1. কন্টেন্টে যান
  2. মূল মেন্যুতে যান
  3. আরো ডয়চে ভেলে সাইটে যান
ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের বিক্ষোভ, যার তুলনা করা হচ্ছে মধ্য প্রাচ্যের সঙ্গে। ছবি: Shannon Stapleton/REUTERS

দয়া করে মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে তুলনা করবেন না

১১ জানুয়ারি ২০২১

ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবের পরেই মধ্যপ্রাচ্যের সঙ্গে অ্যামেরিকার ঘটনার তুলনা শুরু হয়েছে। এটা ঠিক নয়। লিখছেন আয়া ইব্রাহিম।

https://p.dw.com/p/3nlYU

ডনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকরা ক্যাপিটলে তাণ্ডব চালাবার পরের সকাল। সারা বিশ্বের মানুষের সামনে তখন ক্যাপিটলের ঘটনার ছবি এসে গেছে। কিছু মার্কিন পর্যবেক্ষক এই ঘটনার তুলনা টানছেন তৃতীয় বিশ্বের দেশের সঙ্গে। এবিসি টিভির রিপোর্টারের মনে হয়েছে, তিনি যেন বাগদাদে আছেন। সিএনএনের এক বক্তার মতে, ''মনে হচ্ছে, অ্যামেরিকা এখন সিরিয়ার পথে চলেছে।''

এই ধরনের তুলনা করার লোভ সামলানো কঠিন, তা আমি বুঝি। আমরা সরকারি ভবন অবরোধ, দাঙ্গা-হাঙ্গামা, জরুরি অবস্থা ঘোষণার ঘটনা দেখতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। কিন্তু অ্যামেরিকায় যা হচ্ছে, তা আরব দুনিয়ার গত এক দশক ধরে যে সব ঘটনা ঘটছে, তার অ্যান্টিথিসিস বলতে পারি। বলতে পারি, এই ধরনের তুলনা মানে আরব বিশ্বকে অপমান করা।

স্বাধীনতা রক্ষা এবং ভোট দেয়ার অধিকার

২০১১ সালে মিশরের মানুষ যখন পথে নেমেছিলেন, তখন তাঁরা কয়েকটি সরকারি ভবনে ঢুকে পড়েছিলেন। কিন্তু তাঁরা আইনসঙ্গত নির্বাচনের ফল বদলাবার জন্য এই কাজ করেননি। বরং তাঁরা ওই কাজ করেছিলেন, নিরপেক্ষ নির্বাচন ও ভোট দেয়ার অধিকারের দাবিতে। তাঁরা নির্বাচনে জিতে আসা প্রেসিডেন্টকে সরাতে সহিংস হননি। তাঁরা হোসনি মুবারকের মতো স্বেচ্ছাচারীর বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছিলেন। মার্কিন পররাষ্ট্র নীতির কারণে তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় ছিলেন।

DW Reporterin Aya Ibrahim
আয়া ইব্রাহিম, ডিডাব্লিউ।ছবি: Robert Richter/DW

ইরাকের ক্ষেত্রেও একই কথা সত্য। গত এক বছর ধরে তরুণরা নিজেদের জীবন তুচ্ছ করে রাস্তায় নেমেছে। ২০০৩ সালের মার্কিন আগ্রাসণের পর থেকে যে সহিংসতা চলছে, তার প্রতিবাদে। সিরিয়ার সঙ্গে তুলনাও একেবারেই অন্যায্য। মানবাধিকার কর্মী ওমর অ্যালসগ্রে দেখিয়েছেন, তাঁর দেশের মানুষ যখন প্রতিবাদ করতে শুরু করেন, তখন তা স্বাধীনতার আন্দোলনে পরিণত হয়। ডিডাব্লিউর হয়ে রিপোর্ট করার সময় আমিও সুদান ও লেবাননে আমার প্রজন্মের অনেক প্রতিবাদকারীকে দেখেছি। তাঁদের সঙ্গে কথা বলেছি। কিন্তু ট্রাম্প সমর্থকরা গত কয়েকদিন ধরে যা বলছেন, তার সঙ্গে ওই প্রতিবাদকারীদের কথা মেলে না। 

অ্যামেরিকা নিজের দিকে তাকাক

এই ধরনের তুলনা দেখে মনে হয়, সহিংসতা যেন মধ্যপ্রাচ্যেরই ঘটনা। সেখানে শুধুই গোলমাল হয়, মানুষ গোলমাল করে। কিন্তু বাস্তব হলো, অস্থিরতা এখন অ্যামেরিকার অঙ্গ এবং তা দেখে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

এই দেশে এখনো প্রবল বর্ণবাদ আছে, অতিমারি আছে, অসাম্য ও ভোটদাতাদের দমন আছে। এই দেশে গত চার বছর ধরে সর্বোচ্চ স্তর থেকে ঘৃণাপূর্ণ কথা বলা হয়েছে। তাই মধ্য প্রাচ্যের সঙ্গে তুলনা করবেন না। করলে তা অন্যায় হবে।

আয়া ইব্রাহিম/জিএইচ

স্কিপ নেক্সট সেকশন এই বিষয়ে আরো তথ্য
স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

ডয়চে ভেলের শীর্ষ সংবাদ

১৯৯৭ সালের ২ ডিসেম্বর পার্বত্য শান্তি চুক্তি সই হয়েছিল

পার্বত্য শান্তি চুক্তি : ২৫ বছরে প্রথম শর্তই পূরণ হয়নি

স্কিপ নেক্সট সেকশন ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

ডয়চে ভেলে থেকে আরো সংবাদ

প্রথম পাতায় যান