ধারণার চেয়ে কম ঋণে লড়ছে জার্মানি | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 20.01.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

জার্মানি

ধারণার চেয়ে কম ঋণে লড়ছে জার্মানি

২০২০ সালে করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতি চলমান রাখতে সরকারকে ২২ লাখ ৩৮ হাজার কোটি টাকার নতুন ঋণ অনুমোদন করেছিল সংসদ৷ কিন্তু সরকার ১৩ লাখ ৪৪ হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে বলে মঙ্গলবার প্রকাশিত তথ্যে জানা গেছে৷

করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন কোম্পানিকে সহায়তা দিতে এবং রাজস্ব আদায় কম হওয়ায় সরকার চালাতে এই ঋণ নিতে হয়েছে৷

জাতীয় পরিসংখ্যান কার্যালয় গত সপ্তাহে জানায়, ২০২০ সালে জার্মানির জিডিপি কমেছে পাঁচ শতাংশ, যা ২০০৯ সালের অর্থনৈতিক সংকটের সময়ের চেয়ে কম৷ ঐ সময় জিডিপি কমেছিল ৫.৭ শতাংশ৷

করোনা মহামারি শেষ হলে জি-সেভেন দেশগুলোর মধ্যে জার্মানির ডেট রেশিও, অর্থাৎ অনুপাত (মোট সম্পদে ঋণের পরিমাণ) সবচেয়ে কম থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে৷

জার্মানির অর্থমন্ত্রী ওলাফ শলৎস এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘‘আমরা দ্রুত ও সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়ায় জার্মানি তুলনামূলক ভালো অবস্থায় আছে৷ স্বাস্থ্যরক্ষা, ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো রক্ষা করা ও চাকরি ধরে রাখতে আমরা অনেক অর্থ ব্যয় করেছি৷ এ কারণে অনেক সুবিধা হয়েছে৷ অর্থনৈতিক উন্নয়ন কিছুটা ভালো অবস্থায় আছে, অল্পসংখ্যক মানুষ চাকরি হারিয়েছে এবং যত নতুন ঋণ লাগবে মনে হয়েছিল তার চেয়ে কম ঋণে কাজ হয়ে গেছে৷''

তবে ২০২১ সালে নতুন ঋণের পরিমাণ ২০২০ সালের চেয়ে বেশি হতে পারে৷ কারণ, বাজেটে ১৮ লাখ ৪৯ হাজার কোটি টাকা নতুন ঋণ চাওয়া হতে পারে৷

কোম্পানি ও চাকরিজীবীদের সুরক্ষায় সরকার প্রায় এক কোটি তিন লাখ কোটি টাকা (এক ট্রিলিয়ন ইউরো) ব্যয়ের অঙ্গীকার করেছে৷

জেডএইচ/এসিবি (রয়টার্স, এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন