্গে এই বৈঠক নিয়ে ওয়াশিংটনের সঙ্গেও আলোচনা করবেন৷ ‘‘এখানে লুকোচুরির কোনো বিষয় নেই, কোনো ষড়যন্ত্রের অবকাশ নেই... চেয়ারম্যান কিম এ বিষয়ে আমাদের অবস্থান সম্পর্কে যুক্তরাষ্ট্রকে অবহিত করার অনুরোধ করেছেন,'' বলেন রুশ প্রেসিডেন্ট৷

পুটিন বলেন, তাঁর নিজের ও রাশিয়ার স্বার্থের সঙ্গে মার্কিনিদের স্বার্থের কোনো দ্বন্দ্ব নেই৷ কারণ তাদের লক্ষ্য একটাই, সেটি হলো পরমাণু ‘নিরস্ত্রীকরণ'৷ ‘‘নর্থ কোরিয়ার নেতাও আমাকে বলেছেন যে, তাঁর দৃষ্টিভঙ্গিও একই,'' বলেন পুটিন৷ তবে তাদের নিরাপত্তার নিশ্চয়তা দিতে হবে, এইটুকুই৷ ‘‘আমার মনে হয়, আমরা এ বিষয় নিয়ে ভাবতে পারি,'' বলেন পুটিন৷

কোণঠাসা হলেও আন্তর্জাতিক মঞ্চে উত্তর কোরিয়া যে একা নয়, সে দেশের নেতা কিম জং উন আবার তা প্রমাণ করার চেষ্টা করছেন৷ প্রতিবেশী ও সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সহযোগী দেশ চীনের সঙ্গে নিবিড় সম্পর্কের পাশাপাশি আরেক প্রতিবেশী রাশিয়ার সঙ্গেও সম্পর্ক আরও জোরদার করতে বদ্ধপরিকর উন৷

সেই উদ্যোগের আওতায় তিনি বৃহস্পতিবার রাশিয়ার ভ্লাদিভস্তক শহরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনের সঙ্গে শীর্ষ বৈঠকে বসেছিলেন৷ পুটিন তাঁকে রাশিয়া সফরের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন৷ আলোচনা শেষে উভয়কেই বেশ খোশমেজাজে দেখা গেছে৷

বুধবার উন ট্রেনে করে স্থলসীমান্ত পেরিয়ে রাশিয়া পৌঁছান৷ সীমান্তে খাসান শহরে রাশিয়ার সরকার তাঁকে সাড়ম্বরে স্বাগত জানায়৷ বুধবার রাশিয়ার উপ-প্রধানমন্ত্রী ইউরি ত্রুটনেভ কিম জং উন-এর সম্মানে এক নৈশভোজের আয়োজন করেন৷ শুক্রবারই উনের দেশে ফেরার কথা৷

জেডএ/জেডএইচ (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন