‘ধর্মকে রাজনৈতিক ফায়দা লাভের জন্য সব দলই ব্যবহার করে’ | বিশ্ব | DW | 02.04.2021
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ

‘ধর্মকে রাজনৈতিক ফায়দা লাভের জন্য সব দলই ব্যবহার করে’

ইউটিউবে ডয়চে ভেলে বাংলার ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়’ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে সাম্প্রদায়িকতা বৃদ্ধির প্রসঙ্গে এমনটাই বললেন পলিটিক্যাল অ্যাক্টিভিস্ট অজন্তা দেব রায়৷

ডয়চে ভেলে বাংলার সাপ্তাহিক ইউটিউব টকশো ‘খালেদ মুহিউদ্দীন জানতে চায়'-এ আজকের পর্বে আলোচক হিসেবে ঢাকা থেকে উপস্থিত ছিলেন ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর এবং লন্ডন থেকে ছিলেন পলিটিক্যাল অ্যাক্টিভিস্ট অজন্তা দেব রায়৷ এবারের পর্বে আলোচ্য বিষয় ছিল ‘সাম্প্রদায়িকতার বীজ'৷ প্রশ্ন ছিল, বাংলাদেশে কেন হয় ভাঙচুর, এর দায় কার?

আলোচনায় সঞ্চালক প্রশ্ন করেন কীভাবে সাম্প্রদায়িকতা দেশের রাজনীতিতে তার গুরুত্ব বাড়িয়েছে৷ কথা হয় পুলিশ-প্রশাসনকে আগ্রাসী হতে উস্কানি দেওয়ার বিষযে৷ এ বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে অজন্তা দেব রায় তোলেন মানুষের মনস্তাত্ত্বিক বদলের প্রসঙ্গ৷ তিনি বলেন, ‘‘কিছু কিছু বিষয় আমাদের মনস্তত্ত্বে এমনভাবে ঢুকে গিয়েছে যে, আমরা খুব সহজেই উস্কে যাই৷ ঠিক যেমন ধর্ম৷ ধর্মসম্পর্কিত কোনো কথা ব্যবহার করলে আমাদের লাইক-ফলোয়ার বেড়ে যায়৷ আওয়ামী লীগ বলেন, হেফাজতে ইসলাম বলেন, বিএনপি, জামাত, যুব লীগ বা ছাত্র লীগ বলেন, এমনকি যুব অধিকার পরিষদের নূর, তাদের প্রত্যেকের মধ্যে সাম্প্রদায়িকতার, সহিংসতার রাজনীতির একটা বীজ ঢুকে গেছে৷ প্রত্যেকেই জানা-অজানায় সেটার চর্চা করেন৷ ধর্মকে ব্যবহার করছেন রাজনৈতিক ফায়দা লাভের জন্য৷ একজন মানুষ ধর্মকে অনুসরণ করতে পারেন, কিন্তু ধর্ম রাজনীতিতে চলে এলে সেটা সমস্যা সৃষ্টি করে৷’’

একই বিষয়ে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূর উত্থাপন করেন সাম্প্রদায়িকতা শব্দের সাথে ধর্মকে ভুলভাবে উপস্থাপন করার বিষয়টি৷ তিনি বলেন, ‘‘ইসলাম ধর্মের একজন মানুষ হিসাবে বলি, ধর্ম কখনো অন্য কারো অধিকার খর্ব করার কথা বলে না৷ ইসলাম ধর্ম সম্প্রীতির কথা বলে৷ আর যারা ধর্মকে বিকৃত করে অপপ্রচার করে, তাদের প্রতি আমি চিরকালই আমার ঘৃণা প্রকাশ করি৷ কিন্তু আমাদের এটাও মনে রাখতে হবে যে, আমরা এমন একটা জাতি, যারা পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশকে আলাদা করেছি৷ সেই ইসলামী অতি-আবেগের দিকে দেশের মানুষ কর্ণপাত করেননি৷’’

অনুষ্ঠানে আরো আলোচিত হয় বাংলাদেশের রাজনীতিতে ধর্মীয় সংগঠনগুলির বেড়ে ওঠা, প্রতিবাদের ক্ষেত্রে নিজস্ব বিশেষ বিচার-বিবেচনা ও এতে সরকারপক্ষের ভূমিকার মতো নানা প্রসঙ্গ৷

এসএস/এসিবি

সংশ্লিষ্ট বিষয়