ধর্ষকদের ‘নপুংসক’ করার পক্ষে ইমরান খান | বিশ্ব | DW | 16.09.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

পাকিস্তান

ধর্ষকদের ‘নপুংসক’ করার পক্ষে ইমরান খান

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান মনে করেন ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে জনসমক্ষে ফাঁসি অথবা নপুংসক করে দেওয়ার মতো আইন থাকা প্রয়োজন৷ গত সপ্তাহে দেশটিতে একটি ধর্ষণের ঘটনায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ মন্তব্য করেন৷

লাহোরের পাশ্ববর্তী হাইওয়েতে গাড়ি চালিয়ে যাওয়ার সময় এক দুই সন্তানের মা-কে দুর্বৃত্তরা ধর্ষণ করে৷

এ ঘটনায় দেশজুড়ে তীব্র প্রতিবাদ ছড়িয়ে পড়ে৷

ইমরান খান বলেন, ধর্ষকদের জনসমক্ষে ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মারা উচিত৷ তবে এ ধরনের আইন জিএসপির আওতায় পাকিস্তানকে ইউরোপীয় ইউনয়ন (ইইউ)-এর দেওয়া ব্যবসায়িক সুবিধাকে ক্ষতিগ্রস্ত করবে বলেও মনে করেন তিনি৷

ইউরোপীয় ইউনিয়ন ২০১৪ সালে পাকিস্তানকে জিএসপি সুবিধা প্রদান করে, যার আওতায় দেশটি বেশকিছু পণ্য শুল্কমুক্ত সুবিধায় ইউরোপের দেশগুলোতে রপ্তানি করছে৷ তবে এ সুবিধা দেশটির মানবাধিকার পরিস্থিতির সাথে সম্পর্কযুক্ত৷ অর্থাৎ, মানবাধিকার লংঘনের মতো অপরাধের জন্য এ সুবিধা বাতিল করেতে পারে ইইউ৷

ইমরান খান বলেন, ধর্ষককে নপুংসক করে দেওয়ার মতো আইনের বিষয়ে চিন্তা ভাবনা করছেন তিনি৷ আর তা হতে পারে অপরাধের ধরনের উপর ভিত্তি করে৷

‘‘হত্যা মামলার বেলায় যেমন অপরাধের উদ্দেশ্য ও ধরন বিবেচনায় নিয়ে প্রথম, দ্বিতীয় বা তৃতীয় ক্যাটাগরিতে ফেলা হয়, ধর্ষণের অভিযোগের বেলায়ও এমন হতে পারে৷ আর প্রথম ক্যাটাগরির অপরাধের শাস্তি হতে পারে রাসায়নিক প্রয়োগে নপুংসক করে দেওয়া, যেন অপরাধী এ ধরনের অপকর্ম আর করতে না পারে৷’’ 

এদিকে অভিযুক্ত দুজনের একজনকে আটক করেছে পুলিশ৷ আটক ব্যক্তি ধর্ষণের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকারও করেছে৷ ডিএনএ পরীক্ষাতেও তার জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ৷

পাকিস্তানে প্রায়ই ধর্ষণসহ নারী নির্যাতনের নানা ঘটনা ঘটে থাকে৷ গত ফেব্রুয়ারি মাসে দেশটির আইনপ্রণেতারা জনসমক্ষে মৃত্যুদণ্ডকে ধর্ষণের শাস্তি হিসেবে প্রস্তাব করলেও সেটি আইন হিসেবে পাস হয়নি৷    

আরআর/এসিবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়

বিজ্ঞাপন