নিকারাগুয়ার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ অ্যামেরিকার | বিশ্ব | DW | 17.11.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

অ্যামেরিকা

নিকারাগুয়ার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ অ্যামেরিকার

নিকারাগুয়ার প্রেসিডেন্ট-সহ একাধিক ব্যক্তির বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন জো বাইডেন। তারা কেউ অ্যামেরিকায় প্রবেশ করতে পারবেন না।

নভেম্বরেই নির্বাচন হয়েছে নিকারাগুয়ায়। অভিযোগ, চতুর্থবার ক্ষমতায় আসার জন্য ব্যাপক কারচুপি করেছেন প্রেসিডেন্ট ড্যানিয়েল ওর্তেগা এবং তার দল। বিরোধীদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এরই ভিত্তিতে নিকারাগুয়ার প্রেসিডেন্ট এবং অন্য কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে বিশেষ ব্যবস্থা নিল অ্যামেরিকা।

মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন একটি ডিক্রিতে সই করেছেন। সেখানে বলা হয়েছে, নিকারাগুয়ার প্রেসিডেন্ট, তার স্ত্রী, দেশের সমস্ত নির্বাচিত প্রতিনিধি এবং বিচারপতি, সেনা কর্মকর্তা, পুলিশ কেউ অ্যামেরিকায় প্রবেশ করতে পারবেন না। কারণ, নিকারাগুয়ায় যেভাবে নির্বাচন হয়েছে, অ্যামেরিকা তা সমর্থন করে না। সেখানে ব্যাপকভাবে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে বলেও অভিযোগ।

অভিযোগ, নির্বাচনের আগে বিরোধীদের গ্রেপ্তার করে জেলে ঢুকিয়ে দিয়েছেন বর্তমান প্রেসিডেন্ট। যারাই তার বিরুদ্ধে দাঁড়িয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বহু রাজনৈতিক কর্মীকে কোনো কারণ না দেখিয়ে জেলে ঢোকানো হয়েছে। জেলে তাদের সঙ্গে অন্যায় ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ। জেলগুলির অবস্থা বেশ খারাপ বলেও জানিয়েছেন বিরোধী রাজনীতিকরা।

ওর্তেগা অবশ্য কোনো অভিযোগই মানছেন না। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগও তিনি স্বীকার করেননি। কিন্তু অ্যামেরিকা আরো কড়া নিষেধাজ্ঞার হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে। নিকারাগুয়ার সঙ্গে কোনোরকম সম্পর্ক রাখা হবে না বলে জানিয়েছে তারা।

অ্যামেরিকার সঙ্গে নিকারাগুয়ার সম্পর্ক আগেও ভালো ছিল না। ১৯৭০ সালে বামপন্থি ওর্তেগা নিকারাগুয়ার মার্কিনপন্থি একনায়ককে সরিয়ে ক্ষমতা দখল করেছিলেন। এরপর মাঝে বেশ কিছুদিন ক্ষমতায় ছিলেন না তিনি। ২০০৭ থেকে টানা ক্ষমতায় তিনি। নিকারাগুয়াকে সমর্থন করে তিনটি দেশ। রাশিয়া, কিউবা এবং ভেনেজুয়েলা।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি)