নারীদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে তালেবান: জাতিসংঘ | বিশ্ব | DW | 25.08.2021

ডয়চে ভেলের নতুন ওয়েবসাইট ভিজিট করুন

dw.com এর বেটা সংস্করণ ভিজিট করুন৷ আমাদের কাজ এখনো শেষ হয়নি! আপনার মতামত সাইটটিকে আরো সমৃদ্ধ করতে পারে৷

  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আফগানিস্তান

নারীদের উপর অত্যাচার চালাচ্ছে তালেবান: জাতিসংঘ

গুরুত্বপূর্ণ রিপোর্ট দিলেন জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান। জানালেন, বিভিন্ন এলাকায় তালেবান সহিংস আক্রমণ শুরু করেছে।

আফগানিস্তান দখল করার পর কাবুলে বসে তালেবান মুখপাত্র বলেছিলেন, মানবাধিকারের বিষয়টি খেয়াল রাখা হবে। শরিয়ত আইন মেনে নারীদের অধিকার রক্ষা করা হবে। সহিংস শাস্তি দেওয়া হবে না। এতদিন যারা বিদেশি সংস্থার সঙ্গে কাজ করেছেন, তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে না। কিন্তু বাস্তব পরিস্থিতি তেমন নয় বলে জরুরি রিপোর্ট পেশ করলেন জাতিসংঘের মানবাধিকার প্রধান মিশেল ব্যাশেলেট। মঙ্গলবার তিনি জানিয়েছেন, আফগানিস্তান থেকে ভয়াবহ তথ্য এসে পৌঁছেছে তার হাতে।

কী আছে রিপোর্টে

মিশেল জানিয়েছেন, বিভিন্ন এলাকা থেকে তার কাছে খবর আসছে। নারীদের বাড়ি থেকে বেরতে দেওয়া হচ্ছে না। ছোট ছোট মেয়েদের স্কুলে যেতে দেওয়া হচ্ছে না। বিদেশি সংস্থায় কাজ করা আফগানদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। তাদের মারধর করা হচ্ছে। আফগান সেনায় কাজ করা ব্যক্তিদের রাস্তায় সর্বসমক্ষে হত্যা করা হচ্ছে। নাবালকদের তালেবান বাহিনীতে যোগ দিতে বাধ্য করা হচ্ছে।

মিশেল জানিয়েছেন, বিশেষ করে নারী অধিকারের বিষয়টি তারা সবচেয়ে গুরুত্ব দিয়ে দেখছেন। তালেবান জানিয়েছিল, নারী অধিকার প্রসঙ্গে গতবারের মতো অবস্থান তারা নেবে না। কিন্তু বাস্তব রিপোর্ট তার সঙ্গে মিলছে না বলেই তিনি খবর পাচ্ছেন।

আফগানিস্তানের সংখ্যালঘু জনগোষ্ঠী ও ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সঙ্গেও সহিংস আচরণ করা হচ্ছে বলে জাতিসংঘের কাছে রিপোর্ট এসেছে। এই প্রতিটি বিষয়ই অত্যন্ত চিন্তার কারণ বলে জানিয়েছেন মিশেল। মানবাধিকার নিয়ে মঙ্গলবার জাতিসংঘের বিশেষ বৈঠক তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। পাকিস্তান এবং অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কর্পোরেশনের যৌথ আবেদনে ওই সভার আয়োজন করা হয়েছিল।

জাতিসংঘ জানিয়েছে, জাতিসংঘের মানবাধিকার সংগঠন আফগানিস্তানে কাজ করছে। এই রিপোর্ট পাওয়ার পরে তাদের আরো সতর্ক হতে বলা হয়েছে। সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এসজি/জিএইচ (রয়টার্স, এপি, এএফপি, ডিপিএ)

সংশ্লিষ্ট বিষয়