নাইরোবিতে সৌরশক্তি থেকে বৈদ্যুতিক গাড়ি, সবই পাবেন | অন্বেষণ | DW | 03.04.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

নাইরোবিতে সৌরশক্তি থেকে বৈদ্যুতিক গাড়ি, সবই পাবেন

কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে একদিকে যেমন দারিদ্র্য ও অনগ্রসরতা, অন্যদিকে তেমন গার্ডেন সিটির মতো আবাসিক এলাকায় কার পার্কের মাথায় সোলার প্যানেল বসানো; আবার রেস্টুরেন্টের ময়লা বেসমেন্টে নিয়ে গিয়ে আলাদা করা হয়৷

সকালে চায়ের জল গরম করার সময়েও আইদা মুনেনের মুখে হাসি ফোটে – কেননা তাঁর ফ্ল্যাটে গরম পানির খরচ ৩০ শতাংশ কমে গেছে, যা খুব কম নয়৷ গত বছরের শেষদিক থেকে মুনেনে কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবির উত্তরে অবস্থিত গার্ডেন সিটি-তে বাস করছেন৷ অভিজাত, উচ্চবিত্ত এলাকা৷ এখানে যুগপৎ পরিবেশ সুরক্ষা ও বাসিন্দাদের খরচ কমানোর একটি নতুন উদ্যোগ চলেছে৷

আবাসিক এলাকাটির আসে কাছের একটি বহুতল কার পার্কের ছাদ থেকে৷ ব্যবসায়ী ও ফ্ল্যাটের মালিক আইদা রজব মুনেনে জানালেন, ‘‘দিনে ভালো রোদ্দুর থাকলে গোটা ফ্ল্যাটে গরম পানির ব্যবস্থা হয়ে যায়৷ আকাশে মেঘ থাকলে হিটার কাজ করে ও তা থেকে গরম পানি পাওয়া যায়৷ তবে সাধারণত আমাদের হিটার ব্যবহার করার দরকার পড়ে না৷ সূর্যের আলো থেকেই সারা ফ্ল্যাটে পানি গরম হয়ে যায়৷''

ভিডিও দেখুন 05:12
এখন লাইভ
05:12 মিনিট

যে শহরে সবই পাবেন

 গার্ডেন সিটি একটি আদর্শ পরিবেশবান্ধব প্রকল্প – যেমন তার নকশা ও নির্মাণে, তেমনই তার আবর্জনা ফেলার ব্যবস্থায়৷ আবাসিক এলাকায় প্রতিদিন যে ময়লা ফেলা হয়, তার সবটা গিয়ে জমা হয় পাশের গার্ডেন সিটি শপিং সেন্টারে – যেখানে অবস্থাপন্নেরা বাজার করে থাকেন৷

শপিং সেন্টারের বাড়িটি কেনিয়ার সবচেয়ে পরিবেশবান্ধব ভবনগুলির মধ্যে গণ্য, বলে তার ম্যানেজারের দাবি৷ প্লাস্টিকের কাপ, স্ট্র, প্যাকেজিং, রেস্টুরেন্ট থেকে ফেলা খাবারদাবার, সব গিয়ে জমা হয় শপিং সেন্টারের বেসমেন্টে৷ সেখানে হাতে করে বিভিন্ন ধরনের ময়লা আলাদা করা হয়৷ কার্ডবোর্ড আর কার্টনগুলি যায় কাগজের স্তূপে; টি-ব্যাগ যায় অরগ্যানিক ময়লা ফেলার বিন-এ; পানীয়ের ক্যান যায় ধাতুর দিকে; পিইটি বোতলগুলো জমা হয় প্লাস্টিক হিসেবে – প্রচুর কাজ৷

শেখা ও শেখানো

গার্ডেন সিটি শপিং সেন্টারের ম্যানেজার এডউইন মুগাম্বি বললেন, ‘‘এদেশে আমরা এখনও শিখছি: কাজেই আমাদের গ্রাহকরা সব কিছু মিশিয়ে ফেলেন, যে কারণে আমাদের হাতে করে সব কিছু আলাদা করতে হয়৷ কিন্তু আমরা গ্রাহকদের ক্রমাগত সচেতন করছি, বর্জ্য আলাদা করার শিক্ষা দিচ্ছি৷ কাজেই আমরা এক বছরের মধ্যে বর্জ্য আলাদা করার প্রাথমিক পর্যায়ে পৌঁছে যাব বলে আমাদের আশা৷''

পার্কিং গ্যারেজের ছাদে প্রায় ৩,০০০ সোলার প্যানেল বসিয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ সোলার ইনস্টলেশনটি আফ্রিকার বৃহত্তম সোলার ইনস্টলেশনগুলির মধ্যে পড়ে৷ এছাড়া সোলার প্যানেলের ছাদের নীচে রাখা গাড়িগুলোও গরম হয় না৷ আর একটা সুবিধেও আছে, বলে মুগাম্বি অভিমত প্রকাশ করলেন: ‘‘সোলার প্যানেলের চাহিদা যতো বাড়বে, তাদের দামও ততো কমবে, যার ফলে আরো অনেক মানুষ সেগুলো কিনতে পারবেন ও প্রকৃতিদত্ত সূর্যালোক ব্যবহার করে নিজেদের বাড়িতে বিদ্যুৎ পেতে পারবেন৷''

বিনিয়োগের অর্থ আসে ও মুনাফা যায় শিল্পোন্নত দেশে

কেনিয়ায় বাড়ির ছাদে সোলার প্যানেল এখনও খুব কমই দেখা যায়৷ শপিং সেন্টারের কার পার্কের সোলার ইউনিটের টাকাও এসেছে শিল্পোন্নত দেশগুলির বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে৷ যে কারণে প্রকল্পের আর্থিক মুনাফা কেনিয়ায় থাকে না৷ ক্রসবাউন্ডারি সংস্থার ম্যানেজিং পার্টনার ম্যাট টিলিয়ার্ড জানালেন, ‘‘আমাদের বিনিয়োগকারীরা সবাই অ্যামেরিকা, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাজ্যে থাকেন৷ আমাদের সোলার ফান্ড ও অন্যান্য বিনিয়োগের জন্য পূর্ব আফ্রিকা থেকে পুঁজি সংগ্রহ করতে পারলে খুবই ভালো হতো, কিন্তু বাস্তব এই যে, আসল পুঁজি শিল্পোন্নত দেশগুলিতেই রয়েছে৷ কাজেই বাইরে থেকে পুঁজি আনা ভবিষ্যতেও আমাদের কাজের একটা বড় অঙ্গ থাকবে৷''

আগামীতে গার্ডেন সিটি শপিং সেন্টারের কার পার্কের প্রতিটি সোলার পার্কিং স্পটে ইলেকট্রিক কার-এর জন্য চার্জিং স্টেশন থাকবে – আফ্রিকায় যা অভিনব বললেও কম বলা হয়৷

আইদা রজব মুনেনের মতে, ‘‘বিশেষ করে নাইরোবির বিজনেস এলাকায়  যদি বৈদ্যুতিক গাড়ির জন্য আরো বেশি ব্যাটারি চার্জ করার স্টেশন থাকত,তাহলে বেশ ভালো হতো৷ অন্য সব শপিং মল-গুলোও সেই ব্যবস্থা করতে পারে – তাহলে খুব ভালো হয়, বলে আমার ধারণা৷ নাইরোবিতে প্রচুর যানবাহন, কাজেই বেশি ইলেকট্রিক কার চললে বায়ুদূষণও কম হবে৷''

মানুয়েল ওসারকেস/এসি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

বিজ্ঞাপন