নতুন রেকর্ড আওয়ামী লীগের, ভোট পড়েছে ৮০ শতাংশ | বিশ্ব | DW | 31.12.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জাতীয় সংসদ নির্বাচন

নতুন রেকর্ড আওয়ামী লীগের, ভোট পড়েছে ৮০ শতাংশ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ বিজয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ৷ নতুন রেকর্ড গড়ে এই বিজয়ের মধ্য দিয়ে টানা তৃতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা৷

একাদশ সংসদ নির্বাচনে নির্বাচন কমিশন ২৯৮টি আসনের বেসরকারি ফলাফল ঘোষণা করেছে। ২৫৯টি আসনে জয় পেয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ৷ সবমিলিয়ে মাত্র ৭টি আসনে জয় পেয়েছে ধানের শীষের প্রার্থীরা; তাদের চেয়ে বেশি আসন পেয়েছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের অন্যতম অংশীদার জাতীয় পার্টি ২০টি৷

লাঙ্গল প্রতীকে জয়ী ২০টি আসন নিয়ে দৃশ্যত আবারও সংসদে বিরোধী দলের আসনে বসতে যাচ্ছে এইচ এম এরশাদের দল৷ এবার ঘোষিত ২৯৮টি আসনের মধ্যে আওয়ামী লীগ এককভাবে পেয়েছে ২৫৯টি আসন, আর মহাজোটগতভাবে তাদের আসন সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮৮টি৷

১৪ দলীয় জোটের দলগুলোর মধ্যে জাসদ ২টি, ওয়ার্কার্স পার্টি ৩টি, বিকল্প ধারা ২টি, তরীকত ফেডারেশন ১টি আসনে জিতেছে৷ এর বাইরে আওয়ামী লীগের মিত্র দল জাতীয় পার্টি (জেপি) বাইসাইকেল প্রতীকে একটি আসনে জিতেছে৷

প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা বলছেন, ভোট নিয়ে তিনি তৃপ্ত-সন্তুষ্ট৷ ভোটে কোনো অনিয়ম হয়নি৷ ভোটে তাঁরা লজ্জিত নন৷ একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচন হয়েছে৷ নির্বাচন কমিশনার বলেন, এবারের নির্বাচনে ৮০ শতাংশের মতো লোক ভোট পড়েছে৷ অনিয়মের কারণে ১৬টি কেন্দ্রের ভোট বন্ধ করা হয়েছে৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২ আসনের ফল স্থগিত রাখা হয়েছে৷

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মধ্যে বিএনপি ৫টি আসনে জিতেছে, গণফোরাম দুটি আসতে জিতেছে৷ তিনটি আসনে জিতেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থীরা; তাদের দুজন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী, আরেকজন খালেদা জিয়ার আসনে বিএনপির সমর্থন পেয়েছিলেন৷

ভোটের হার কত, সে বিষয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে কিছু জানায়নি ইসি; তবে ইসি কর্মকর্তারা বলছেন, এটা ৮০ শতাংশের কাছাকাছি হবে৷

দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে সংসদের বাইরে থাকা বিএনপি এবার ভোটে অংশ নিলেও সংসদে প্রধান বিরোধী দলের আসনেও ফিরতে পারছে না৷ ভোটের ফল প্রত্যাখ্যান করার ঘোষণা দেওয়া বিএনপি যারা সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন, তাদের শপথ না নেওয়ার ইঙ্গিত মিলেছে দলটির নেতাদের কথায়৷ সেক্ষেত্রে ওই আসনগুলোতে উপনির্বাচনের সম্ভাবনা থেকেই যায়৷

বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ভোটগ্রহণ শেষ হওয়ার পরপরই ফল প্রত্যাখ্যান করে পুনঃনির্বাচনের দাবি তুলেছে৷ এ নির্বাচন জাতিকে ভবিষ্যতে ‘সমস্যায় ফেলবে' বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর৷ তিনি বলেছেন, ‘‘অনেকে মনে করে, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না যাওয়াটা ভুল ছিল, আজকের নির্বাচন প্রমাণ করল যে, সেটা ভুল ছিল না৷''

৭০০ কোটি টাকা ব্যয়ের এই নির্বাচনে বিভিন্ন স্থানে সহিংসতায় অন্তত ১৭ জনের মৃত্যু এবং বিরোধী জোটের ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগের মধ্যে দিনভর ভোটগ্রহণ চলে৷ ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থীর মৃত্যুতে গাইবান্ধা-৩ আসনের ভোট আগেই স্থগিত হয়েছিল৷ তিনটি কেন্দ্রের ভোট স্থগিত হওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের ফল স্থগিত করা হয়েছে রোববার৷ ওই কেন্দ্রগুলোতে নতুন করে ভোট হওয়ার পর ফল ঘোষণা হবে বলে ইসি জানিয়েছে৷

বাংলাদেশের ইতিহাসে এর আগে এর চেয়ে বেশি সংখ্যক আসন নিয়ে সরকার গঠন করেছিলেন একমাত্র বঙ্গবন্ধু; ১৯৭৩ সালের প্রথম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ২৯৩টি আসনে জয় পেয়েছিল৷

বিরোধী দলবিহীন ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বিতর্কিত ষষ্ঠ সংসদ নির্বাচনে বিএনপি ২৭৮ আসনে জিতেছিল৷ এরশাদ আমলে ১৯৮৮ সালের চতুর্থ সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টি ২৫১টি আসন পেয়েছিল৷ ২০১৪ সালের দশম সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পেয়েছিল ২৩৪টি আসন৷

তবে ওই তিনটি নির্বাচনের কোনোটিতেই সব দলের অংশগ্রহণ ছিল না৷ এবার সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচনে ২০০৮ ও ২০১৪ সালের নির্বাচনের চেয়েও বেশি আসন পেয়েছে আওয়ামী লীগ৷

এপিবি (সূত্র: বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন