নিরাপত্তার চাদর ভেঙে রাজধানী থেকে অপহৃত শিশু | বিশ্ব | DW | 25.01.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

নিরাপত্তার চাদর ভেঙে রাজধানী থেকে অপহৃত শিশু

আবার অপরহণ৷ আবার দিল্লি৷ স্কুল বাস থেকে এক শিশুকে অপহরণ করল দুষ্কৃতীরা৷ প্রজাতন্ত্র দিবসের একদিন আগে এই ঘটনায় আলোড়ন পড়ে গিয়েছে দিল্লি জুড়ে৷

একেবারে হিন্দি ফিল্মের মতো৷ দুই বাইক আরোহী ড্রাইভারকে গুলি করে স্কুল বাস থেকে নামিয়ে নিয়ে গেল প্রথম শ্রেণির এক শিশুকে৷ দিনে দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে দিল্লির রাজপথে৷ পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি৷ খোঁজ পাওয়া যায়নি শিশুটিরও৷

শুক্রবার ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস৷ যার জেরে ইতিমধ্যেই কার্যত নাকাবন্দি করে ফেলা হয়েছে রাজধানীর সমস্ত রাস্তা৷ রাস্তায় নামানো হয়েছে প্যারামিলিটারি ফোর্স৷ মূলত দু'টি কারণে নিরাপত্তার চাদর এবার অন্যবারের চেয়ে বেশি৷ প্রজাতন্ত্র দিবসের উদযাপনে কেন্দ্রীয় সরকার এশিয়ান সামিটের ১০টি দেশকে নিমন্ত্রণ জানিয়েছে৷ এতগুলি দেশের রাষ্ট্রপ্রধানরা আসবেন বলে অতিরিক্ত নিরাপত্তারক্ষী মোতায়েন করা হয়েছে৷ পাশাপাশি বৃহস্পতিবার মুক্তি পাচ্ছে ‘পদ্মাবত'৷ ছবিটি নিয়ে উত্তর ভারত জুড়ে তোলপার চলছে৷ তাই ছবিটির মুক্তি ঘিরে যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে, সে দিকেও নজর রাখা হয়েছে৷ প্রশ্ন উঠছে, নিরাপত্তার এত ঢক্কানিনাদের পরেও কীভাবে দিনেদুপুরে স্কুল বাস থেকে একটি শিশুকে কিডন্যাপ করা সম্ভব হলো?

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বাসটিতে ২০জন ছাত্র ছিল৷ যে শিশুটিকে অপহরণ করা হয়েছে, তার বোনও ছিল সেখানে৷ স্কুল থেকে ফেরার পথে বাসটিকে মাঝ রাস্তায় দাঁড় করায় দুই বাইক আরোহী৷ চালকের সঙ্গে খানিক বচসা হওয়ার পর তাঁকে গুলি করা হয়৷ এরপর বাসে উঠে শিশুটিকে অপহরণ করা হয়৷ শিশুটিকে নিয়ে বাইকটি চলে যায় উত্তরপ্রদেশের দিকে৷

ঘটনার পরেই শিশুটির পরিবারের তরফে থানায় অভিযোগ জানানো হয়৷ পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনার তদন্তে একটি স্পেশাল টিম তৈরি করা হয়েছে৷ কিন্তু এখনো পর্যন্ত তদন্তের কোনো অগ্রগতি হয়নি৷ মুক্তিপণ চেয়ে শিশুটির পরিবারের কাছেও কোনো ফোন আসেনি৷ পুলিশের ধারণা, যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে, তারা পরিবারটির পরিচিত৷ শিশুটির দৈনিক রুটিন তাদের জানা৷ সে কারণেই মাঝপথে স্কুল বাস থেকে শিশুটিকে অপহরণ করা হয়৷

গত কয়েকবছরে একের পর এক অপহরণের ঘটনা ঘটেছে দিল্লিতে৷ ২০১৭ সালে ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী, গত এক বছরে ৬,৯৮২জন অপহৃত হয়েছে৷ যার ৪০ শতাংশই শিশু, যাদের বয়স ৬ থেকে ১২ বছরের মধ্যে৷ রিপোর্টে বলা হয়েছিল, কোনো রাজধানী শহরের পক্ষে বিষয়টি নিন্দার এবং আশঙ্কার৷ আশঙ্কা যে কাটেনি এদিনের ঘটনাতেই তা স্পষ্ট৷

বস্তুত, গত বছরের অগস্টে দিল্লির রোহিনী অঞ্চল থেকে একটি শিশুর অপহরণের ঘটনাকে কেন্দ্র তোলপার হয়েছিল রাজধানী৷ অভিযোগ, বাড়ির সামনে থেকে দুই যুবক অপহরণ করেছিল ওই শিশুটিকে৷ থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে শিশুটির মাকে বলা হয়, তাঁর গাফিলতির জন্য শিশুটি হারিয়ে গেছে৷ প্রাথমিক ভাবে থানা অভিযোগ দায়েরও করতে চায়নি৷ পরবর্তীকালে সিসিটিভি ফুটেজ দেখে জানা যায় যে, দুই যুবক শিশুটিকে অপহরণ করেছে৷ অপহরণ নিয়ে দিল্লি পুলিশের গা ছাড়া মনোভাব নিয়ে সে সময় বহু সমালোচনা হয়েছিল৷

বৃহস্পতিবারের ঘটনা প্রমাণ করল, দিল্লি পুলিশ এখনো বদলায়নি৷ স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, নিরাপত্তার চাদর কেবল ভিআইপি-দের জন্যই, সাধারণ মানুষ সেই তিমিরেই৷

এসজি/ডিজি (ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস, টাইমস অফ ইন্ডিয়া, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন