নওয়াজ শরিফ আটক, পাসপোর্ট জব্দ | বিশ্ব | DW | 13.07.2018
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাকিস্তান

নওয়াজ শরিফ আটক, পাসপোর্ট জব্দ

দুর্নীতির অভিযোগের দণ্ড মাথায় নিয়ে দেশে ফেরার পর লাহোর বিমানবন্দর থেকে আটক হয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ ও তাঁর মেয়ে মরিয়ম৷ তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয়েছে ইসলামাবাদে৷

গত সপ্তাহে পাকিস্তানের একটি আদালত নওয়াজ শরীফকে ১০ বছর ও তাঁর মেয়ে মরিয়মকে সাত বছরের কারাদণ্ড দেয়৷ সেই দণ্ড মাথায় নিয়েই শুক্রবার দেশে ফিরলেন নওয়াজ৷

আগে থেকেই পুলিশ এবং ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরো (এনএবি)-র প্রস্তুতি ছিল, দেশে ফিরলেই নওয়াজ ও তাঁর মেয়েকে গ্রেপ্তার করার৷

শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত আনুমানিক পৌনে নয়টার দিকে বিমান অবতরণের পরই আইন-শৃ্ঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা প্লেনে উঠে অন্য যাত্রীদের নেমে যেতে অনুরোধ করেন৷ এরপর নওয়াজ ও তাঁর মেয়ের পাসপোর্ট জব্দ করে ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন ব্যুরো৷

এরপর একটি ছোট প্রাইভেট প্লেনে করে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় ইসলামাবাদে৷ নওয়াজের দেশে ফেরার খবরে বিমানবন্দরের বাইরে জড়ো হন নওয়াজের দল পিএমএল-এন-এর হাজার হাজার কর্মী ও সমর্থক৷

লাহোরের বিভিন্ন সড়কে পিএমএল-এন কর্মীরা অবস্থান নেয়ায় শহরের বড় একটি অংশ প্রায় অচল হয়ে পড়েছে৷ অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে মোতায়েন করা হয়েছে বিভিন্ন আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অতিরিক্ত সদস্য৷

এর আগে গত ৬ জুলাই লন্ডনে চারটি বিলাসবহুল বাড়ির মালিকানা বিষয়ক দুর্নীতি মামলায় নওয়াজ ও তাঁর মেয়েকে দোষীসাব্যস্ত করে রায় দেয় আদালত৷

রায়ে কারাদণ্ডের পাশাপাশি  নওয়াজকে ১ কোটি ৫০ লাখ পাউন্ড এবং মরিয়মকে ২০ লাখ পাউন্ড জরিমানাও করা হয়েছে৷ লন্ডনে তাঁর পরিবারের সব সম্পত্তি জব্দ করার নির্দেশও দিয়েছে আদালত৷

অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গত কয়েক মাস ধরে নওয়াজ ও মরিয়ম লন্ডনে বসবাস করছেন৷ তাঁদের অনুপস্থিতিতেই আদালত ওই রায় ঘোষণা করে৷

নওয়াজ শরীফ অবশ্য তাঁর বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ তাঁর দাবি, আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে তাঁর অংশগ্রহণ ঠেকাতে সেনাবাহিনীই এ ষড়যন্ত্র করছে৷

এডিকে/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন