ধর্মের ভেদ নেই আলবেনিয়ার যে গির্জায় | সমাজ সংস্কৃতি | DW | 04.12.2020
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

আলবেনিয়া

ধর্মের ভেদ নেই আলবেনিয়ার যে গির্জায়

মহামারি বা দুর্যোগে আধ্যাত্মিক শক্তির কাছে সান্ত্বনা খোঁজার প্রচলন আছে আলবেনীয়দের মাঝে৷ করোনায় দেখা গেল ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে তারা জড়ো হচ্ছেন গির্জায়৷

আলবেনিয়ার সেন্ট এন্থনি চার্চ

আলবেনিয়ার সেন্ট এন্থনি চার্চ

আলবেনিয়ার উত্তর-পশ্চিমের লাক শহরের সেন্ট এন্থনি গির্জা এটি৷ করোনা মহামারির সময়ে মুসলিম, খ্রিস্টান কিংবা ধর্মে বিশ্বাসী নয় এমন অনেকেই  ভিড় করেছেন এখানে৷ করোনসহ নানা বিষয়ের প্রতিকার চেয়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে আবেদন তাদের৷

নানা ঢংয়ে ঈশ্বরের কাছে সান্ত্বনা চাইছেন পূণ্যার্থীরা৷ কেউ জ্বালাচ্ছেন মোমবাতির আলো আর কেউ রেখে যাচ্ছেন রোগাক্রান্ত সন্তানের জামা কিংবা প্রিয়জনের ছবি৷ উদ্দেশ্যে, জাগতিক সব শোক, জরা কাটিয়ে ফিরে আসুক শান্তি আর ভালোবাসা৷

তবে বিভিন্ন ধর্মের, বিশ্বাসের কিংবা বর্ণের আলবেনিয়ানদের এভাবে জড়ো হওয়াকে একটু আলাদা চোখে দেখছেন দেশটির টিরানা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞানী আফেরদিতা ওনুজি৷ তার মতে, এটি এমন একটি জায়গা যেখানে সবার ঈশ্বর এক৷ অর্থাৎ ভেদাভেদ না রেখে সবাই একটি জায়গায় এক হয়েছেন৷ করোনায় অজানা আর অক্ষমতার ভয় থেকে মুক্তি পেতেই এখানে এসেছেন তারা৷

এমন মানুষের সংখ্যা ইদানিং এখানে বেড়েছে জানিয়ে এ নৃবিজ্ঞানী বলেন, ঐশ্বরিক শক্তিতে মানুষের বিশ্বাসের ছবি এটি৷

শুধু রোগমুক্তি নয়, দৈনন্দিন জীবনের বিশেষ করে দুর্যোগের সময়ের মানসিক চাপ লাঘবে জড়ো হচ্ছেন কেউ কেউ৷ আদা দ্রাভা নামে ২০ বছরের এক তরুণী প্রথমবারের মতো এখানে এসছেন৷ ‘‘মানসিক চাপ লাঘবের জন্য এখানে এসেছি৷ সেই সাথে পরিবারের সদস্যদের জন্য শান্তি কামনা আমার৷''

শুধু রোগাক্রান্ত ব্যক্তিরাই নয়, রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া মানুষদেরও দেখা যায় এখানে৷ করোনা থেকে সেরে উঠা অনেকেই প্রার্থনা করতে আসেন এ চার্চে, জানালেন পাদ্রী মিরাশ ইভানজা৷

বলকান রাষ্ট্র আলবেনিয়া প্রায় ৫০ বছর কমিউনিস্ট শাসনের অধীনে ছিল৷ সে সময় ধর্মকর্মে অনেকটা নিষেধাজ্ঞা ছিল৷ তবে গত ৩০ বছরে অর্থাৎ কমিউনিস্ট শাসনের পতনের পর ধীরে ধীরে দেশটিতে ধর্ম চর্চার প্রচলন বাড়ছে৷

আরআর/এসিবি (এএফপি)   

        

নির্বাচিত প্রতিবেদন

বিজ্ঞাপন